• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • A SCHOOL TEACHER FROM TAMLUK DONATED 50 THOUSAND RUPEES TO CM RELIEF FUND SDG

করোনা অতিমারীর আবহে মানবিকতার নজির তমলুকের প্রাথমিক স্কুল শিক্ষকের

তমলুকের আলাশুলি গোরাচাঁদ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অরূপ ভৌমিক তার বেতনের ৫০ হাজার টাকা মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে করোনা খাতে ব্যয় করার জন্য তুলে দেন।

তমলুকের আলাশুলি গোরাচাঁদ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অরূপ ভৌমিক তার বেতনের ৫০ হাজার টাকা মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে করোনা খাতে ব্যয় করার জন্য তুলে দেন।

  • Share this:

    #তমলুক: করোনা মহামারী বদলে দিয়েছে মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রার প্রবাহ। মহামারীর প্রকোপে সাধারণ মানুষ দিশেহারা। ভারতবর্ষে জুড়ে চলছে করোনা মহামারীর  দ্বিতীয় ঢেউ। বর্তমানের সংক্রমনের গ্রাফ অনেকটাই কম। বিজ্ঞানীরা আশঙ্কা করছেন ভারতবর্ষে জুড়ে করোনা সংক্রমনের তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার প্রবল সম্ভাবনা। এমতাবস্থায় ভ্যাক্সিনেশনই একমাত্র উপায়। করোনা মহামারীর জেরে বন্ধ পঠন-পাঠন। ২০২০ সালের মার্চের শেষ দিক থেকে আজ পর্যন্ত স্কুলের মুখ দেখেনি ছাত্র-ছাত্রীরা। মাঝে এ রাজ্যে কিছুদিনের জন্য নবম ও দশম একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণীর ক্লাস শুরু হয়েছিল। কিন্তু ১৬ মাসের বেশি সময় ধরে বন্ধ প্রাথমিক বিদ্যালয়।

    বিদ্যালয় বন্ধ শিক্ষকেরা বাড়িতে বসে পাচ্ছেন বেতন। এ নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুক-সহ অন্যান্য জায়গায় ব্যঙ্গ বিদ্রুপের শিকার হচ্ছেন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষিকাগণ। এরকম পরিস্থিতিতে মানবিকতার অনন্য নজির সৃষ্টি করলেন তমলুকের এক প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষক। তমলুকের আলাশুলি গোরাচাঁদ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অরূপ ভৌমিক তার বেতনের ৫০ হাজার টাকা মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে করোনা খাতে ব্যয় করার জন্য তুলে দেন।

    করোনা মহামারীর কারণে প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ ১৬ মাস। স্কুলে না গিয়ে বাড়িতে বসে বেতন নিতে খারাপ লাগছিল অরূপ বাবুর। কোভিড আক্রান্তদের পাশে থাকতে তার এক মাসের বেতনের ৫০ হাজার টাকা কোভিড আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য মুখ্যমন্ত্রীর ত্রান তহবিলে জমা দিলেন পূর্ব মেদিনীপুর জেলার জেলাশাসক পূর্নেন্দু মাজির হাত দিয়ে। সেই সঙ্গে জেলাশাসকের হতে তুলে দিলেন ১০টি অক্সিমিটারও। শুধু করোনা আবহে এই ত্রাণ নয়।  বাড়ির আশেপাশে যে যখন বিপদে পড়েছেন, সাহায্যের হাত তিনি বাড়িয়ে দিয়েছেন। অরূপ বাবু জানান বিবেকের তাড়নায় এই অতিমারিতে তিনি কোভিড আক্রান্তদের পাশে দাঁড়াতে এই পদক্ষেপ নিয়েছেন। অরূপ বাবুর এই পদক্ষেপে খুশি জেলা শাসক। জেলাশাসক পূর্ণেন্দু কুমার মাঝি বলেন, "উনি একজন সৎ হৃদয়বান। ওনার এতটাই সৎ ভালো কাজ করার ইচ্ছা যে এই অতিমারির সময়ে নিজের বেতনের টাকা করোনা আক্রান্ত রোগীর সেবার জন্য দান করেছেন। উনার এই উদ্যোগ প্রশংসনীয়। এই উদ্যোগ আরও অন্য জনকে উদ্বুদ্ধ করবে এরকম কাজে এগিয়ে আসার জন্য।"

    Published by:Shubhagata Dey
    First published: