Home /News /local-18 /
Smritiban Baikunthapur: স্মৃতিবনের ১০০ দিন! 'বনমিত্র'দের ধন্যবাদ জানিয়ে তুলে দেওয়া হল চেক

Smritiban Baikunthapur: স্মৃতিবনের ১০০ দিন! 'বনমিত্র'দের ধন্যবাদ জানিয়ে তুলে দেওয়া হল চেক

বনমিত্রের হাতে চেক তুলে দিচ্ছেন অভয়া বসু

বনমিত্রের হাতে চেক তুলে দিচ্ছেন অভয়া বসু

ব্রিজকিশোর তেওয়ারি স্মারক তহবিলের তরফে কমলকিশোর তেওয়ারি এদিন ৩০০টি গাছের দায়িত্ব নিয়ে চেক তুলে দেন বনমিত্রদের হাতে

  • Share this:

    #শিলিগুড়ি ও জলপাইগুড়ি: একদিকে হারমোনিয়াম বাজিয়ে লোকগান, আরেকদিকে সবুজে ঘেরা একটুকরো স্বর্গ! এভাবেই পালিত হল স্মৃতিবনের ১০০ দিন। এদিন 'বনমিত্র'-দের হাতে তুলে দেওয়া হল চেক।

    স্মৃতিবন কী? কেউ কারও স্মৃতিতে যদি একটি গাছ রোপণ করেন, সেটা হবে এই স্মৃতিবনের অংশ। এই স্মৃতিবনের ১০০ দিন পূরণ হওয়ায় অ্যাসোসিয়েশন ফর কনসার্ভেশন অ্যান্ড ট্যুরিজমের (Association for Conservation and Tourism- ACT) সদস্য, বৈকুন্ঠপুর বনবিভাগের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা একটি ছোট অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই দিনটি পালন করেন। এদিন গুরুবাসের অন্যতম প্রতিনিধি তথা আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন গায়িকা রিনা দাস বাউল এই অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন।

    এই স্মৃতিবনের দেখাশোনা করতেন স্থানীয় লোকজনই। তাঁদের নাম দেওয়া হয়েছিল 'বনমিত্র', অর্থাৎ বনের বন্ধু। সত্যিই বন্ধু বটে। তাঁরা চারিদিকে শেড (shade) তথা ফেনসিং (fencing) এর মেরামত করেন। হাতি ও নানান বন্যপ্রাণের আক্রমণে ভেঙে যাওয়া সেই শেডগুলোকে নিজস্ব উদ্যোগে ঠিক করেন। তাঁদের এই অক্লান্ত পরিশ্রম এবং কাজের জন্য তাঁদের হাতে চেক দেওয়া হয়।

    ব্রিজকিশোর তেওয়ারি স্মারক তহবিলের তরফে কমলকিশোর তেওয়ারি এদিন ৩০০টি গাছের দায়িত্ব নিয়ে চেক তুলে দেন বনমিত্রদের হাতে। এদিকে অমর কুমার বসু স্মৃতি তহবিলের তরফে অভয়া বসু নেন ১০০টি গাছের দায়িত্ব। সেই চেকও অভয়া বসু তুলে দেন বনমিত্রদের হাতে।

    পৌরাণিকভাবে বৈকুণ্ঠপুর বনকে ভগবান কৃষ্ণ এবং রুক্মিণীর দেশ বলে বিশ্বাস করা হয়। ঐতিহাসিকভাবে এটি সেই ভূমি যেখানে ভারতীয় স্বাধীনতা আন্দোলনের বীজ রোপিত হয়েছিল। এই বন ঘিরেই শিলিগুড়ি এবং জলপাইগুড়ি শহর তৈরি হয়েছে। এই দুটি শহর এবং আশেপাশের মানব বসতি সুরক্ষিত হওয়ার কারণ হল বৈকুণ্ঠপুর বনভূমি।

    সাহু, করলা, করতোয়া এবং অন্যান্য অনেক কম পরিচিত নদী রয়েছে। এই নদীগুলির আশেপাশেই বিভিন্ন বনাঞ্চল শহর দুটিকে অক্সিজেনের জোগান দিচ্ছে। অ্যাসোসিয়েশন ফর কনসার্ভেশন অ্যান্ড ট্যুরিজমের (Association for Conservation and Tourism- ACT) রুরাল হেলথ কোঅর্ডিনেটর তন্নিষ্ঠা রক্ষিত নিউজ ১৮ লোকালকে বলেন, "ক্লাইমেট চেঞ্জ (climate change) হচ্ছে। ধীরে ধীরে কংক্রীটের জঙ্গলে পরিণত হচ্ছে সবকিছু। তাই এই স্মৃতিবনকে যত্ন করা সত্যি ভীষণ প্রয়োজনীয়। এতে পূর্বপুরুষ বা প্রিয়জনদের মনে রাখার পাশাপাশি পরিবেশকেও ভালোবাসা হবে।" এদিন অনুষ্ঠানে লোকগানের মাধ্যমে ১০০দিন উদযাপন করা হয়।

    Vaskar Chakraborty
    First published:

    Tags: Jalpaiguri, Siliguri

    পরবর্তী খবর