• হোম
  • »
  • খবর
  • »
  • local-18
  • »
  • AGITATIONS FOR NO VACCINE NOTICE AT DURGAPUR HOSPITAL SR

লম্বা লাইনে দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা, তারপরেও শুনতে হচ্ছে ‘নো ভ্যাকসিন’! ব্যাপক বিক্ষোভ দুর্গাপুরে

প্রতীকী চিত্র ।

প্রতিদিনই স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলিতে ভ্যাকসিন নেওয়ার জন্য মানুষের লম্বা লাইন দেখা যাচ্ছে। তাঁদের অনেকে অভিযোগ করছেন, দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকার পরও ভ্যাকসিন পাওয়া যাচ্ছে না।

  • Share this:

    Nayan Ghosh

    #পশ্চিম বর্ধমান: করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার পর থেকে ভ্যাকসিনের চাহিদা তুঙ্গে। অথচ এখনও সিংহভাগ মানুষ ভ্যাকসিন পাননি। ১৮ থেকে ৪৫ বছর বয়সীদের ভ্যাকসিন দেওয়ার কথা ঘোষণা করা হলেও, এখনও পুরোপুরি ভাবে তা রাজ্যের সব জায়গায় শুরু করা যায়নি। পশ্চিম বর্ধমানের চেহারাটাও আলাদা নয়। কিন্তু প্রতিদিনই স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলিতে ভ্যাকসিন নেওয়ার জন্য মানুষের লম্বা লাইন দেখা যাচ্ছে। তাঁদের অনেকে অভিযোগ করছেন, দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকার পরও ভ্যাকসিন পাওয়া যাচ্ছে না। আর এমন ঘটনা থেকেই উঠছে ভ্যাকসিন নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ। দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালে ভ্যাকসিন দেওয়াকে কেন্দ্র করে দুর্নীতির অভিযোগে উত্তাল হয়েছে।

    ভ্যাকসিন নিয়ে চূড়ান্ত দুর্নীতি চলছে, এই অভিযোগকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হল দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতাল চত্বরে। এ দিন সকালে এই ঘটনার জেরে উত্তেজিত গ্রহীতারা হাসপাতালে ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ বন্ধ করে দেয়। তাঁরা একযোগে হাসপাতাল সুপার, দুর্গাপুরের এক ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট, ও স্থানীয় কাউন্সিলারকে ঘিরে ধরে ব্যাপক ক্ষোভ প্রকাশ করতে থাকে। পরিস্থিতির সামাল দিতে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে পুলিশ। কিন্তু উত্তেজিত গ্রহীতারা কিছুতেই কোনও কথা শুনতে রাজি ছিল না। গ্রহীতাদের অভিযোগ ভোর রাত থেকে লাইনে দাঁড়ানোর পর সকাল দশটায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছেন সাধারণ মানুষের জন্য ভ্যাকসিন আজ দেওয়া যাবে না। এরপরই পরিস্থিতি আরও উত্তপ্ত হয়ে ওঠে, শুরু হয় দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালের ভ্যাকসিন সেন্টারের সামনে গ্রহীতাদের তুমুল বিক্ষোভ, বন্ধ করে দেওয়া হয় ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ।

    গ্রহীতাদের অভিযোগ, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছে ভ্যাকসিন নেই অথচ ভ্যাকসিন নেওয়ার জন্য ভ্যাকসিন সেন্টারের সামনে কুপন নিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন বেশ কিছু মানুষ। আর এতেই তৈরী হচ্ছে জটিলতা। এমনটাই অভিযোগ উত্তেজিত গ্রহীতাদের। দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালের সামনে ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ বন্ধ করে দিয়ে দীর্ঘক্ষণ তুমুল বিক্ষোভ করেছেন গ্রহীতারা। সমস্যার সমাধান না হওয়া পর্যন্ত কোনও ভাবেই ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ শুরু করতে দেবেন না বলে সাফ জানিয়ে দেন গ্রহীতারা। যদিও পরে পুলিশের উদ্যোগে উত্তেজিত জনতাকে শান্ত করা হয় এবং বিক্ষোভ হটানো হয়।

    Published by:Simli Raha
    First published: