• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • Bengal News| Birbhum: নদী বাঁধের ভূমিক্ষয় রোধে নানুরে লাগানো হচ্ছে ভাটিভার ঘাস

Bengal News| Birbhum: নদী বাঁধের ভূমিক্ষয় রোধে নানুরে লাগানো হচ্ছে ভাটিভার ঘাস

নদী বাঁধের ভূমিক্ষয় রোধে নানুরে লাগানো হচ্ছে ভাটিভার ঘাস

নদী বাঁধের ভূমিক্ষয় রোধে নানুরে লাগানো হচ্ছে ভাটিভার ঘাস

অজয় নদের (Ajoy River in Birbhum) বাঁধের ভূমিক্ষয় রোধে অভিনব পথ বেছে নেওয়া হল বীরভূম জেলা (Birbhum news) প্রশাসনের তরফে।

  • Share this:

    #বীরভূম: নদীমাতৃক রাজ্য পশ্চিমবঙ্গের (Bengal News) অন্যান্য জেলার মতো বীরভূমের (Birbhum) উপর দিয়েও বয়ে গেছে একাধিক নদনদী। বীরভূমের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া নদনদীগুলি খরস্রোতা হওয়ার দরুন বছরের অন্যান্য সময় শান্ত থাকলেও বর্ষার (Rivers of Bengal in Monsoon) জলে ফুলেফেঁপে উঠে অশান্ত হয়ে পড়ে। বর্ষায় বেশি বৃষ্টি হলেই বিভিন্ন এলাকা প্লাবিত হতে দেখা যায় (Flood in Rainy season)। ক্ষতি হয় চাষবাসের (vegetation destroy in flood), ক্ষতি হয় নদী তীরবর্তী এলাকার বাসিন্দাদের।

    বীরভূমের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া এই সকল নদ নদীর উপর বাঁধ থাকলেও সেই সকল নদী বাঁধের মাটি বৃষ্টির জলে দিন দিন ক্ষয়ে যাওয়ার কারণে তা দুর্বল হয়ে পড়ছে (Erosion in River)। দুর্বল হয়ে পড়ায় এই সকল বাঁধ (Dam on River in Birbhum) পুনরায় মেরামতি করা এবং অন্যান্য রক্ষণাবেক্ষণের কারণে প্রশাসনিকভাবে বিপুল অর্থও খরচ করতে হয়। তবে এবার নানুরের বেশ কয়েকটি গ্রামের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া অজয় নদের (Ajoy River in Birbhum) বাঁধের ভূমিক্ষয় রোধে অভিনব পথ বেছে নেওয়া হল বীরভূম জেলা প্রশাসনের তরফে (Stop Erosion on Ajoy river)।

    নানুরের বাসাপাড়ার অন্তর্গত ন নগর কড্ডা, হোসেনপুর, শ্রীপুর সহ একাধিক গ্রামের নদী বাঁধের উপর প্রশাসনিক ভাবে শুরু হয়েছে ভাটিভার ঘাস লাগানো (special grass to stop erosiom)। এই ভাটিভার গাছ লাগানোর জন্য একটি সংস্থার সাথে চুক্তি হয়েছে প্রশাসনের। সেই সংস্থা ইতিমধ্যেই তাদের কাজ শুরু করে দিয়েছে। মূলত বীরভূম জেলা প্রশাসনের তরফ থেকে বীরভূম জেলাশাসক বিধান রায়, বোলপুরের মহকুমা শাসক অয়ন নাথ সহ অন্যান্য প্রশাসনিক কর্তারা এই এলাকা পরিদর্শন করে ব্লু প্রিন্ট তৈরি করেন এবং এমন সিদ্ধান্ত নেন।

    নানুরের এই সকল এলাকায় নদী বাঁধের উপর যেসকল গাছ রয়েছে সেই গাছগুলির মাটি ধরে রাখার ক্ষমতা কম (Trees to stop erosion)। অন্যদিকে ভাটিভার ঘাস মাটিকে আঁকড়ে ধরে রাখে। এই ঘাস অনেকটা সুন্দরবনের ম্যানগ্রোভ (Mangrove in Sunderban) গাছের মতোই মাটি ক্ষয় রোধে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে। এসব একাধিক দিক বিবেচনা করে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ কেরিম খান। কেরিম খান জানিয়েছেন,"ইতিমধ্যেই আমরা নানুর ব্লকের এই তিনটি এলাকায় এই ঘাস লাগানোর কাজ শুরু করে দিয়েছি। আগামী দিনে বেশকিছু এলাকার নদী বাঁধ মেরামতি করে সেই সকল এলাকাতেও এই ঘাস লাগানো হবে। এই ভাটিভার ঘাস মাটি ক্ষয় রোধ করে বাঁধ শক্তপোক্ত রাখতে সাহায্য করবে।"

    ভাটিভার ঘাসের শিকড় ১০ থেকে ১২ ফুট (Grass with long roots to hold soil) পর্যন্ত মাটির নিচে চলে যেতে সক্ষম হয়। ফলে স্বাভাবিকভাবেই তাদের মাটিকে আঁকড়ে ধরে রাখার ক্ষমতা অনেকটা বেশি। এমনকি এই ঘাস দীর্ঘদিন ধরে জলের নিচে থাকলেও নষ্ট হয় না, পাশাপাশি এই সকল ঘাসের রক্ষণাবেক্ষণের তেমন কোন খরচ নেই, সহজে একজনের পক্ষে তোলা সম্ভবও নয়। এইসকল একাধিক দিক বিচার করে বিশেষজ্ঞরা নদী বাঁধের উপর এমন ভাটিভার লাগানোর পক্ষে মত পোষণ করেন।

    মাধব দাস

    Published by:Pooja Basu
    First published: