Home /News /local-18 /
Birbhum News- শিশু শিক্ষা সহায়িকাদের বরখাস্তের মামলায় হাইকোর্টে মুখ পুড়লো দুবরাজপুর পৌরসভার

Birbhum News- শিশু শিক্ষা সহায়িকাদের বরখাস্তের মামলায় হাইকোর্টে মুখ পুড়লো দুবরাজপুর পৌরসভার

শিশুশিক্ষা সহায়িকাদের বরখাস্তের মামলায় হাইকোর্টে মুখ পুড়লো দুবরাজপুর পৌরসভার

শিশুশিক্ষা সহায়িকাদের বরখাস্তের মামলায় হাইকোর্টে মুখ পুড়লো দুবরাজপুর পৌরসভার

সরকারি নির্দেশিকা অবজ্ঞা করে অবসর গ্রহণ করতে বাধ্য করার একটি মামলায় হাইকোর্টে মুখ পুড়লো দুবরাজপুর পৌরসভার

  • Share this:

    #বীরভূম : সরকারি নির্দেশিকাকে অবজ্ঞা করে, অবসর গ্রহণ করতে বাধ্য করার একটি মামলায় হাইকোর্টে মুখ পুড়লো দুবরাজপুর পৌরসভার। এই মামলায় অংশগ্রহণকারীরা জয় লাভের পাশাপাশি তাদের অবিলম্বে পুনর্বহাল করার নির্দেশ দিয়েছে আদালত (Birbhum News)।

    জানা যাচ্ছে, ২২ ডিসেম্বর ২০১৬ সালে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের ডিপার্টমেন্ট অফ মিউনিসিপাল অ্যাফেয়ার্স একটি অর্ডার পাশ করে এবং সেই অর্ডার রাজ্যের প্রতিটি পৌরসভায় দেওয়া হয়। যেখানে বলা হয়, যে সমস্ত শিশু শিক্ষা সহায়ক এবং সহায়িকারা ফেব্রুয়ারি ২০১৩-র আগে কাজে যোগ দিয়েছিলেন, তাদের অবসরকালীন বয়সের উর্ধ্বসীমা ৬০ বছর থেকে বাড়িয়ে ৬৫ বছর করার (Birbhum News)। কিন্তু সেই অর্ডারকে অবজ্ঞা করে দুবরাজপুর পৌরসভার এলাকার ১৪-১৫ জন শিশু শিক্ষা সহায়িকাকে অবসর নিতে বাধ্য করা হয় বলে অভিযোগ। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বরখাস্ত হওয়া শিশু শিক্ষা সহায়িকারা একাধিক প্রশাসনিক আধিকারিক এবং দুবরাজপুর পৌরসভার প্রশাসকের কাছে বারবার দ্বারস্থ হন। কিন্তু তারপরেও কোনরকম সুরাহা হয়নি বলে অভিযোগ তাদের। এরপর তারা আদালতের দ্বারস্থ হন। আদালতে এই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার চূড়ান্ত রায় ঘোষণা করা হয়। আদালতের তরফ থেকে বরখাস্ত করার এই সমস্ত চিঠি খারিজ করে ওই সকল কর্মীদের, যারা এই মামলায় অংশগ্রহণ করেছিলেন তাদের আগামী ১ ফেব্রুয়ারির মধ্যে পুনর্বহাল করার নির্দেশ দেওয়া হয়।

    কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি তীর্থ আচার্য যিনি মামলাকারীদের হয়ে এই মামলা লড়ছিলেন তিনি জানিয়েছেন, "মহামান্য হাইকোর্টের বিচারপতি শম্পা সরকার সব পক্ষের বক্তব্য শোনার পর দুবরাজপুর পৌরসভার এই বরখাস্ত করার চিঠিগুলি খারিজ করে দেন। পাশাপাশি তিনি নির্দেশ দিয়েছেন, যে নয় জন বরখাস্ত হওয়া শিশু শিক্ষা সহায়িকা এই মামলায় অংশগ্রহণ করেছিলেন তাদের আগামী ১ ফেব্রুয়ারি ২০২২ সালের মধ্যে পুনর্বহাল করতে হবে।" (Birbhum News)

    এর পরিপ্রেক্ষিতে দুবরাজপুর পৌরসভার প্রশাসক পীযূষ পান্ডে জানিয়েছেন, "১৯৬৬ নম্বর অর্ডার অনুযায়ী আমরা ৬০ বছর বয়সে অবসর গ্রহণ করার জন্য চিঠি দিই। তবে নতুন অর্ডার সম্পর্কে আমাদের জানা ছিল না। এখন মহামান্য আদালত যা  নির্দেশ দিয়েছেন তা আমরা মেনে চলবো। যদিও আদালতের সেই নির্দেশ এখনো আমাদের কাছে এসে পৌঁছায়নি।" উচ্চ আদালতের এই নির্দেশের পর স্বাভাবিকভাবেই খুশি বরখাস্ত হওয়া ওই শিশু সহায়িকারা। তারা জানিয়েছেন, "দীর্ঘদিনের লড়াই চালানোর পর আমরা এই লড়াইয়ে জয় পেয়েছি। স্বাভাবিক ভাবেই আমরা বেশ খুশি"।

    Madhab Das
    First published:

    Tags: Birbhum, Dubrajpur

    পরবর্তী খবর