• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • Bengla News| Birbhum: ময়ূরাক্ষী এক্সপ্রেস স্পেশাল ট্রেনের যাত্রাপথ বাড়াতেই ক্ষোভ বাড়ছে সিউড়ির বাসিন্দাদের

Bengla News| Birbhum: ময়ূরাক্ষী এক্সপ্রেস স্পেশাল ট্রেনের যাত্রাপথ বাড়াতেই ক্ষোভ বাড়ছে সিউড়ির বাসিন্দাদের

ময়ূরাক্ষী এক্সপ্রেস স্পেশাল ট্রেনের যাত্রাপথ বাড়াতেই ক্ষোভ সিউড়ির বাসিন্দাদের

ময়ূরাক্ষী এক্সপ্রেস স্পেশাল ট্রেনের যাত্রাপথ বাড়াতেই ক্ষোভ সিউড়ির বাসিন্দাদের

ইতিমধ্যেই সিউড়ি (Suri, Birbhum) এবং পার্শ্ববর্তী এলাকার বাসিন্দারা তাদের এই ক্ষোভ উগরে দিচ্ছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।

  • Share this:

    #বীরভূম: 'একেই নেই কোনও ভাল ট্রেন, তারপর আবার গোদের উপর বিষফোঁড়া'। ঠিক এমনটাই বর্তমানে হয়ে দাঁড়িয়েছে বীরভূমের (Birbhum) সদর শহর সিউড়ি এবং তার পার্শ্ববর্তী এলাকার বাসিন্দাদের। অন্ততপক্ষে এলাকার বাসিন্দাদের দাবি এমনটাই। তাদের এমন ক্ষোভের মূলে রয়েছে ময়ূরাক্ষী এক্সপ্রেস স্পেশালের (Mayurakshi Express special) যাত্রাপথ বাড়ানোকে কেন্দ্র করে।

    রেলপথে কলকাতায় কোনও কাজে যাওয়ার ক্ষেত্রে সিউড়ি এবং তার পার্শ্ববর্তী এলাকার বাসিন্দাদের মূল সম্বল হল এই ময়ূরাক্ষী এক্সপ্রেস স্পেশাল। কারণ একমাত্র এই ট্রেনটিই সকালে হাওড়ার উদ্দেশ্যে রওনা দেয় এবং রাতে ফিরে আসে। আগে এই ট্রেনটি হাওড়া (Howrah) থেকে রামপুরহাট (Rampurhat) এবং রামপুরহাট থেকে হাওড়া যাতায়াত করত। বর্তমানে ট্রেনটির যাত্রাপথ বাড়িয়ে করা হয়েছে দুমকা পর্যন্ত। এই ট্রেনটির যাত্রাপথ দুমকা পর্যন্ত করার কারণেই সিউড়ির বাসিন্দাদের ক্ষোভ তৈরি হয়েছে।

    আরও পড়ুন নিম্নচাপের টানা বৃষ্টি, কালীপুজোর আগে বন্যার আতঙ্কে লাভপুরের বাসিন্দারা

    ইতিমধ্যেই সিউড়ি (Suri) এবং পার্শ্ববর্তী এলাকার বাসিন্দারা তাদের এই ক্ষোভ উগরে দিচ্ছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। তাদের ক্ষোভের মূল কারণ হিসাবে সোশ্যাল মিডিয়ায় তারা যা দাবি করেছেন তা হল, 'রামপুরহাট থেকে ট্রেনটি যখন হাওড়ার উদ্দেশ্যে রওনা দিতো তখনই সিউড়ি স্টেশন থেকে ট্রেনে চেপে বসার জায়গা পাওয়া যেত না। এখন দুমকা থেকে ট্রেন আসার কারণে বসার জায়গা তো দূরের কথা পা রাখার জায়গা পাওয়া যাবে না।'

    সোশ্যাল মিডিয়ায় এই নিয়ে ক্ষোভ উগরে দেওয়ার পাশাপাশি সিউড়ির এক সমাজসেবী প্রিয়নীল পাল জানিয়েছেন, "সারাদিনে কলকাতা যাওয়ার ঠিক টাইমে একটাই ট্রেন ছিল, সেটিতেও আমরা আর ভাল করে যেতে পারবো না। কারণ রামপুরহাট (Birbhum) থেকে ট্রেনটিকে দুমকা পর্যন্ত টেনে নিয়ে যাওয়াই যাত্রী সংখ্যা বাড়বে। আগেই যেখানে বসার কোন জায়গা পাওয়া যেত না সেই জায়গায় এখন কি পরিস্থিতি হবে তা ভেবেই ভয় করছে।"

    এর পাশাপাশি তিনি এটাও জানিয়েছেন, "এমনিতেই সিউড়ি থেকে কোন ভাল ট্রেন না থাকার পরেও ট্রেনটিকে এইভাবে টেনে নিয়ে যাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে সিউড়ির রাজনৈতিক-সামাজিক অথবা প্রশাসনিক কাউকেই কোনরকম টু শব্দও করতে দেখা যাচ্ছে না। সিউড়ি এবং পার্শ্ববর্তী এলাকার সর্বস্তরের মানুষদের এই বিষয়ে একটি দাবীদাওয়া ওঠা উচিত নতুন ট্রেন দেওয়ার অথবা সুষ্ঠুভাবে সিউড়ির বাসিন্দাদের কলকাতা যাওয়ার মতো বন্দোবস্ত করার।"

    আরও দেখুন শরতেই শীতের আমেজ, ভারী বর্ষার পর কুয়াশায় মুড়ল শিলিগুড়ি

    ময়ূরাক্ষী এক্সপ্রেস স্পেশলের যাত্রাপথ দুমকা পর্যন্ত করা হলেও সময়সূচির কোন পরিবর্তন হয়নি। তবে যাত্রাপথ বেড়ে যাওয়ার কারণে যাত্রী সংখ্যা যে বিপুল পরিমাণে বাড়বে তা নিয়ে কোনও সংশয় নেই এবং যাত্রী সংখ্যা বাড়লেই বীরভূমের সিউড়ি এবং তার পার্শ্ববর্তী এলাকার বাসিন্দাদের বসার জায়গা পাওয়া নিয়ে অসুবিধার সম্মুখীন হতে হবে তা নিয়েও কোনও সংশয় নেই।

    মাধব দাস

    Published by:Pooja Basu
    First published: