• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • Durga Puja 2021|| বর্ধমান রাজবাড়ির পটেশ্বরীর পুজোয় প্রতিপদেই ঘট স্থাপন, বসে ডান্ডিয়া নাচের আসর

Durga Puja 2021|| বর্ধমান রাজবাড়ির পটেশ্বরীর পুজোয় প্রতিপদেই ঘট স্থাপন, বসে ডান্ডিয়া নাচের আসর

Durga Puja 2021 Bardhaman Rajbari Puja History and Rituals: দেওয়ালে ভাঙ্গন ধরলেও, ভাঙ্গন ধরেনি পুজোর রীতিনীতিতে। আজও নিষ্ঠার সঙ্গে। পুজিত হন বর্ধমান রাজবাড়ির পটেশ্বরী।

Durga Puja 2021 Bardhaman Rajbari Puja History and Rituals: দেওয়ালে ভাঙ্গন ধরলেও, ভাঙ্গন ধরেনি পুজোর রীতিনীতিতে। আজও নিষ্ঠার সঙ্গে। পুজিত হন বর্ধমান রাজবাড়ির পটেশ্বরী।

Durga Puja 2021 Bardhaman Rajbari Puja History and Rituals: দেওয়ালে ভাঙ্গন ধরলেও, ভাঙ্গন ধরেনি পুজোর রীতিনীতিতে। আজও নিষ্ঠার সঙ্গে। পুজিত হন বর্ধমান রাজবাড়ির পটেশ্বরী।

  • Share this:

    #পূর্ব বর্ধমান: নেই রাজা,  রাজত্ব। তবে এখনও রাজার প্রথা মেনেই পুজো হয় বর্ধমান রাজবাড়িতে। দেওয়ালে শ্যাওলা ধরলেও মরচে পড়েনি পুজো রীতিতে। আজও রাজ অমলের রীতি নীতি মেনেই পুজো হয় মা দুর্গার। এই দুর্গাকে বলা হয় পটেশ্বরী। পটের মধ্যেই মা দুর্গার ছবি আঁকা। তাই নাম পটেশ্বরী। সোলার সাজে সজ্জিত থাকেন দুর্গা। ১২ বছর অন্তর-অন্তর পটে প্রলেপ দেওয়া হয় রং তুলির।

    প্রতিবছরের মতো এবছরও পুজিত হবেন পটেশ্বরী। চন্ডীরূপে পুজিতা হন তিনি। নটি রূপে পুজো করা হয় তাঁকে। ডান্ডিয়া নাচ প্রদর্শন করতে আসেন গুজরাতি সম্প্রদায়ের অনেকে। এ ছাড়াও হয় কুমারী পুজো। অষ্টমী ও নবমীতে হয় ভোগ বিতরণ। ভোগে থাকে পুরি, হালুয়া, ছোলা। আগের মতো  লোকসমাগম না হলেও বহু মানুষ আজও আসেন রাজবাড়ির পুজো দেখতে।

    রাজবাড়ির প্রধান পুরোহিত উত্তম মিশ্র বলেন, "৩০০ থেকে ৩৫০ বছরের পুরনো পুজো এই রাজবাড়ির পুজো।  রাজা মাহাতাবচাঁদের আমল থেকে চলে আসছে এই পুজো। খুব জাঁকজমক ভাবে না হলেও রীতি মেনেই পুজো হয়। আর করোনা আবহে আরও সীমিত হয়ে গেছে পুজো। পাশাপাশি তিনি বলেন, প্রতিপদের দিন ঘট পুজো হয় এখানে। দশমী পর্যন্ত চলে পুজো। অষ্টমী নবমীতে হালুয়া, পুরি, ছোলা ভোগে দেওয়া হয়। নবমীতে কুমারী পুজো হয়। গুজরাতি সম্প্রদায়ের মানুষজন এসে ডান্ডিয়া নাচ করতে।

    রাজার কুলদেবতা লক্ষী নারায়ন জিউ মন্দিরেই পুজিত হন পটেশ্বরী। একদিকে পটেশ্বরী মূর্তি যেমন রাখা রয়েছে পাশাপাশি সেখানে রয়েছে অন্যান্য অনেক দেবদেবীর মূর্তি। রাজবাড়ির দেওয়ালের চুন সুরকি খসেছে রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে। বাড়ির আনাচে কানাচে গজিয়ে উঠেছে গাছের ডালপালা। বাড়িতে প্রবেশ করলে এখন শুধুই ভেসে আসে ঘুঘু পাখির ডাক। মাঝে মাঝে চোখ যায় মাটিতে পাছে পোকামাকড় বেয়ে উঠে যায় গায়ে। তবে রাজবাড়িতে ঝুলে থাকা দু-একটি ঝাড়বাতি আজও মনে করিয়ে দেয় সেই বহু প্রাচীন রাজা আমলের। পাশাপাশি রীতি মেনে চলে আসা পটেশ্বরী পুজো বাঁচিয়ে রেখেছে ঐতিহ্য।

    জায়গায় জায়গায় চুন সুরকির দেওয়াল ভেঙে পড়েছে আবার কোথাও পলেস্তারা খসে পড়েছে। দেওয়াল বেয়ে জল পড়ায় শেওলা হয়ে গেছে আবার কোনো দেওয়াল চলে গেছে বট অশ্বত্থের দখলে। রাজ ঐতিহ্যের শেষ সলতে বলতে ভগ্নদশা মন্দির।

    Malobika Biswas

    Published by:Shubhagata Dey
    First published: