• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • BIRBHUM ROAD REPAIRING STARTED AT DUBRAJPUR PBD

বিক্ষোভের জেরে ইঁট, মোরামের পরিবর্তে পিচ দিয়ে রাস্তা মেরামতি শুরু দুবরাজপুরে

বিক্ষোভের জেরে ইঁট, মোরামের পরিবর্তে পিচ দিয়ে রাস্তা মেরামতি শুরু দুবরাজপুরে

রাস্তার ভাঙা অংশ সম্পূর্ণভাবে তুলে নতুনভাবে রাস্তা তৈরি করার কাজে হাত লাগানো প্রশাসন।

  • Share this:
    মাধব দাস, বীরভূম : ঘটনার সূত্রপাত গত শুক্রবার। বীরভূমের দুবরাজপুর শহরের কামারশাল মোড় থেকে দুবরাজপুর গ্রামীণ হাসপাতাল যাওয়ার দীর্ঘদিনের বেহাল রাস্তা মেরামতির কাজ শুরু হয়। তবে অদ্ভুতভাবে এই পিচের রাস্তা মেরামতের কাজ শুরু হয় ইঁট এবং মোরাম দিয়ে। পিচের রাস্তা ইঁট ও মোরাম দিয়ে মেরামতির কাজ শুরু হওয়ায় ক্ষোভে ফেটে পড়েন এলাকার বাসিন্দারা। সঙ্গে সঙ্গে তারা বিক্ষোভের সামিল হন এবং রাস্তা সারাইয়ের কাজ বন্ধ করে দেন এবং রাস্তার উপর ফেলা ইঁট ও মোরাম পুনরায় তুলে নিয়ে যেতে বাধ্য করেন। এই ঘটনার পর রবিবার ওই এলাকা পরিদর্শন করেন রাস্তার দায়িত্বে থাকা পিডাব্লিউডি কর্তৃপক্ষ। তারা পরিদর্শন করার পর উপলব্ধি করেন স্থানীয়দের বিক্ষোভের কারণ। এর পরেই ওই রাস্তা পুনরায় পিচ দিয়ে মেরামতের কাজ শুরু করা হয়। ইতিমধ্যেই ওই রাস্তা নতুন করে তৈরি করার জন্য ভেঙ্গে পড়া রাস্তার অংশ মেশিন দিয়ে তোলার কাজ শুরু হয়েছে। পাশাপাশি নতুন করে পাথর এবং অন্যান্য সামগ্রী ফেলা শুরু হয়েছে। নতুন করে এই রাস্তা তৈরি হতে দেখে খুশি এলাকার বাসিন্দারা। স্থানীয় এক ব্যবসায়ী অনল চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, "আগের দিন যেভাবে রাস্তা মেরামতি করা হচ্ছিল তাতে হিতে বিপরীত হওয়ার মতই পরিস্থিতি। কারণ এই পাকা রাস্তা ইঁট এবং মোরাম দিয়ে মেরামতি করা হলে কোনোভাবেই তা এক সপ্তাহের বেশি টিকতো না। উপরন্তু যেভাবে প্রতিনিয়ত এই রাস্তার উপর দিয়ে ভারী যানবাহন যাতায়াত করে তাতে এলাকা ধুলোয় ভরে যেত। এরই পরিপ্রেক্ষিতে আমরা সেদিন বিক্ষোভে সামিল হয়ে ছিলাম। এরপর আজ এই কাজ পুনরায় শুরু হওয়ায় আমরা খুশি।" প্রসঙ্গত, দুবরাজপুর শহরের ওপর দিয়ে যাওয়া এই রাস্তাটির অত্যন্ত গুরুত্ব রয়েছে। আসানসোল, রানীগঞ্জ, পাণ্ডবেশ্বর, খয়রাশোল সহ বিভিন্ন জায়গা থেকে যানবাহন এই রাস্তার উপর দিয়ে এসে ১৪ নম্বর জাতীয় সড়কে যায়। পাশাপাশি এই রাস্তাটি অন্যতম গুরুত্ব হল, দুবরাজপুর গ্রামীণ হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে যাওয়ার জন্য রোগী এবং রোগীর আত্মীয়রা এই রাস্তার উপরেই নির্ভরশীল। স্বাভাবিকভাবেই এই গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাটি দীর্ঘদিন ধরে ভালোভাবে মেরামতির দাবি তুলেছিলেন স্থানীয় বাসিন্দারা।
    Published by:Pooja Basu
    First published: