লাইফস্টাইল

corona virus btn
corona virus btn
Loading

মনোমালিন্য কি যৌন সম্পর্ককে আরও মধুর, অনেক বেশি সুখাবহ করে তোলে?

মনোমালিন্য কি যৌন সম্পর্ককে আরও মধুর, অনেক বেশি সুখাবহ করে তোলে?
Representational Image

বিশেষজ্ঞ পল্লবী বার্নওয়াল বলছেন যে মনোমালিন্য এবং যৌনতার সম্পর্ককে এমন জলবৎ তরলং করে ফেললে মুশকিল আছে। এ প্রসঙ্গে তিনি আমাদের সামনে তুলে ধরেছেন এক পাঠকের জিজ্ঞাসা।

  • Share this:

#কলকাতা: অনেকে উত্তরে সদর্থক মত পোষণ করে থাকেন। তাঁদের দাবি- মনোমালিন্য মিটিয়ে দুই পক্ষ যখন শারীরিক ভাবে একে অপরের কাছে চলে আসে, তখন আসঙ্গলিপ্সা প্রবল হয়ে ওঠে আগের চেয়ে। পরিণামে যৌনতা মধুর হয়ে ওঠে। আবার ওই মনোমালিন্যের আঁচ থেকে ঝড়ো যৌন আচরণও অনেক ক্ষেত্রে রতিসুখের চূড়ান্ত মুহূর্তটি রচনা করে দেয়।

কিন্তু বিশেষজ্ঞ পল্লবী বার্নওয়াল বলছেন যে মনোমালিন্য এবং যৌনতার সম্পর্ককে এমন জলবৎ তরলং করে ফেললে মুশকিল আছে। এ প্রসঙ্গে তিনি আমাদের সামনে তুলে ধরেছেন এক পাঠকের জিজ্ঞাসা। তিনি জানতে চেয়েছিলেন যে যৌনতা নিয়ে খোলামেলা মনোভাব কি সম্পর্কের মধ্যে মনোমালিন্য থেকে তৈরি হওয়া বিষাক্ত পরিবেশ মেটাতে কাজে আসতে পারে?

পরামর্শ দিতে গিয়ে পল্লবী সবার প্রথমে সাধুবাদ জানিয়েছেন তাঁর এই পাঠককে। যৌনতা নিয়ে ছুঁৎমার্গ ঝেড়ে ফেলা এবং তাকে সহজ ভাবে নেওয়া এখনও আমাদের ভারতীয় সমাজের পক্ষে বড় সহজ ব্যাপার নয়। কিন্তু এই পাঠক সেই পথে এগিয়েছেন বলে তাঁর ভাবনাকে সমর্থন করতেই হয়!

তাই পল্লবী বলছেন যে যৌনতা নিয়ে চিন্তাধারা যদি খোলামেলা হয়, যদি একাধিক ব্যক্তির সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপন নিয়ে মনে কোনও দ্বিধা না থাকে, তা হলে অনেক ক্ষেত্রেই সম্পর্ক সহজ হয়ে উঠতে পারে। কিন্তু তা যদি না হয়? সে ক্ষেত্রে সম্পর্ক কেমন করে বিষাক্ত হয়ে ওঠে, সে কথাও বলেছেন বিশেষজ্ঞা।

পল্লবী জানিয়েছেন যে যৌনতা নিয়ে সব চেয়ে বেশি সমালোচনার শিকার ভারতীয় সমাজে মেয়েরাই হয়ে থাকেন। একটি মেয়ের একাধিক পুরুষের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক থাকার বিষয়টি তার মনের মানুষ অনেক ক্ষেত্রেই স্বাভাবিক ভাবে গ্রহণ করতে পারেন না। পরিণামে সম্পর্কে সমস্যা দেখা দেয়।

প্রাক-বিবাহকালীন যৌনতাও অনেক ক্ষেত্রে সমস্যা তৈরি করে সম্পর্কে। ধরেই নেওয়া হয় যে এ ক্ষেত্রে পুরুষ হোক বা নারী, তাঁরা ব্যভিচারী ছাড়া আর কিছুই নন!

সঙ্গী বা সঙ্গিনীর বিশেষ কোনও যৌন ইচ্ছা বা Fetish-কেও অনেকে স্বাভাবিক ভাবে গ্রহণ করতে পারেন না। সেই জায়গা থেকে সম্পর্ক তিক্ত হয়ে ওঠে।

তাই পল্লবী বলছেন যে যতটা পারা যায় যৌনতা বিষয়টাকে খোলামেলা ভাবেই নেওয়া উচিৎ! কারও একাধিক সম্পর্ক বা বিশেষ যৌন ইচ্ছা নিয়ে যদি সঙ্গী বা সঙ্গিনীর অস্বস্তি থাকে, তা হলে পারস্পরিক আলোচনার মাধ্যমে তা সমাধান করার চেষ্টা চালানো যায়। তাতেও কাজ না হলে সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসাই ঠিক হবে বলে দাবি করছেন তিনি! অন্যথায় দুই পক্ষের কেউই সুস্থ জীবনযাপন করতে পারবেন না!

Pallavi Barnwal

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: December 29, 2020, 2:02 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर