ঘরে ঢুকে ভুলে যান কী জন্য এসেছিলেন? জেনে নিন কেন এমন হয়!

ঘরে ঢুকে ভুলে যান কী জন্য এসেছিলেন? জেনে নিন কেন এমন হয়!

ঘরে ঢুকে ভুলে যান কী জন্য এসেছিলেন? জেনে নিন কেন এমন হয়!

মনস্তত্ত্ববিদরা বলছেন যে এমনটা হওয়ার ক্ষেত্রে দরজা বা স্থান, স্পষ্ট করে বললে অন্য ঘরের একটা গুরুতর প্রভাব রয়েছে।

  • Share this:

#ওয়াশিংটন: বিখ্যাত দার্শনিক এবং প্রাবন্ধিক বার্ট্রান্ড রাসেল (Bertrand Russell) কোনও ঘটনা কেন আমরা ভুলে যাই, তার একটা সহজ মনস্তাত্ত্বিক ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন। লিখেছিলেন যে আমাদের মন যে সব ঘটনা মনে রাখতে চায় না, তা মস্তিষ্কও মনে করে রাখে না। ফলে, এক সময়ে স্মৃতি থেকে সেই ঘটনা মুছে যায় বা ঘটনাটা আমরা ভুলে যাই। কিন্তু সত্যি বলতে কী ঘরে ঢুকে কী জন্য আসা হয়েছিল সেই ব্যাপারটা ভুলে যাওয়ার ব্যাখ্যা বার্ট্রান্ড রাসেলের থিওরি অনুযায়ী মেলে না। এক্ষেত্রে তো আমরা ঘরে একটা কাজ মাথায় রেখেই ঢুকি! কিন্তু তার পরে কেন সেই কাজটা চট করে মনে পড়ে না বা একেবারেই মনে পড়ে না? এমন তো নয় যে সেটা আমরা মনে রাখতে চাইছি না!

মনস্তত্ত্বের ভাষায় এই ঘটনাকে বলা হয় ডোরওয়ে এফেক্ট বা লোকেশন আপডেটিং এফেক্ট। একটি দরজা পেরিয়ে এসে আরেকটি দরজার মধ্যে দিয়ে ঘরে ঢুকছি আমরা এবং তার পরেই ভুলে যাচ্ছি কী জন্য ঘরে আসা হয়েছিল, তাই এই ধরনের স্বভাবকে ডোরওয়ে এফেক্ট নাম দেওয়া হয়েছে। শুধু দরজাই নয়, একই সঙ্গে বদলে যাচ্ছে স্থান বা লোকেশন, তাই একে লোকেশন আপডেটিং এফেক্ট নামেও চিহ্নিত করা হচ্ছে। মনস্তত্ত্ববিদরা বলছেন যে এমনটা হওয়ার ক্ষেত্রে দরজা বা স্থান, স্পষ্ট করে বললে অন্য ঘরের একটা গুরুতর প্রভাব রয়েছে। আমরা যখন অন্য ঘর থেকে একটা দরজা পেরিয়ে আরেকটা দরজা দিয়ে আরেকটা ঘরে এসে ঢুকছি, তখন নতুন ঘরে এসে পুরনো ঘরের স্মৃতি ফিকে হয়ে যাচ্ছে। ফলে পুরনো ঘর থেকে কিছু ভেবে এলেও নতুন ঘরে এসে তা আর মনে পড়ছে না।

কিন্তু এত দিন ধরে প্রলিত এই বক্তব্যের যে একটা দুর্বল দিকও থাকতে পারে, তা হাতেনাতে প্রমাণ করে দেখিয়ে দিয়েছে ইউনাইটেড স্টেটসের নোতর দাম ইউনিভার্সিটি। এই ইউনিভার্সিটির একটি গবেষকদল সম্প্রতি জানিয়েছেন যে এই ভাবে ভুলে যাওয়ার ঘটনা শুধু বাস্তবজগতেই ঘটে না, ভার্চুয়াল দুনিয়াতেও ঘটে। তাঁরা বলছেন যে কমপিউটারে কাজ করার সময়ে অনেকগুলো উইন্ডো খুলে রাখলেও এই ঘটনা ঘটতে পারে। নতুন একটা উইন্ডোয় গিয়ে সেখানে কী কাজ করার কথা ছিল, তাও কি আর ভুলে যাই না আমরা?

তেমনটা হলে ঘটনাকে ডোরওয়ে এফেক্ট, লোকেশন আপডেটিং এফেক্টের পাশাপাশি প্রযুক্তির অগ্রগতির কথা মাথায় রেখে উইন্ডো এফেক্টও বলতে হচ। কিন্তু গবেষকরা এটা প্রমাণ করে দেখিয়ে দিয়েছেন যে এই ঘটনা ঘটে অতিরিক্ত পরিশ্রমের জন্য। যাঁরা অসম্ভব রকমের কাজের চাপের মধ্যে থাকেন, শারীরিক ক্লান্তি তাঁদের মানসিক স্বাস্থ্যেও প্রভাব ফেলে। ফলে, কিছু কিছু ঘটনা মনে করে রাখতে চাইলেও ক্লান্তির বশে একটা সাময়িক স্মৃতিক্ষয় হয়। মস্তিষ্কে অত্যধিক চাপ পড়ে বলেই এমনটা হয় জানাচ্ছেন তাঁরা!

Published by:Debalina Datta
First published:

লেটেস্ট খবর