Home /News /local-18 /
Jalpaiguri: উদ্ধার হওয়া ৩ ক্যাঙারুকে রাখা হবে বেঙ্গল সাফারি পার্কে

Jalpaiguri: উদ্ধার হওয়া ৩ ক্যাঙারুকে রাখা হবে বেঙ্গল সাফারি পার্কে

খাবার

খাবার দেওয়া হয়েছে ক্যাঙারুগুলিকে

সম্প্রতি ডুয়ার্সে দেখা মিলেছে ক্যাঙারুর (kangaroo)। বন দপ্তরের আশঙ্কা, নানা কারণে ক্যাঙারু পাচার হওয়ার পথে ছিল। 'ভোরের আলো' সংলগ্ন এলাকায় দুটি ক্যাঙারু উদ্ধার করে বনদপ্তর। এর কিছু সময় পর শিলিগুড়ির ফাড়াবাড়ি নেপালীবস্তি এলাকা থেকে উদ্ধার হয়েছে আরেকটি ক্যাঙারু।

আরও পড়ুন...
  • Share this:

    ভাস্কর চক্রবর্তী, শিলিগুড়ি: বেঙ্গল সাফারি পার্কের গৌরব বাড়াতে চলেছে বৈকুন্ঠপুরের জঙ্গল থেকে উদ্ধার হওয়া তিন ক্যাঙারু। প্রাথমিকভাবে জানা গিয়েছে, ওই তিন ক্যাঙারু বর্তমানে সাফারি পার্কেই চিকিৎসাধীন রয়েছে। অতি দ্রুত তাদের ওপেন এনক্লোজারে রাখা হবে। তবে এখনই পর্যটকদের নজরে আনা হবে না তাদের। সেক্ষেত্রে কিছুটা সময় দেওয়া হবে পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার জন্য। সম্প্রতি ডুয়ার্সে দেখা মিলেছে ক্যাঙারুর (kangaroo)। বন দপ্তরের আশঙ্কা, নানা কারণে ক্যাঙারু পাচার হওয়ার পথে ছিল। 'ভোরের আলো' সংলগ্ন এলাকায় দুটি ক্যাঙারু উদ্ধার করে বনদপ্তর। এর কিছু সময় পর শিলিগুড়ির ফাড়াবাড়ি নেপালীবস্তি এলাকা থেকে উদ্ধার হয়েছে আরেকটি ক্যাঙারু।

    বৈকুন্ঠপুর ফরেস্ট ডিভিশনের ডিএফও (DFO) হরিকৃষ্ণণ বলেন, 'এটি পাচারের উদ্দেশ্যে নিয়ে আসা হয়েছিল। আমরা খতিয়ে দেখছি বিষয়টিকে।' এদিকে রেঞ্জ অফিসার সঞ্জয় দত্ত বলেন, 'গোপন সূত্রে খবর পেয়ে আমরা অভিযানে নামি। সেখান থেকেই এই দুটি ক্যাঙারু উদ্ধার হয়।' জানা গিয়েছে, গজলডোবায় নাকা চেকিংয়ের সময় দেখা যায় এই দুটি ক্যাঙারুকে। তখন সেগুলিকে ফেলে পালায় পাচারকারীরা। জানা গিয়েছে, প্রাথমিকভাবে ক্যাঙারু দুটিকে বেঙ্গল সাফারিতে পাঠানো হবে। পরবর্তীতে প্রয়োজন পড়লে আলিপুর চিড়িয়াখানায় পাঠিয়ে দেওয়া হবে। ক্যাঙারু দুটিকে দেখতে ভিড় জমে মানুষের। কিন্তু সকলের মোবাইলের ফ্ল্যাশ (flash) এবং চলাচল দেখে তারাও ছটফট করতে থাকে। এদিকে শিলিগুড়ি থেকেও উদ্ধার হয় একটি ক্যাঙারু। ফাড়াবাড়ি লাগোয়া এলাকায় হঠাৎ খুব কুকুরের চিৎকার শোনা যায়। বিরক্ত হয়ে বেরিয়ে আসেন স্থানীয়রা। এরপর দেখেন একটি ক্যাঙারুকে ঘিরে রয়েছে কুকুরের দল। কুকুরগুলিকে সরিয়ে নিরাপদ স্থানে নিয়ে আসেন স্থানীয়রাই।

    পরবর্তীতে বনদপ্তরকে খবর দেওয়া হলে সেটিকে বেঙ্গল সাফারিতে নিয়ে যান বনকর্মীরা। তবে এর সঙ্গে কোনও চক্র জড়িত রয়েছে কিনা, তা খতিয়ে দেখছে বনকর্মীরা। পরেরদিন বৈকুন্ঠপুর জঙ্গলের ভেতর থেকে উদ্ধার হয় একটি মৃত ক্যাঙারু শাবক। জীবিত তিন ক্যাঙারুকে আপাতত রাখা হয়েছে বেঙ্গল সাফারি পার্কে চিকিৎসকের কড়া নজরদারিতে। খানিকটা দূর্বল হলেও সুস্থ রয়েছে তারা। দেওয়া হচ্ছে স্যালাইন। সাফারির ভেতরেই একটি স্থান চিহ্নিত করা হয়েছে। জানা গিয়েছে, লেপার্ড ক্যাটের (leopard cat) জন্য তৈরি একটি এনক্লোজারেই (enclosure) আপাতত রাখা হবে তিন ক্যাঙ্গারুকে। তবে এই মূহূর্তে তাদের পর্যটকের সামনে আনা হবে না। বেঙ্গল সাফারি পার্কের ডিরেক্টর দাওয়া সাংমু শেরপা জানিয়েছেন, ক্যাঙারুগুলিকে অবজার্ভেশনে রাখা হয়েছে। স্যালাইন দেওয়া হচ্ছে। সুস্থ হয়ে উঠলে তাদের ওপেন এনক্লোজারে পাঠানো হবে। তবে এখনও পর্যটকদের সামনে আনা হচ্ছে না এখনই।

    First published:

    Tags: Jalpaiguri, Siliguri

    পরবর্তী খবর