WhiteHat Jr: তৈরি করবে সুরের আকাশের স্টার, আপনার শিশুসন্তানও বাঁধতে পারবে নতুন গান!

Representational Image

আশা করা যায়, এবার হয়তো খুদে পড়ুয়ারা নিজেরাই সুর বানিয়ে একটা গোটা অ্যালবাম তৈরি করে দেখাবে। ঘরে ঘরে তেরি হবে সুরকার ও সঙ্গীত বিশারদ।

  • Share this:

কলকাতা: অনেক বাবা-মা নিজের সন্তানকে সুরের আকাশের স্টার বানাতে চান। কিন্তু ভালো তালিম ও পরিস্থিতির অভাব অনেক সময় বাধা হয়ে দাঁড়ায়। করোনা কাঁটায় আপাতত শিকেয় উঠেছে শিক্ষা ব্যবস্থা। গত একবছর ধরে বন্ধ রয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলি। পিছিয়ে চলেছে বোর্ডের পরীক্ষা। বাড়ি বসে অনলাইন ক্লাসই এখন ভরসা। পড়াশোনার পরেও অনেক সৃজনশীল শিক্ষা থাকে যা শিশু মন থেকেই নাড়া দেয়। যেমন সঙ্গীত শিল্পী ও তার সঙ্গে যুক্ত বাদ্য যন্ত্রের শিক্ষা। আজকাল বহু পড়ুয়া ছোট থেকেই এই সবে পটু, কেউ কেউ তো ছোট বয়সেই বানিয়ে ফেলছে সুপার হিট মিউজিক। তবে এই সবের জন্য ভালো তালিমের প্রয়োজন রয়েছ। যা করোনা পরিস্থিতিতে অনেকটা বাধা সৃষ্টি করেছে। তবে হোয়াইটহ্যাট জুনিয়র (WhiteHat Jr) নামের এই সংস্থা করোনা পরিস্থিতেও পিছিয়ে নেই। তাদের উন্নত প্রযুক্তির অনলাইন ক্লাস ও অভিজ্ঞ শিক্ষকদের দ্বারা গড়ে তুলছে বহু খুদে পড়ুয়ার ভবিষ্যৎ।

এই সংস্থা অল্প সময়ের মধ্যেই ছোটদের অনলাইনে কোডিং-এর মাধ্যমে শিক্ষা প্রদান করে সাফল্যের সঙ্গে নিজের পরিচিতি বানিয়েছে। উন্নত যুগের টেকনোলজির দ্বারা কোডিং পদ্ধতি ব্যবহার করে বাচ্চাদের টেকনিক্যাল জ্ঞান উন্নত করতে সাহায্য করে হোয়াইটহ্যাট জুনিয়র। যার ফলে বহু পড়ুয়া ছোট বয়সেই নানা ধরনের মোবাইল বা ডেস্কটপ অ্যাপলিকেশন বানিয়ে ফেলার দক্ষতা অর্জন করে ফেলে। হোয়াইটহ্যাট কর্তৃপক্ষ ঘোষণা করেছে এবার তারা কোডিং পদ্ধতি ব্যবহার করে বাচ্চাদের সঙ্গীত শিক্ষা দেবে। হোয়াইটহ্যাট সিদ্ধান্ত নিয়েছে সঙ্গীত শিক্ষাকে মূলধারার শিক্ষা করে তুলবে। বিশ্বের বৃহত্তম অনলাইন লাইভ ওয়ান-ওন-ওয়ান লার্নিং প্ল্যাটফর্মগুলির মধ্যে ৮.৫ মিলিয়নেরও বেশি লাইভ ক্লাস পরিচালনা করেছে এই সংস্থা। হোয়াইটহ্যাট জুনিয়র তাই এবার অনলাইনে পিয়ানো এবং গিটার বাজানোর শিক্ষা প্রদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

আন্তর্জাতিক বাজারে সর্বাধিক পছন্দের দুটি সঙ্গীত যন্ত্র গিটার এবং পিয়ানো বেছে নিয়েছে কারণ এই শিক্ষার চাহিদা রয়েছে বিশ্ব দরবারে। হোয়াইটহ্যাট জুনিয়রের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও করণ বাজাজ (Karan Bajaj) বলেছেন “একাধিক গবেষণায় দেখা গিয়েছে সঙ্গীত শিশু মনের বিকাশের সমস্ত ক্ষেত্রকে বিকোশিত করে। শিক্ষাগত উন্নতির থেকে শুরু করে আত্মমর্যাদা বিকাশে সহায়ক ভূমিকা পালন করে। আগে আমাদের সংস্থা কোডিং-এর মাধ্যমে বাচ্চাদের নিজস্ব ডিজিটাল পণ্য তৈরি করতে শিখিয়েছে, যেমন অ্যানিমেশন, গেমস এবং অ্যাপ্লিকেশন, তাই এবার একই পদ্ধতিতে সঙ্গীত শিক্ষাকে প্রাধান্য দেওয়া জরুরি মনে করা হয়েছে”।

আশা করা যায়, এবার হয়তো খুদে পড়ুয়ারা নিজেরাই সুর বানিয়ে একটা গোটা অ্যালবাম তৈরি করে দেখাবে। ঘরে ঘরে তেরি হবে সুরকার ও সঙ্গীত বিশারদ।

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: