• হোম
  • »
  • খবর
  • »
  • local-18
  • »
  • EMBANKMENTS FRACTURE BY BIDYADHARI RIVER AT NORTH 24 PARGANAS

বাঁধ ভেঙে বিদ্যাধরী নদীর জলে প্লাবিত এলাকা, বর্ষার চিন্তায় আতঙ্কিত এলাকাবাসী

ঘূর্ণিঝড় ইয়াস-এর জেরে বিদ্যাধরী নদীর বাঁধ ভেঙে প্লাবিত হয়েছে হাড়োয়া, দেগঙ্গার মত এলাকার অনেকটা অংশ

ঘূর্ণিঝড় ইয়াস-এর জেরে বিদ্যাধরী নদীর বাঁধ ভেঙে প্লাবিত হয়েছে হাড়োয়া, দেগঙ্গার মত এলাকার অনেকটা অংশ

  • Share this:

    #উত্তর ২৪ পরগণা: ঘূর্ণিঝড় 'ইয়াস' হয়েছে কিছুদিন আগে। সামনে আসছে বর্ষাও। চিন্তায় পড়েছে উত্তর ২৪ পরগনার বিদ্যাধরী নদীর এলাকার বাসিন্দারা। ঘূর্ণিঝড় ইয়াস-এর জেরে বিদ্যাধরী নদীর বাঁধ ভেঙে প্লাবিত হয়েছে হাড়োয়া, দেগঙ্গার মত এলাকার অনেকটা অংশ। বর্ষার আগে তাই বাঁধ মজবুতের জন্য দাবি তুলছেন এলাকার বাসিন্দারা। ওই এলাকার বাসিন্দা বক্তব্য, 'মাটি দিয়ে বাঁধ বাঁধা হয়েছিল কয়েকবার। এ ছাড়া আর কোনও কাজ হয়নি সেই ভাবে।' বাঁধ নির্মাণের টাকা এলেও তা লুঠ হয়ে যায় বলে অভিযোগ তাদের। তারা যাতে বাঁচতে পারে তার ব্যবস্থা করতে হবে বলে জানান তারা।

    ভাঙনের কবলে পড়েছে তারা। মাটি দিয়ে বাঁধ নির্মাণের কাজ চলছে। আতঙ্কে রয়েছে তারা। ভিটেবাড়ি চলে গিয়েছে জলে প্লাবিত হয়ে। বাস করতে হচ্ছে চাষের জমিতে। কোথাও যাওয়ার নেই তাদের। মুখ্যমন্ত্রীর কাছে তাদের আবেদন' আপনি আমাদের কথা একটু ভাবুন কংক্রিটের বাঁধ যেন নির্মাণ করা হয়। চাঁপাতলার বাসিন্দাদের আবেদন, প্রায় ২০০ থেকে ৩০০ বিঘা জমি নদীর জলে প্লাবিত হয়ে গিয়েছে। তারা সবাই ঘর ছাড়া হয়ে গিয়েছে। আবার চাষের ফসলও ক্ষতি হয়েছে ঘূর্ণিঝড়ের ফলে। আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ অবশ্য উড়িয়ে দিয়েছেন চাঁপাতলা গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান হুমায়ুন রেজা চৌধুরী। তার বক্তব্য, 'রাজ্য সরকার টেন্ডার ডাকে তার নির্মাণের জন্য বলা হয়েছিল তবে সেচ দপ্তর কে বহুবার জানানোর পরেও কাজ হয়নি। সাধারণ মানুষ পঞ্চায়েত কে অভিযোগ করতে পারেন তবে বাঁধ নির্মাণ পঞ্চায়েত করতে পারে না। তারা যা অভিযোগ করছে তা সম্পূর্ণই ভুল। আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ ঠিক নয়'। উত্তরর ২৪ পরগনা জেলা পরিষদের পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ তথা অশোকনগরের বিধায়ক নারায়ণ গোস্বামী এ বিষয়ে বলেন, 'নির্দিষ্ট কোন অভিযোগ থাকলে তা জেলাশাসকের দপ্তরে করতে হবে এবং এরপর সেই অভিযোগ খতিয়ে দেখা হবে'।

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published: