Home /News /local-18 /
Birbhum: বিদ্যুৎ চুরি ঠেকাতে গিয়ে আক্রান্ত বিদ্যুৎ কর্মী ও আধিকারিকরা

Birbhum: বিদ্যুৎ চুরি ঠেকাতে গিয়ে আক্রান্ত বিদ্যুৎ কর্মী ও আধিকারিকরা

বিদ্যুৎ চুরি ঠেকাতে গিয়ে আক্রান্ত বিদ্যুৎ কর্মী ও আধিকারিকরা

বিদ্যুৎ চুরি ঠেকাতে গিয়ে আক্রান্ত বিদ্যুৎ কর্মী ও আধিকারিকরা

নানান ধরনের কারসাজি অথবা বিদ্যুতের তার থেকে হুকিং করে বিদ্যুৎ চুরির ঘটনা হামেশাই হয়ে থাকে। এই ধরনের বিদ্যুৎ চুরি ঠেকাতে বিদ্যুৎ দ?

  • Share this:

    মাধব দাস, বীরভূম : নানান ধরনের কারসাজি অথবা বিদ্যুতের (Electric) তার থেকে হুকিং করে বিদ্যুৎ (Electric) চুরির ঘটনা হামেশাই হয়ে থাকে। এই ধরনের বিদ্যুৎ (Electric) চুরি ঠেকাতে বিদ্যুৎ দপ্তরের তরফ থেকে বিভিন্ন সময় অভিযান চালানো হয়। এমনই এক অভিযান চালাতে গিয়ে বিদ্যুৎ দপ্তরের কর্মী সহ আধিকারিকরা আক্রান্ত হলেন শান্তিনিকেতনে (Shantiniketan)।

    বিদ্যুৎ চুরির এমন ঘটনা ঠেকাতে বিদ্যুৎ আধিকারিক এবং কর্মীরা শান্তিনিকেতন থানার অন্তর্গত রূপপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের মনমোহনপুর গ্রামে বুধবার দুপুরবেলা হানা দেন। মূলত অসাধু উপায়ে বাড়িতে বাড়িতে পৌঁছে যাচ্ছে বিদ্যুৎ এমন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতেই এই অভিযান। তবে এই অভিযানে গিয়ে পাঁচ জন আক্রান্ত হওয়ার পাশাপাশি তাদের দুটি গাড়ি ভাঙচুর করার অভিযোগ উঠল গ্রামবাসীদের বিরুদ্ধে। ঘটনায় আহত বিদ্যুৎ কর্মীরা কোনোক্রমে ওই গ্রাম থেকে বের হয়ে বোলপুর প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে পৌঁছান চিকিৎসার জন্য। সেখানেই তাদের চিকিৎসা করানো হয় এবং এই ঘটনার অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে শান্তিনিকেতন থানার পুলিশ বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য তদন্ত শুরু করেছে।

    জানা গিয়েছে, এদিন শান্তিনিকেতন শাখার বিদ্যুৎ দপ্তরের কর্মীদের এই অভিযান চালানোর সময় হঠাৎ ওই গ্রামের একাংশ তাদের ওপর চড়াও হয়। গ্রামবাসীদের আক্রমণে এবং তাদের ছোঁড়া ইটের আঘাতে আহত হন বিদ্যুৎ দফতরের সহকারি ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল গফফর সহ পাঁচ জন। আক্রমণের এমন ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় শান্তিনিকেতন থানার পুলিশ এবং শান্তিনিকেতন শাখার বিদ্যুৎ দপ্তরের অন্যান্য কর্মীরা। তারাই তাদের উদ্ধার করেন।

    ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে শান্তিনিকেতন শাখার বিদ্যুৎকর্মী সৌম্য পাল জানিয়েছেন, "আমরা প্রতিদিনের মত আজও চেকিংয়ে গিয়েছিলাম। ওই গ্রামে মিটারের কিছু কারচুপি ছিল। সেটাই আমরা চেক করছিলাম। ইতিমধ্যে হঠাৎ গ্রামবাসীদের একাংশ আমাদের উপর চড়াও হয়। গ্রামবাসীদের এই আক্রমণে কমবেশি সবাই আহত হয়েছি। আমাদের অন্যান্য কর্মীরা এসে আমাদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যান।"

    এই ঘটনায় আক্রান্ত শান্তিনিকেতন বিদ্যুৎ দপ্তর সাব ডিভিশনের অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার আবদুল গফফর জানিয়েছেন, "ওই গ্রামের যে বাড়িতে আমরা অভিযান চালিয়ে ছিলাম সেই বাড়িতে ৪০ শতাংশের বেশি বিদ্যুৎ চুরি আমাদের নজরে। দোতলা বাড়ি, অজস্র সদস্য অথচ তিন মাসে ৩৫ ইউনিট রিডিং এসেছে। এছাড়াও ওই গ্রামের একাধিক বাড়িতে এর আগেও এমন বিদ্যুৎ চুরির ঘটনা সামনে এসেছে এবং অভিযোগ দায়ের হয়েছে।"

    Published by:Soumabrata Ghosh
    First published:

    Tags: Birbhum

    পরবর্তী খবর