• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • ডায়াবেটিস থাকবে নিয়ন্ত্রণে, শুধু সঙ্গে রাখুন এই কয়েকটা এক্সারসাইজের অভ্যাস!

ডায়াবেটিস থাকবে নিয়ন্ত্রণে, শুধু সঙ্গে রাখুন এই কয়েকটা এক্সারসাইজের অভ্যাস!

সঠিক খাদ্যাভাস এবং শরীরচর্চা করা অত্যন্ত জরুরি, মুক্তি পাবেন সহজেই, মানতে হবে এই নিয়মগুলি

সঠিক খাদ্যাভাস এবং শরীরচর্চা করা অত্যন্ত জরুরি, মুক্তি পাবেন সহজেই, মানতে হবে এই নিয়মগুলি

সঠিক খাদ্যাভাস এবং শরীরচর্চা করা অত্যন্ত জরুরি, মুক্তি পাবেন সহজেই, মানতে হবে এই নিয়মগুলি

  • Share this:
    #কলকাতা: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হিসাব অনুযায়ী, ডায়াবেটিস এখন একটি মহামারী রোগ। বর্তমানে প্রায় ৭০ মিলিয়ন মানুষ এই রোগে আক্রান্ত। আগামী কয়েক বছরে প্রায় প্রতিটি ঘরে এই রোগের প্রকোপ দেখা যাবে বলেই মত চিকিৎসকদের। আর ডায়াবেটিস এমন একটি রোগ যাতে প্রথমেই সতর্ক না হলে জীবনহানির ঝুঁকিও রয়েছে। সেক্ষেত্রে প্রতিরোধই ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রেণের একমাত্র হাতিয়ার। তবে ওষুধ খেয়েই নয়, এই লাইফস্টাইল সম্পর্কিত অসুখটিতে সঠিক খাদ্যাভাস এবং শরীরচর্চা করা অত্যন্ত জরুরি। তাহলে আসুন ব্লাড সুগারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে ১০টি এক্সারসাইজের বিষয়ে জেনে নেওয়া যাক। হাঁটা ডায়াবেটিক রোগীদের নিয়মিত শরীরচর্চা করা জরুরি। সেক্ষেত্রে তাঁদের ক্যালোরি বার্ন হয় এমন শরীরচর্চা করতে হবে। সপ্তাহে পাঁচ দিন অন্তত ৩০ মিনিট করে হাঁটলেই তা অ্যারোবিক ফিটনেসের জন্য যথেষ্ট এবং এটি ডায়াবেটিস কমাতেও সাহায্য করে। ওয়েটলিফটি ওয়েটলিফটিং পেশি গঠনে সাহায্য করে এবং ওয়েটলিফটিং করলে বেশি ক্যালোরি বার্ন হয়। স্ট্রেনথ ট্রেনিংও ব্লাড সুপারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতেও সাহায্য করে। সাইক্লিং ডায়াবেটিসে আক্রান্ত বেশিরভাগ মানুষ আর্থারাইটিসে ভোগেন। যদিও অনেকেই জানেন না যে সাইক্লিং খুব ভালো ক্যালোরি বার্ন করতে পারে। তাই ডায়াবেটিকদের আর্থারাইটিস থাকলেও সাইক্লিং করে ব্লাড সুগারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারেন। সাঁতার কাটা জয়েন্টে ব্যথা থাকলে সাঁটার কাটাও খুব ভালো এক্সারসাইজ। সাঁটার কাটলে হার্ট এবং ফুসফুসের স্বাস্থ্য ভালো থাকে। পাশাপাশি সাঁতার কাটলে সামগ্রিকভাবে শরীরের এক্সারসাইজ হয়। ক্যালিসথেনিক্স সাধারণ ক্যালিসথেনিক্সের মধ্যে রয়েছে পুল আপ, পুস আপ, লাঞ্চেস এবং অ্যাবডোমিনাল ক্রাঞ্চেস ইত্যাদি। এই ধরনের এক্সারসাইজ নিয়মিত করলে অনেকটাই ক্যালোরি বার্ন হয়। তাই ডায়াবেটিকদের ওয়ার্ক আউট রুটিনে এই ধরনের পেশির এক্সারসাইজ রাখা উচিত। পাইলেট পাইলেট কোর স্ট্রেনথে বাড়াতে সাহায্য করে। পাইলেট ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণেও সাহায্য করে। যোগাসন নিয়মিত যোগাসন করলে ঘুম ভালো হয়। মানসিক স্বাস্থ্য উন্নতির জন্যও যোগাসন খুব ভালো কাজ করে। একই সঙ্গে ব্লাড সুগার এবং কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে রাখতেও যোগাসন খুবই সাহায্য করে।
    Published by:Arjun Neogi
    First published: