• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • অরণ্য সপ্তাহ-এর সূচনা বনগাঁ পৌরসভার উদ্যোগে

অরণ্য সপ্তাহ-এর সূচনা বনগাঁ পৌরসভার উদ্যোগে

অরণ্য সপ্তাহ-এর সূচনা বনগাঁ পৌরসভার উদ্যোগে

অরণ্য সপ্তাহ-এর সূচনা বনগাঁ পৌরসভার উদ্যোগে

প্রায় ১৫ হাজার গাছ লাগানোর উদ্যোগ নিয়ে অরণ্য সপ্তাহ কর্মসূচির সূচনা করল বনগাঁ পৌরসভা

  • Share this:
    রাতুল ব্যানার্জি, উত্তর ২৪ পরগনা : করোনা মহামারীর কারণে প্রাণ হারিয়েছে বহু মানুষ। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে যে পরিমাণে অক্সিজেনের অভাব দেখা দিয়েছিল তাতে দেশ তথা রাজ্যের স্বাস্থ্যব্যবস্থার বহাল চিত্র ধরা পড়েছিল মানুষের কাছে। একদিকে করোনা মহামারী আরেক দিকে আম্ফান-ইয়াস এর মত ঘূর্ণিঝড়। গতবছর আম্ফান এর কারণে বহু গাছপালা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল উত্তর ২৪ পরগনা সহ দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিস্তীর্ণ এলাকায়। এই পরিপ্রেক্ষিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে রাজ্যজুড়ে ম্যানগ্রোভে বিশেষ নজরদারি দেওয়া হয়েছে। আগামীদিনে রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় ম্যানগ্রোভ অরণ্য রোপণের কাজ চলছে জোড় কদমে। ঠিক সেই অনুযায়ী বনগাঁ পৌরসভার উদ্যোগে শুরু হল অরণ্য সপ্তাহ। প্রায় ১৫ হাজার গাছ লাগানোর উদ্যোগ নিয়ে অরণ্য সপ্তাহ কর্মসূচির সূচনা করল বনগাঁ পৌরসভা। বুধবার বনগাঁ পৌরসভার উদ্যোগে পাবলিক লাইব্রেরী মঞ্চ থেকে বনগাঁ পৌরসভার পৌর প্রশাসক গোপাল শেঠ ও প্রাক্তন পৌর মাতা জ্যোৎস্না আঢ্য- এর উপস্থিতিতে বিভিন্ন স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে আমলকি, নিম চারা গাছ তুলে দিয়ে অরণ্য সপ্তাহ উদযাপন কর্মসূচি সূচনা করেন। বনগাঁর পৌর প্রশাসক গোপাল শেঠ বলেন, অরণ্য সপ্তাহ উপলক্ষে ১৫ হাজার গাছ রোপণের কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে এবং যশোর রোডের পাশের শিশু গাছ গুলিতে অবৈধভাবে বিজ্ঞাপন দেওয়া বন্ধ করে সৌন্দর্যায়নের ব্যবস্থাও করা হবে বলে জানান তিনি। গতকাল বনোমহোৎসবে রাজ্যের বনমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক জানান, ১৫ কোটি ম্যানগ্রোভ অরণ্য রাজ্যের বিস্তীর্ণ এলাকায় লাগানোর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে। এছাড়াও প্রায় ৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে রাজ্যে প্রায় ৩৫০ টি বনসৃজন গড়ার পরিকল্পনাও রয়েছে। তিনি আরও জানান, পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের প্রায় চার শতাংশ বনজমি বেড়েছে। ফলে এই জমিকে কাজে লাগিয়ে ৫ লক্ষ ৬১ হাজার হেক্টর জমিতে তৈরি হবে বনরক্ষী। নজরদারি  দেওয়া হবে গাছ কাটার লক্ষ্যে, কারন একটি গাছ একটি প্রাণ এই ভাবনায় মানুষকে বুঝতে হবে গাছের গুরুত্ব। সুতরাং কেউ চাইলে গাছ কাটতে পারবে না। আগামীদিনে রাজ্যে চন্দন কাঠ চাষ শুরু হবে বলেও জানান বনমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। এখন দেখার আগামী দিনে এই প্রতিশ্রুতি কতটা বাস্তবায়িত হয় তা শুধু সময়ের অপেক্ষা।
    Published by:Pooja Basu
    First published: