পুরুষদেরও কি মেনোপজ হয় ? যৌনতায় বিরক্তি ! অবসাদ ! মুক্তির উপায় জানুন

পুরুষদেরও কি মেনোপজ হয় ? যৌনতায় বিরক্তি ! অবসাদ ! মুক্তির উপায় জানুন

photo source collected

একজন পুরুষের শরীরে এই হরমোনের মাত্রা কমে যাওয়া বা তৈরি হওয়া বন্ধ হয়ে যাওয়াটা শারীরিক সমস্যা।

  • Share this:

    মেনোপজ শুধু মেয়েদের হয় ? নাকি ছেলেদেরও হতে পারে? চিকিৎসকরা জানিয়েছেন ছেলেদেরও হয় মেনোপজ। তবে তা এনড্রপজ নামে পরিচিত। একটা বয়সের পর ছেলেদের খুব বেশি করে মুড অফ, মাথা গরম, ক্লান্তি , অবসাদ ঘিরে ধরে। এগুলো সাধারণত মেনোপজের সময় বেশি হতে দেখা যায়। যার জন্য প্রধাণ কারণ টেস্টোস্টেরন হরমোন। এই হরমোন পুরুষকে শারীরিক ও মানসিকভাবে সতেজ রাখে। কিন্তু বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শরীরের ভিতরে হরমোন টেস্টোস্টেরনের পরিবর্তন ঘটতে থাকে। একজন পুরুষের শরীরে এই হরমোনের মাত্রা কমে যাওয়া বা তৈরি হওয়া বন্ধ হয়ে যাওয়াটা শারীরিক সমস্যা। এর ফলে শুধু যৌনক্ষমতা কমে যায় তা নয়, শরীরে ক্ষতিকর প্রভাবও পড়ে। তবে চিন্তার কিছু নেই কিছু জিনিসের সাহায্যে সহজেই মুক্তি পেতে পারেন এই সমস্যা থেকে।

    খাদ্য তালিকায় কিছু খাবার যোগ করে নিন। এতে আপনার শরীরে হরমোন সঠিক ভাবে তৈরি হবে। আর তার ফলে সহজেই শারীরিক সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে। কি কি খাবেন এই সমস্যা গুলো হলে। প্রথমত সমস্যা বলতে প্রাথমিক ভাবে একটা নির্দিষ্ট বয়সের পর আপনার যদি খুব অবসাদ হয়, কাজ করার ইচ্ছে কমে যায়, খিদে কমে যায়, সারাক্ষণ বিরক্ত লাগে, মুড সুইং করে তাহলে বুঝবেন কিছু সমস্যা হচ্ছে। যদিও এই লক্ষণ গুলি খুব সাধারণ। অন্য অনেক রোগেই এই ধরণের লক্ষণ দেখা যায়। তবে দীর্ঘদিন ধরে এক রকম মনে হলে, অবশ্যই ডাক্তারের কাছে যান। এবং সমস্যা সম্পর্কে সচেতন হন।

    তবে প্রাথমিকভাবে যে খাবর গুলি আপনাকে এই সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে তা হল, মধু, এই খনিজ উপাদান টেস্টোটেরনের পরিমাণ বাড়াতে ও নাইট্রিক অক্সাইডের মাত্রা ঠিক রাখতে সাহায্য করে। খাবারের তালিকায় রাখুন বাঁধাকপি। এর ভিটামিন ও খনিজ উপাদান টেস্টোস্টেরনকে বেশি কার্যকর করে তোলে। ডিম খান বেশি করে। ডিমে রয়েছে স্যাচারেইটেড ফ্যাট, ওমেগা থ্রিএস, ভিটামিন ডি, কলেস্টেরল এবং প্রোটিন। টেস্টোস্টেরন হরমোন তৈরির জন্য তাই ডিম প্রয়োজনীয় খাদ্য। কাঠাবাদামে জিঙ্ক আছে যা হরমোন বাড়ায়। নিয়মিত খান। টক জাতীয় ফল খান। ভিটামিন সি ও এ আপনার টেস্টোস্টেরন হরমোন বাড়াবে। পালং শাক ও আঙুর খান। এছাড়াও অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

    Published by:Piya Banerjee
    First published: