Home /News /life-style /
Sugar And Health Hazzards: অতিরিক্ত চিনি খান ? সর্বনাশ! এই খাবারগুলো আপনাকে বাঁচাতে পারে

Sugar And Health Hazzards: অতিরিক্ত চিনি খান ? সর্বনাশ! এই খাবারগুলো আপনাকে বাঁচাতে পারে

যা বেশি মাত্রায় খেলে ডায়াবিটিস, ওজন বৃদ্ধি-সহ নানা রোগ শরীরে বাসা বাঁধতে পারে।

  • Share this:

#কলকাতা: চোখের সামনে চকোলেট, মিষ্টি দেখলে কে আর লোভ সামলাতে পারে! কিন্তু এভাবেই শরীরে বিষ ঢুকছে। আসলে এসব খাবারে আছে অতিরিক্ত চিনি। আর চিনিতে আছে কার্বোহাইড্রেট। যা খাওয়ার পর শরীরে গিয়ে গ্লুকোজ আর ফ্রুক্টোজের মতো সাধারণ শর্করাতে ভেঙে যায়। প্রচুর প্রক্রিয়াজাত খাবারেও অতিরিক্ত চিনি থাকে। যা বেশি মাত্রায় খেলে ডায়াবেটিস, ওজন বৃদ্ধি-সহ নানা রোগ শরীরে বাসা বাঁধতে পারে।

বর্তমান সময়ে, বেশিরভাগ মানুষই ফাস্ট ফুডে আসক্ত। তবে অনেকেই জানেন না, এই সব খাবারের স্বাদ বাড়াতে চিনি যোগ করা হয়। শুধু তাই নয়, এমন অনেক খাবার রয়েছে যাতে অতিরিক্ত চিনি থাকার কথা কল্পনাও করতে পারবেন না সাধারণ মানুষ। যেমন পিনাট বাটার, টম্যাটো কেচাপ এমনকী রুটিও। সমস্ত বেকারি পণ্যেই প্রচুর পরিমাণ চিনি থাকে। তাই বাইরে থেকে খাবার কেনার আগে তাতে কি ব্যবহার হয়েছে, সেটা দেখে নেওয়া জরুরি।

আরও পড়ুন: বিরাট কোহলির মতো দাড়ি পেতে চান? মেনে চলুন কয়েকটা টিপস

সারাদিনে শরীরে কতটা চিনি প্রয়োজন?

একজন সম্পূর্ণ সুস্থ মানুষের ক্ষেত্রে প্রতিদিন খাবারে থেকে আসা ক্যালোরির ১০ শতাংশ চিনি থাকতে পারে, এর বেশি নয়। যেমন ধরা যাক, কেউ যদি সারা দিনে ২০০০ ক্যালোরির খাবার খান, তার মধ্যে ৩৬ গ্রাম বা ৯ চা চামচ চিনি তিনি সারাদিনে খেতে পারেন। অর্থাৎ ১৫০ ক্যালোরির বেশি নয়। মহিলাদের ক্ষেত্রে সারাদিনে ৬ চা চামচ বা ২৪ গ্রাম চিনি খাওয়ার কথা বলছেন বিশেষজ্ঞরা। যা খুব খুব বেশি হলে ১০০ ক্যালরি। কিন্তু বিভিন্নগগ সমীক্ষা থেকে জানা গেছে এই মাত্রা খুব কম মানুষই মানেন। ১০–১৫ শতাংশ তো দূর, কখনও তা ২৫ শতাংশও ছাড়িয়ে যায়।

এড়াতে হবে অ্যাডেড সুগার

প্রসেসড খাবারেও থাকে প্রচুর চিনি, তা সে খেতে মিষ্টি হোক বা না হোক। যেমন, কর্নফ্লেক্স পাউরুটি, বিস্কুট, মেয়োনিজ ও অন্যান্য স্যালাড ড্রেসিং ইত্যাদি। প্যাকেটের ফলের রস, বিয়ার, সস, কেচাপ, ক্যান্ডি, নরম পানীয় ইত্যাদিরও এক হাল। তাই যারা অতিরিক্ত বাইরের খাবার খান, তাঁদের সতর্ক হতে হবে।

অতিরিক্ত চিনি খেলে শরীরের কি ক্ষতি হতে পারে?

চিনি বা মিষ্টি জাতীয় খাবার অতিরিক্ত খেলে অন্ত্রে তৈরি হয় খারাপ ব্যাকটেরিয়া। ওবেসিটি বা স্থুলতার ঝুঁকি তো বাড়েই। সঙ্গে হৃদরোগ, ডায়াবেটিস এবং স্মৃতিনাশ বা ডাইমেনশিয়া হওয়ার আশঙ্কা থাকে।

অতিরিক্ত চিনি খেলে যে খাবার খেতেই হবে

প্রতিদিন আমরা যে খাবার খাই তার মধ্যেই চিনি থাকে। ফলে অজান্তেই আমরা অনেকটা চিনি প্রতিদিন গ্রহণ করছি। এখন অতিরিক্ত চিনি খেয়ে ফেললে শরীরে ভারসাম্য আনতে যে খাবারগুলি খেতে হবে, তার একটা তালিকা এখানে দেওয়া হল–

প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার খুব বেশি চিনি খেয়ে ফেললে রক্তে শর্করার পরিমাণ বাড়বে। এই সময় হজম হতে সময় নেয় এমন প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার খেতে হবে। যেমন সিদ্ধ ডিম, বাদাম-মাখন, পেস্তা ইত্যাদি।

ফাইবার সমৃদ্ধ খাবার আপেল, কাঁচা শাকসবজি, মটরশুটি, মসুর ডালে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার আছে। যা রক্তের শর্করার পরিমাণকে স্থিতিশীল করতে সাহায্য করবে।

প্রোবায়োটিক খাবার গবেষকরা বলেছেন, মানুষের অন্ত্রে ভালো ও খারাপ উভয় ব্যাকটেরিয়াই থাকে। ভালো ব্যাকটেরিয়ার কাজ হলো খাবার পরিপাকে সহায়তা করা। বাইরের খাবার, তেল বা মসলাদার খাবার, চিনি ও মিষ্টি জাতীয় খাবার খেলে অন্ত্রে খারাপ ব্যাকটেরিয়ার জন্ম হয়। এগুলো খাদ্যনালীতে বিভিন্ন রোগ সৃষ্টি করে। বিশেষ করে অতিরিক্ত চিনি বা মিষ্টি জাতীয় খাবার খেলে প্যারাব্যাকটেরয়েডের জন্ম হয়। এরা ধীরে ধীরে সংখ্যায় বাড়তে থাকে। আর যেগুলো আগে থেকে অন্ত্রে অবস্থান করে সেগুলো চরিত্রে পরিবর্তন আনে। তাই অতিরিক্ত চিনি খেয়ে ফেললে দই, কম্বুচা, কালচার্ড কটেজ পনিরের মতো কিছু প্রোবায়োটিক খাবার খেতে হবে। যা শরীরকে স্বস্তি দেবে।

First published:

Tags: Health Tips, Sugar

পরবর্তী খবর