Home /News /local-18 /
Alipurduar News- হাতি-মানুষের সংঘাত রুখতে মৌমাছি প্রতিপালনকে হাতিয়ার করছে নূরপুরবাসী

Alipurduar News- হাতি-মানুষের সংঘাত রুখতে মৌমাছি প্রতিপালনকে হাতিয়ার করছে নূরপুরবাসী

মধু [object Object]

মানুষের মতোই মৌমাছির হুলকে ভয় পায় হাতিও। তাই মৌচাকের গন্ধ বা মৌমাছির গুঞ্জনও নাকি গজরাজের বিলকুল নাপসন্দ! এখন হাতির হানা রুখতে মৌ চাষ শুরু হয় বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্প লাগোয়ো এই নূরপুর গ্রামে

  • Share this:

    #আলিপুরদুয়ার: আলিপুরদুয়ার-২ ব্লকের ভূটান পাহাড়ের পাদদেশে অবস্থিত জঙ্গল ঘেরা নূরপুর গ্রাম। মাত্র এক বছর আগেই গ্রামের চিত্রটা ছিল একেবারেই অন্যরকম। রাত নামতেই হাতির হানার ভয়ে সিঁটিয়ে থাকতেন বাসিন্দারা। চোখের সামনে অসহায়ের মতো ফসলের ক্ষতিবাড়িঘর ও মানুষের প্রাণ উজার হতে দেখাই রোজনামচা হয়ে উঠেছিল তাঁদের। দিনের পর দিন হাতির হানায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিল গ্রামটিএরপরদক্ষিণ আফ্রিকার মত হাতির হানা রুখতে মৌ চাষ শুরু হয় বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্প লাগোয়ো এই নূরপুর গ্রামে

    জানা যায়মানুষের মতোই মৌমাছির হুলকে ভয় পায় হাতিও। হাতিদের শ্রবণ এবং ঘ্রাণশক্তি খুব তীক্ষ্ণ। তাই মৌচাকের গন্ধ বা মৌমাছির গুঞ্জনও নাকি গজরাজের বিলকুল নাপসন্দ! প্রসঙ্গত২০১৫ থেকে ২০২০ সালের মধ্যেহাতি ও মানুষের সংঘাতের কারণে উত্তরবঙ্গে ৪৩৯ জন মারা গেছে। তথ্য অনুযায়ী২০১৯ সালের শেষ আদম শুমারি অনুসারেউত্তরবঙ্গে প্রায় ৭০০টি হাতি রয়েছে। ওড়িশার পরে এই রাজ্যে মানুষ-হাতি সংঘর্ষের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ঘটনা রয়েছে।

    উত্তরবঙ্গ কৃষি বিশ্ব বিদ্যালয়ের পরামর্শে এবং কৃষি দফতরের সহায়তায় গ্রামে শুরু হয় মধু চাষ। ক্রমশ বদলাতে থাকে গ্রামের সার্বিক পরিস্থিতি। মধু উৎপাদনের মধ্য দিয়ে বাড়তে থাকে বিকল্প কর্মসংস্থানও। মধু চাষের মধ্য দিয়ে নূরপুরের সার্বিক উন্নয়নের বাস্তবায়নের লক্ষ্যে পাশে দাঁড়ায় জেলা প্রশাসন। মধু চাষের মধ্য দিয়ে নূরপুরকে মডেল গ্রাম তৈরির লক্ষে এবার বরাদ্দ হলো ২৭ লক্ষ টাকা। জেলা প্রশাসন মধু চাষের জন্য ইতিমধ্যেই "উৎ শ্রীপ্রকল্পের মধ্য দিয়ে উসাহিদের মৌ চাষের প্রশিক্ষণ দেওয়ার কাজ শুরু করেছে। যাবতীয় সাহায্য করার লক্ষে বিভিন্ন যন্ত্রপাতি তুলে দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে বলে জানা যায়।

    মধু চাষের জন্য স্বনির্ভর গোষ্ঠীদের হাতে সম্প্রতি প্রায় ৩০০ মধুর বাক্সএকই সাথে ৪ টি মধু নিষ্কাশনের মেশিন সহ অন্যান্য সামগ্রী তুলে দেওয়া হয় জেলা প্রশাসনের তরফ থেকে। হাতি মানুষের সহাবস্থানকে আরও পোক্ত করতে আলিপুরদুয়ার জেলা প্রশাসনের এই উদ্যোগ অচিরেই নূরপুর গ্রামে কৃষি বিপ্লব ঘটিয়ে আর্থিক অনটনের নিবারণে সফল হয়ে উঠবে বলে মত জেলার পরিবেশবিদদের ।

    Dependra Nath Lahiri
    First published:

    Tags: Alipurduar, Elephant Attack

    পরবর্তী খবর