বীরভূম পুলিশের তৎপরতায় উদ্ধার ১৪টি চুরি যাওয়া মোটরবাইক, গ্রেপ্তার ৩

বীরভূম পুলিশের তৎপরতায় উদ্ধার ১৪টি চুরি যাওয়া মোটরবাইক, গ্রেপ্তার ৩

জেলার একাধিক থানায় একাধিক মোটর বাইক চুরির ঘটনায় অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তে নামে বীরভূম জেলা পুলিশ

  • Share this:

    #বীরভূম: বীরভূম জেলা পুলিশের তৎপরতায় বীরভূমের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে শনিবার এবং রবিবার পরপর দু'দিন অভিযান চালিয়ে চুরি যাওয়া ১৪টি বাইক উদ্ধার করা হল। চুরি যাওয়া চোদ্দটি মোটরবাইক উদ্ধারের পাশাপাশি এই ঘটনায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৩ জনকে। যাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে খোঁজ চালানো হচ্ছে এই ঘটনার সাথে আর কেউ যুক্ত রয়েছেন কিনা এবং কোন ও চক্র কাজ করছে কিনা।

    জানা গিয়েছে, জেলার একাধিক থানায় একাধিক মোটর বাইক চুরির ঘটনায় অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তে নামে বীরভূম জেলা পুলিশ। পুলিশ গোপন সূত্রে জানতে পারে, শামীম সেখ নামে এক ব্যক্তি চুরি যাওয়া একটি মোটরবাইক বিক্রি করতে আসছেন। পুলিশের তরফ থেকে হানা দিয়ে ওই ব্যক্তিকে হাতেনাতে গ্রেফতার করা হয়। তারপর তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে এই ঘটনার সাথে যুক্ত আরও দু'জনকে গ্রেফতার করে। পাশাপাশি শনিবার এবং রবিবার দুপুর পর্যন্ত তল্লাশি চালিয়ে বীরভূমের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে চোদ্দটি চুরি যাওয়া মোটরবাইক উদ্ধার করা হয়।

    বীরভূম জেলা পুলিশ সুপার নগেন্দ্র নাথ ত্রিপাঠী রবিবার এই চুরি যাওয়া মোটরবাইক উদ্ধারের ঘটনা দুবরাজপুর থানায় একটি সাংবাদিক বৈঠক করে জানান, "শনিবার এবং রবিবার অভিযান চালিয়ে যেসকল বাইক উদ্ধার করা হয়েছে সেগুলির আনুমানিক মূল্য দশ লক্ষ টাকা। এই ঘটনার সাথে বড় কোনো চক্র কাজ করছে। তবে আন্তঃরাজ্য চক্র জড়িত রয়েছে কিনা এবং আরও কারা কারা যুক্ত রয়েছেন তা আগামী দিনে তদন্তের পরিপ্রেক্ষিতেই বোঝা যাবে। আমাদের পুলিশ সেই তদন্ত শুরু করেছে।"

    এই বিপুল সংখ্যক চুরি যাওয়া মোটরবাইক উদ্ধারের ঘটনায় পুলিশের তরফ থেকে আরও জানানো হয়েছে, চোরাকারবারির সাথে যুক্ত ব্যক্তিরা ওই বাইকগুলি চুরি করার পর বীরভূমের বিভিন্ন প্রান্তে সেগুলি পাঠিয়ে দেয়। তারপর সেগুলিকে গুণমাণের বিচারে কুড়ি থেকে ত্রিশ হাজার টাকায় বিক্রি করতে বলা হয়। বাইকগুলির কাগজ সম্পর্কে তদন্ত করে জানা গিয়েছে, বিক্রির পর কাগজ তৈরি করে দেওয়া হবে বলে আশ্বাসও দেওয়া হয়েছিল। যদিও কাগজ তৈরি করা সম্ভব হয়নি।

    পুলিশ সুপার নগেন্দ্র নাথ ত্রিপাঠী জানিয়েছেন, "আমরা এখনো পর্যন্ত যে সকল বাইকগুলি উদ্ধার করতে পেরেছি সেগুলির আসল মালিকদের খোঁজ খবর নিয়ে তাদের থেকে সঠিক প্রমাণের পরিপ্রেক্ষিতে ওই সকল মোটরবাইকগুলি তাদের হাতে তুলে দেবো। এই কাজ খুব তাড়াতাড়ি করা হবে।"

    মাধব দাস

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published: