• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • Work from Home : কাটবে একঘেয়েমি, মন বসবে কাজে! ওয়ার্ক ফ্রম হোমে কাজের জায়গায় কেমন আলো দরকার?

Work from Home : কাটবে একঘেয়েমি, মন বসবে কাজে! ওয়ার্ক ফ্রম হোমে কাজের জায়গায় কেমন আলো দরকার?

জানালার পাশে বা উল্টোদিকে বসা যেতে পারে

জানালার পাশে বা উল্টোদিকে বসা যেতে পারে

Work from Home : জেনে নেওয়া যাক ওয়ার্ক ফ্রম হোমে কী ধরনের লাইটের ব্যবহার করা উচিত, কী ধরনের নয় (proper arrangement of light in work form home)!

  • Share this:

ওয়ার্ক ফ্রম হোমের (Work from Home) একাধিক ভাল দিক থাকলেও একাধিক খারাপ দিকও রয়েছে। যার মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হল নিজেকে ফোকাসড রাখা। তবে, নিজের বাড়িতেই যদি একটা জায়গা বেছে অফিসের মতো করে কাজ করা যায়, তা হলে এই সমস্যা কিছুটা হ্রাস হতে পারে। অফিসের পরিবেশ তৈরির জন্য বাইরের আওয়াজ থেকে দূরে থাকা, মনোযোগের সঙ্গে লাইটের ব্যবহার গুরুত্বপূর্ণ। সঠিক লাইটের ব্যবহারে চোখের সমস্যাও কম হয়। জেনে নেওয়া যাক কী ধরনের লাইটের ব্যবহার করা উচিত, কী ধরনের নয় (proper arrangement of light in work form home)!

কী কী করা যেতে পারে-

দিনের আলোর ব্যবহার

কৃত্রিম আলোর ব্যবহারে অনেক সময় বিরক্তি লাগতে পারে। সারাদিন কৃত্রিম আলোর নিচে থাকতে থাকতে একঘেয়েও লাগতে পারে। তাই কৃত্রিম আলোর ব্যবহারের পরিবর্তে প্রথমেই প্রাকৃতিক আলো আসে এমন জায়গায় হোম অফিস তৈরি করতে হবে। এমন জায়গায় কাজ করতে বসতে হবে, যেখানে দিনের আলো, রোদ ভালো করে আসে এবং হাওয়া-বাতাস খেলে। সূর্যের আলো এনার্জি বাড়াতে সাহায্য করে এবং ফোকাসডও রাখে। তাই জানালার পাশে বা উল্টোদিকে বসা যেতে পারে।

টাস্ক লাইটিং

টেবিল ল্যাম্প বা ফোকাস কোনও লাইটিং ডেস্কের উপর থাকা দরকার। LED ল্যাম্প বা কোনও ডেস্ক ল্যাম্প এক্ষেত্রে ব্যবহার করা যেতে পারে। যাতে ডেস্কে আলোর কোনও ঘাটতি না থাকে। পাশাপাশি লাইট বাড়ানো ও কমানোর ব্যবস্থা থাকতে হবে, যাতে প্রয়োজন মতো তা বাড়ানো-কমানো যেতে পারে।

বাড়ির রঙের সঙ্গে ম্যাচ করে লাইট

কাজের ক্ষেত্রে সাধারণত নীলাভ সাদা লাইট লাগালে ভাল। এই লাইট কাজে অনেক বেশি কাজের প্রতি মনোনিবেশ করতে সাহায্য করবে। ৪০০০ টাকার মধ্যে ভাল ব্র্যান্ডের এমন লাইট পাওয়া যেতে পারে। এর পাশাপাশি বাড়ির রঙ ও কারুকাজের সঙ্গে ম্যাচ করে যে কোনও রঙের লাইট লাগানো যেতে পারে। তাতে দেখতেও সুন্দর লাগে, কাজও হয়।

আরও পড়ুন : এখন থেকেই এভাবে চুলের যত্ন নিন, শীতেও চুল থাকবে মোলায়েম

ভাল লাইটিংয়ে খরচ

বাড়িতে কাজ চলছে অনেকেরই প্রায় ২ বছর ধরে, আরও কত দিন এমন চলবে তার ঠিক নেই। ফলে অনেকেই বাড়িতে অফিসের সেট আপ রয়েছে। এক্ষেত্রে অফিসের সেট আপের সঙ্গে মানানসই আলোর ব্যবহার প্রয়োজন। ভালো আলো এবং সঠিক জায়গায় আলোর ব্যবহার বাড়ির কোনও অংশেও কাজের পরিবেশ তৈরি করে দিতে পারে। তাই সাধ্যের মধ্যে এদিকে বিনিয়োগ করাই উচিত।

কী কী করা উচিত নয়-

মাথার উপরে কোনও স্পট লাইট লাগানো

দেখা গেল, ডেস্ক যেখানে তৈরি করা হবে, সেখানে মাথার উপর আলো পড়তে পারে। সেক্ষেত্রে জায়গা পরিবর্তন করা ভালো কারণ মাথার উপর স্পটলাইট বা আলো মাথার উপর পড়ে তার ছায়া তৈরি করতে পারে যা ডেস্কটপে বা ল্যাপটপে পড়লে কাজে সমস্যা হতে পারে। পাশাপাশি মাথার উপরে আলোর জন্য অনেক সময় অস্বস্তিও হতে পারে।

আরও পড়ুন : বাড়তি ওজন দ্রুত কমাতে কিছু সহজ নিয়ম

ফ্লুরোওসেন্ট রঙের আলোর ব্যবহার

ফ্লুরোওসেন্ট আলো চোখের ক্ষতি করতে পারে। মাইগ্রেনের সমস্যা বাড়াতে পারে। ফলে তার প্রভাব কাজে পড়ে। এমন আলো ব্যবহার করা উচিত নয়। ফলে আলোর রঙ দেখেশুনে বাছাই করতে হবে।

সঠিক লাইটের অভাব

কাজের জায়গায় কম আলো থাকলে কাজে সমস্যা হতে পারে। বিরক্তি আসতে পারে। কাজে মনোযোগ নাও আসতে পারে। পাশাপাশি ঘরের আলো কম থাকলে এবং ডেস্কটপ বা ল্যাপটপের আলো বেশি থাকলে তাও সমস্যা তৈরি করতে পারে। তাই কাজের জায়গায় উজ্জ্বল আলোর দরকার। যাতে চোখে সমস্যা না হয়, চোখের উপর চাপ না পড়ে।

Published by:Arpita Roy Chowdhury
First published: