এই ধরনের প্যারাসাইট প্রাণনাশ করতে পারে, মশা বাহিত রোগ থেকে বাঁচার সহজ পথ

মশা বাহিত রোগ থেকে বাঁচতে ঘরবাড়ির আনাচে কানাচে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Aug 19, 2019 06:13 PM IST
এই ধরনের প্যারাসাইট প্রাণনাশ করতে পারে, মশা বাহিত রোগ থেকে বাঁচার সহজ পথ
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Aug 19, 2019 06:13 PM IST

#কলকাতা: বর্ষাকাল মানেই জমা জল আর জমা জল থেকেই ম্যালেরিয়া বা ডেঙ্গির প্রকোপ নাজেহাল করে দেয় সাধারণ মানুষকে ৷ তবে ম্যালেরিয়া বা ডেঙ্গি ছড়ায় মূলত মশার কারণেই ৷ ডেঙ্গির মশা কোনও ভাবেই নোংরা বা নর্দমার জলে জন্মায় না এই মশায় বৃষ্টির জমা জলে জন্মায় ৷ সেই জলেই লার্ভা থেকে জন্ম নেয় মশা ৷ তাই মশাজনিত রোগ থেকে বাঁচতে ঘরবাড়ির আনাচে কানাচে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে ৷ কোনও মতেই জল জমতে দেওয়া যাবেনা ৷ শুধু নিজেই জানলে হবেনা গড়ে তুলতে হবে সচেতনতাও ৷

মূলত ম্যালেরিয়া বা ডেঙ্গির জীবাণু ছড়ায় চার প্রকারের মশা ৷ ম্যালেরিয়ার প্যারাসাইট ছড়ায় চার প্রকারের ভাইরাস ৷ প্লাসমোডিয়াম ভাইভ্যাক্স (P.V.), প্লাসমোডিয়াম ওবেলো (P.O.), প্লাসমোডিয়াম ম্যালেরিয়া (P.M.), প্লাসমোডিয়াম ফেল্কিপেরাম (P.F)

প্লাসমোডিয়াম ভাইভ্যাক্স (P.V.) : দেশের প্রায় ৬০ শতাংশ ক্ষেত্রেই প্লাসমোডিয়াম ভাইভ্যাক্সের কারণেই শরীরে প্রবেশ করে বিভিন্ন ভাইরায় ৷ এই রোগের লক্ষ্মণ হিসাবে চিহ্নিত হয়ে থাকে জ্বর, সর্দিকাশি, দুর্বলতা, ডাইরিয়া-সহ শরীরে নানা রকমের সমস্যা দেখা দেয় ৷

প্লাসমোডিয়াম ওবেলো (P.O.) : এই প্যারাসাইটে পশ্চিমী আফ্রিকায় পাওয়া গিয়েছে ৷ এই প্যারাসাইট মশা কামড়ানোর পরে একটি বড় সময় পর্যন্ত এই ভাইরায় শরীরে বেঁচে থাকে ৷

প্লাসমোডিয়াম ম্যালেরিয়া (P.M.) : এই প্যারাসাইটে প্রচুর ঠান্ডা লাগে ৷ তুমুল জ্বর আসে ৷

Loading...

প্লাসমোডিয়াম ফেল্কিপেরাম (P.F) : এই প্যারাসাইট সব থেকে বেশি মারাত্মক হতে পারে ৷

তবে ডেঙ্গি হোক বা ম্যালেরিয়া থেকে বাঁচার আগে যে কয়েকটি বিষয়টি মাতায় রাখতে হবে ৷ ঘরের দরজা, জানলা বন্ধ রাখতে হবে ৷ মশা কামড়ালে বিশেষ ভাবে শরীর খারাপ হয় ৷

অনেক সময়েই মশা দরজা বা জানলার বেশ কিছু অংশে লুকিয়ে থাকে ৷ তবে ডেঙ্গি হলে রাপিড পদ্ধতিতে নয় অ্যালাইজা পদ্ধতিতে চিকিৎসা করাতে হবে ৷

First published: 06:10:39 PM Aug 19, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर