• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • জনতার দরবারে বিধায়ক, জানান সমস্যা, মিলবে সমাধান

জনতার দরবারে বিধায়ক, জানান সমস্যা, মিলবে সমাধান

জনতার দরবারে বিধায়ক, জানান সমস্যা, মিলবে সমাধান

জনতার দরবারে বিধায়ক, জানান সমস্যা, মিলবে সমাধান

বীরভূমে এমন একজন বিধায়কের খোঁজ মিললো যিনি জনতার দরবারে পৌঁছে যাওয়ার জন্য রীতিমতো দিনে দু'দিন করে সময় দিচ্ছেন।

  • Share this:

    মাধব দাস, বীরভূম : জনসাধারণের ভোটে জয় লাভ করে প্রতিষ্ঠিত হওয়া একজন জনপ্রতিনিধির সাক্ষাৎ পাওয়া, ভগবানের সাক্ষাৎ পাওয়ার মতই। অন্ততপক্ষে আমজনতারা এমনটাই অভিযোগ করে থাকেন। আর তার কাছে সমস্যার কথা জানানো, সে তো দূর অস্ত। তবে বীরভূমে এমন একজন বিধায়কের খোঁজ মিললো যিনি জনতার দরবারে পৌঁছে যাওয়ার জন্য রীতিমতো দিনে দু\'দিন করে সময় দিচ্ছেন।

    আমজনতার কথা ভেবে এমন জনতার দরবারে পৌঁছানোর উদ্যোগ নিয়েছেন সিউড়ি বিধানসভার বিধায়ক বিকাশ রায় চৌধুরী। সাধারণ মানুষ যাতে তার সঙ্গে সহজেই সাক্ষাৎ করতে পারেন এবং সহজেই অভাব-অভিযোগ জানাতে পারেন তার জন্য তিনি প্রতি সপ্তাহের শনিবার এবং রবিবার দুদিন সিউড়ির তৃণমূল কার্যালয়ের নির্দিষ্ট ঘরে বসছেন।

    যেকোনো ধরনের সমস্যা নিয়ে তার সঙ্গে দেখা করার জন্য তিনি সপ্তাহের ওই দুই দিন সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ১ টা এবং সন্ধ্যা ৬ টা থেকে সাড়ে ৭ টা পর্যন্ত সময় দিচ্ছেন। এই নির্ধারিত সময়ে সিউড়ি বিধানসভা এলাকার বহু মানুষকে তার কাছে আসতে দেখা যাচ্ছে এবং সমস্যার সমাধানও হচ্ছে। তবে বিকাশ রায় চৌধুরী জানিয়েছেন, 'শনি এবং রবিবার যদি কোনো বিশেষ কর্মসূচি থাকে তাহলে সেই দিন তিনি বসতে পারেন না।'

    বিকাশ রায় চৌধুরী সাধারণ মানুষের অভাব অভিযোগ নিয়ে জানিয়েছেন, "চিকিৎসা সংক্রান্ত অথবা এলাকার কোন সমস্যা সহ অন্যান্য নানান সমস্যা আমরা শুনছি। শুধু শোনা নয়, তার সঙ্গে সঙ্গে যত দ্রুত সম্ভব সেই সমস্যার সমাধান করা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই বহু মানুষ আমাদের এখানে সমস্যার কথা জানিয়ে উপকৃত হয়েছেন।"

    বিধায়কের কাছে সমস্যার কথা জানাতে আসা আলিম শেখ নামের সিউড়ির এক বাসিন্দা জানিয়েছেন, "আগে এইভাবে বিধায়কের সামনাসামনি এসে সমস্যার কথা জানাতে পারতাম না। কিন্তু বর্তমানে উনি যে পদক্ষেপ নিয়েছেন সেই পদক্ষেপ অনুযায়ী নির্ধারিত সময়ে কার্যালয়ের ঘরে বসছেন এবং আমাদের সমস্যার কথা শুনছেন। তারপর সেই সমস্যা যত দ্রুত সম্ভব মিটিয়ে দেওয়ার চেষ্টাও করছেন তিনি।"

    সিউড়ি বিধানসভার বিধায়ক বিকাশ রায় চৌধুরী এমন পদক্ষেপ যেদিন থেকে নিয়েছেন সেদিন থেকেই বহু মানুষকেই চাকরির পোস্টিং সংক্রান্ত, বাইরে চিকিৎসা করাতে যাওয়া সংক্রান্ত, কলকাতা অথবা অন্য কোন জেলার কোন হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে গিয়ে সাহায্য সংক্রান্ত বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে আসতে দেখা যাচ্ছে। আর এই সকল মানুষেরা প্রত্যেকেই দাবি করেছেন, 'বিধায়ককে হাতের কাছে পাওয়ায় তারা খুশি'।

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published: