Home /News /life-style /
Healthy Lifestyle || একটু হলেও মেদ দরকার! মহিলাদের হরমোনের ভারসাম্য বজায় রাখতে ফ্যাটজাতীয় খাবারে হোক দিনের শুরু, বলছেন পুষ্টিবিদ

Healthy Lifestyle || একটু হলেও মেদ দরকার! মহিলাদের হরমোনের ভারসাম্য বজায় রাখতে ফ্যাটজাতীয় খাবারে হোক দিনের শুরু, বলছেন পুষ্টিবিদ

Female Hormones || মহিলাদের হরমোনজনিত স্বাস্থ্য (Hormone Health) ভাল রাখতে জীবনযাপনের ৫টি অভ্যেস তৈরি করতে হবে।

  • Share this:

যে-কোনও মানুষের দেহে হরমোন একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাক্টর। কিন্তু আমরা অনেকেই বুঝি না যে, আমাদের রোজকার বিভিন্ন অভ্যেসের জেরে হরমোনজনিত স্বাস্থ্যে ব্যাঘাত ঘটতে পারে। বিষয়টা বুঝিয়ে বলা যাক। আসলে অস্বাস্থ্যকর জীবনযাত্রা এবং ভুলভাল ডায়েট কিন্তু হরমোনজনিত স্বাস্থ্যের উপর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। ফলে হরমোনের ভারসাম্য নষ্ট (Hormonal Imbalance) হতে পারে এবং বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই স্বাস্থ্য ভাল রাখতে বিশেষ করে মহিলাদের হরমোনের ভারসাম্য বজায় রাখা অত্যন্ত জরুরি। আর মহিলাদের হরমোনজনিত স্বাস্থ্য (Hormone Health) ভাল রাখতে জীবনযাপনের ৫টি অভ্যেস তৈরি করতে হবে। দেখে নেওয়া যাক, এই বিষয়ে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ এবং মতামত।

দিনের শুরুতেই ফ্যাট:

শুনতে অবাক লাগলেও ফ্যাটজাতীয় খাবার খেয়ে দিন শুরু করার পরামর্শ দিচ্ছেন পুষ্টিবিদেরা (Nutritionist)। বহু পুষ্টি বিশেষজ্ঞই বলেন যে, সকালে এক চামচ ঘি অথবা নারকেল তেল কিংবা অর্গানিক বাটার খেয়ে দিন শুরু করা যেতে পারে। আসলে বহু মানুষই সকালে উঠেই এক বাটি ফল খেতে পছন্দ করেন। কিন্তু এক পুষ্টিবিদের দাবি, এই অভ্যেস একেবারেই ঠিক নয়। কারণ হরমোনজনিত সমস্যার জন্য এই অভ্যেসই দায়ী। হরমোনজনিত সমস্যায় ভুগছেন এমন মহিলাদের সাধারণ সমস্যাগুলির মধ্যে অন্যতম হল ইনসুলিন সেনসিটিভিটি অথবা ব্লাড সুগার বৃদ্ধি। আর কার্বোহাইড্রেটের বিষয়ে যাঁদের সংবেদনশীলতা রয়েছে, তাঁরা যদি সকালে উঠেই গোটা ফল খান, তা-হলে তাঁদের রক্ত শর্করার মাত্রা অনেকটাই বেড়ে যাবে। তাই ওই পুষ্টিবিদের পরামর্শ, সকালে উঠেই ফল খাওয়ার পরিবর্তে এক চামচ অর্গানিক বাটার, ঘি অথবা নারকেল তেল খাওয়া উচিত। এমনকী ডায়েটে যদি ৩৫ গ্রাম ফাইবার যোগ করা হলে তাতেও ভাল ফল পাওয়া যাবে।

আরও পড়ুন - India's medal in Commonwealth Games 2022: তৈরি ইতিহাস, প্যারা পাওয়ার লিফটিংয়ে সোনা, লং জাম্পে এল রুপো

ডায়েটে বীজ জাতীয় খাবার:

প্রাকৃতিক ভাবে হরমোনের ভারসাম্য বজায় রাখতে সিড বা বীজ জাতীয় খাবার খাওয়া উচিত। পুষ্টি বিশেষজ্ঞের পরামর্শ, মাসিক চক্রের প্রথমার্ধ্বে মহিলাদের দেহ থেকে বেশি পরিমাণে ইস্ট্রোজেন হরমোন নিঃসরণ ঘটে। আবার মাসিক চক্রের দ্বিতীয় ভাগে বেশি পরিমাণে প্রোজেস্টেরন হরমোন নিঃসৃত হয়। আসলে মূল বিষয়টি হল এমন খাবার খেতে হবে, যা হরমোনের ভারসাম্য বজায় রাখতে পারে। সেই সঙ্গে সঠিক পরিমাণে হরমোন নিঃসরণের বিষয়টা সঠিক খাবারের উপরেই নির্ভর করে। ৩০ দিনের মাসিক চক্রের ফলিকুলার পর্যায়ে ফ্লাক্স সিড এবং পাম্পকিন সিড খেতে হবে। আর মাসিক চক্রের দ্বিতীয় ভাগে খাওয়া উচিত সূর্যমুখী এবং তিলের বীজ। এর ফলে ইস্ট্রোজেন এবং প্রোজেস্টেরনের মাত্রার ভারসাম্য বজায় থাকে।

অন্ত্রের স্বাস্থ্যের উপর নজর:

অন্ত্রের সঙ্গে সব কিছুই যুক্ত। তাই এই অঙ্গকে সুস্থ রাখা আমাদের প্রধান দায়িত্ব। তাই অন্ত্র এবং পেটের স্বাস্থ্য ভাল রাখতে সঠিক খাবার খেতে হবে। ওই পুষ্টিবিদের বক্তব্য, পেট পরিষ্কার রাখাই হচ্ছে অন্যতম প্রধান লক্ষ্য। তাই ডায়েটে প্রি, প্রো এবং পোস্টবায়োটিক যোগ করতে হবে।

সঠিক সাপ্লিমেন্ট:

সাপ্লিমেন্ট বিষয়টাও হরমোনের স্বাস্থ্যের জন্য জরুরি। পুষ্টিবিদের বক্তব্য, এ-ক্ষেত্রে সঠিক সাপ্লিমেন্ট বলতে তাঁরা বোঝেন ওমেগা-৩ (Omega-3)। কারণ হরমোন, ত্বক এবং অন্ত্রের স্বাস্থ্যের জন্য এই সাপ্লিমেন্ট আদর্শ। এটি ইনসুলিন সেনসিটিভিটির বিরুদ্ধে কাজ করতে সক্ষম। আর কেনার সময় প্যাকেটে ইপিএ এবং ডিএইচএ- পরিমাণ দেখে নিতে হবে। সেই পরিমাণটা যেন ৫০০-র বেশি হয়। যদি তা ১৮০, ২৮০ হয় কিংবা ৫০০-র নিচে হয়, তা-হলে তা যথেষ্ট নয়।

মানসিক স্বাস্থ্যও জরুরি:

সব শেষে মনোনিবেশ করা যাক সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে। পুষ্টিবিদের পরামর্শ, যা মনকে আনন্দ দেবে, এমন কাজই করতে হবে। তাতে মন শান্ত থাকবে। আর পর্যাপ্ত বিশ্রাম নেওয়াও অত্যন্ত জরুরি।

First published:

Tags: Healthy Lifestyle

পরবর্তী খবর