• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • TOKYO OLYMPICS 2020 WITNESSED PROBLEM FACED BY BREASTFEEDING ATHLETES ARC

Tokyo Olympics 2020: সন্তানকে স্তন্যপান করাতে গিয়ে টোকিয়ো অলিম্পিক্সেও সমস্যার মুখে পড়েন ক্রীড়াবিদরা

প্রতীকী ছবি

টোকিয়ো অলিম্পিক্সে (Tokyo Olympics 2020) এ বার যে মহিলা ক্রীড়াবিদরা স্তন্যপান করান শিশুকে, তাঁদের সন্তানদের নিয়ে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল ৷

  • Share this:

    টোকিয়ো : স্তন্যপান শিশুদের জন্য অপরিহার্য ৷ এই বার্তা ছড়িয়ে দিতে প্রতি বছর অগাস্টের প্রথম সপ্তাহে পালন করা হয় বিশ্ব স্তন্যপান সপ্তাহ ৷ টোকিয়ো অলিম্পিক্সে (Tokyo Olympics 2020) এ বার যে মহিলা ক্রীড়াবিদরা স্তন্যপান করান শিশুকে, তাঁদের সন্তানদের নিয়ে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল ৷

    তবে টোকিয়োতে প্রতিযোগিতার প্রথম দিকে অ্যাথলিটদের জন্য স্তন্যপান করানো খুব একটা সুখকর অভিজ্ঞতা ছিল না ৷ তাঁদের পরিবারকে থাকতে দেওয়া হয়েছিল অন্য হোটেলে ৷ অলিম্পিক্স ভিলেজের শেষ প্রান্তে শুধু খেলোয়াড়রা সন্তানদের স্তন্যপান করাতে পারতেন ৷ এই নিয়মের তীব্র সমালোচনা হওয়ার পর কর্তৃপক্ষ অনুমতি দেন প্রয়োজন বিশেষে খেলোয়াড়রা সন্তানদের ভিলেজে আনতে পারেন ৷

    মা এবং সদ্যোজাত সন্তান দু’জনের ক্ষেত্রেই স্তন্যপান গুরুত্বপূর্ণ ৷ শিশুদের পুষ্টিসাধন তো বটেই ৷ যে মায়েরা তাঁদের সন্তানদের স্তন্যপান করান, পরবর্তীতে তাঁদের স্তন ক্যানসার আশঙ্কা কম থাকে ৷ কিন্তু মহিলা ক্রীড়াবিদদের ক্ষেত্রে তাঁর সন্তানকে স্তন্যপান করানো খুবই চ্যালেঞ্জিং হয়ে পড়ে ৷ অনেক ক্ষেত্রেই ক্রীড়াবিদ মায়েরা তাঁদের সন্তানের জন্য ব্রেস্ট পাম্প ব্যবহার করেন ৷ যাতে পাম্প করে রাখা দুধ পরে খাওয়ানো যায় ৷ তবে কঠোর অনুশীলনের পরও স্তনদুগ্ধের গুণমান হ্রাস হয় না ৷ সে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চিকিৎসকরা ৷ কিন্তু এই নিয়ে প্রচুর ভুল ধারণা ছড়িয়ে আছে ৷ সে সব গুরুত্ব না দিয়ে চিকিসকের পরামর্শ নিয়ে সন্তানকে স্তন্যপান করাতে বলা হয় মহিলা ক্রীড়াবিদদের ৷

    তবে মায়ের ট্রেনিং সেশন এবং সন্তানের খাওয়ার সময় কোনওটাই যাতে বিঘ্নিত না হয়, তার জন্য পরিকল্পনা করতে হয় অনেকটাই ৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published: