লাইফস্টাইল

corona virus btn
corona virus btn
Loading

নিছক যৌনতৃপ্তির জন্য পরকীয়ার আগে এই বিষয়গুলো ভুললে চলবে না !

নিছক যৌনতৃপ্তির জন্য পরকীয়ার আগে এই বিষয়গুলো ভুললে চলবে না !
Representational Image

বিশেষজ্ঞ পল্লবী বার্নওয়াল সাফ বলছেন যে পরকীয়ার নেপথ্য কারণটিকে শনাক্ত করতে পারলেই দাম্পত্যজীবনে অনেক সমস্যার সমাধান সহজেই হয়ে যায়!

  • Share this:

#কলকাতা: পরকীয়া কেন হয়? সবার প্রসঙ্গে এই জায়গাটা ব্যাখ্যা না করলেই নয়! কেন না, বিশেষজ্ঞ পল্লবী বার্নওয়াল সাফ বলছেন যে পরকীয়ার (Extra Marital Affair) নেপথ্য কারণটিকে শনাক্ত করতে পারলেই দাম্পত্যজীবনে অনেক সমস্যার সমাধান সহজেই হয়ে যায়!

পল্লবী এই সূত্রে নিরাপত্তা, নির্ভরতা এবং নিছক আনন্দের দিকটা ব্যাখ্যা করছেন। বলছেন যে এই তিনটি বিষয়ের উপরে ভিত্তি করেই নিঃসন্দেহে আমাদের সমাজে দাম্পত্যজীবন পরিচালিত হয়ে থাকে। কিন্তু আনন্দের থেকে অনেক বেশি করে এ ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে নিরাপত্তা এবং নির্ভরতার দিকটা। সেটা স্বামী এবং স্ত্রী দুই পক্ষের ক্ষেত্রেই সমান ভাবে প্রযোজ্য। এর সঙ্গে রয়েছে সন্তান উৎপাদন এবং মানুষ করার বিষয়টাও। কাজেই দাম্পত্যজীবনে আনন্দের জায়গাটা কমে এলে, দায়িত্বের ভার বেড়ে গেলে সেটা একটু বিচক্ষণতার সঙ্গে বিচার করতে হবে!

এ প্রসঙ্গে পল্লবী নাম প্রকাশ না করে এক ব্যক্তির উদাহরণ দিয়েছেন। এই ব্যক্তি জানিয়েছেন যে তাঁর স্ত্রী রীতিমতো সুন্দরী; তাঁদের দুই সন্তানও রয়েছে। কিন্তু দ্বিতীয় সন্তানের জন্মের পর থেকেই তাঁর কাছে স্ত্রীর শারীরিক আকর্ষণ (Sexual Attraction) কমে এসেছে। তিনি আর স্ত্রীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে তৃপ্ত হচ্ছেন না। কিন্তু পরকীয়া (Extra Marital Affair) সম্পর্ক নিয়েও তাঁর মনে কিঞ্চিৎ টানাপোড়েন রয়েছে। তাই তিনি পল্লবীর পরামর্শ চেয়েছেন!

দেখে নেওয়া যাক পল্লবী কী বলছেন!

১. কথা বলা

সবার প্রথমে পল্লবীর বক্তব্য- নিছক যৌনতার জন্য পরকীয়ায় যাওয়ার সিদ্ধান্ত হুট করে না নেওয়াই ভালো হবে। এ ক্ষেত্রে যিনি সমস্যায় পড়েছেন, তাঁকে আগে তাঁর স্ত্রী বা স্বামীর সঙ্গে কথা বলতে হবে। বোঝাতে হবে, তিনি যৌনতায় (Sex) ঠিক কেমন উদ্দীপনা আশা করছেন!

২. অপর পক্ষের যৌন পছন্দ খুঁটিয়ে জানা

কথা বলার দ্বিতীয় ধাপে আসে এই জায়গাটা! অনেকেই আছেন, যাঁরা তাঁদের স্বামী বা স্ত্রীর যৌন পছন্দের (Sexual Fetish) ব্যাপারটা কোনও দিন জানার প্রয়োজন বোধ করেননি! কথা বলে এই সমস্যা মিটিয়ে ফেলা যায়! হতেই পারে- একজনের কামনা অন্যের সঙ্গে মিলে গেল, সে ক্ষেত্রে অভিযোগের আর জায়গা থাকে না!

৩. সিদ্ধান্ত লুকিয়ে না রাখা

এমনটাও হতে পারে যে এক পক্ষ অন্যের যৌন পছন্দের জায়গাটায় স্বচ্ছন্দ বোধ করছেন না! সে ক্ষেত্রে তাঁর অপছন্দকে গুরুত্ব এবং সম্মান দিতে হবে। পাশাপাশি, এটাও বুঝিয়ে দেওয়া দরকার যে নিছক যৌনতৃপ্তির জন্য অন্য সম্পর্কে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে কি না!

Pallavi Barnwal

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: December 2, 2020, 1:13 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर