কোনও কারণ ছাড়াই সঙ্গিনী প্রত্যাখ্যান করছেন শারীরিক মিলনের প্রস্তাব, তা হলে উপায় রইল বিশেষজ্ঞের টিপস!

কোনও কারণ ছাড়াই সঙ্গিনী প্রত্যাখ্যান করছেন শারীরিক মিলনের প্রস্তাব, তা হলে উপায় রইল বিশেষজ্ঞের টিপস!

Representational Image

পল্লবী এ প্রসঙ্গে তুলে ধরেছেন এক যুবকের কথা। তিনি একটি বেশ বড়সড় চিঠি লিখেছেন পল্লবীকে। সমস্যাটি ভালো ভাবে বুঝতে গেলে সেই চিঠির একটা সংক্ষিপ্ত বিবরণ দেওয়া প্রয়োজন।

  • Share this:

Photo is used for representational Purpose

#কলকাতা: মাঝে মাঝে জীবনে খুব অপ্রত্যাশিত ভাবেই কিছু সমস্যা দেখা দেয়। যার জন্য আমরা আদৌ প্রস্তুত থাকি না। কেন না, এ রকম ঘটনা যে ঘটতে পারে, সেটা আমাদের প্রত্যাশার মধ্যেই থাকে না। এ প্রসঙ্গে যৌনতা (Sex) এবং দুই পক্ষের পারস্পরিক সম্পর্কের টানাপোড়েন খুবই স্বাভাবিক একটি বিষয়। নিঃসন্দেহে তা জটিলও! এই পর্বে পল্লবী বার্নওয়াল তেমনই এক সমস্যার সমাধান নিয়ে উপস্থিত হয়েছেন পাঠকদের দরবারে।

পল্লবী এ প্রসঙ্গে তুলে ধরেছেন এক যুবকের কথা। তিনি একটি বেশ বড়সড় চিঠি লিখেছেন পল্লবীকে। সমস্যাটি ভালো ভাবে বুঝতে গেলে সেই চিঠির একটা সংক্ষিপ্ত বিবরণ দেওয়া প্রয়োজন। যুবকটির বিবৃতি- কিছুটা নিঃসঙ্গতা, কিছুটা সহানুভূতির জায়গা থেকে এক বন্ধুর সঙ্গে তাঁর শারীরিক সম্পর্ক (Casual Sex) গড়ে উঠেছিল। তাঁরা দু'জনেই এ বিষয়ে ওয়াকিবহাল ছিলেন যে এই সম্পর্কের কোনও ভবিষ্যৎ নেই! কিন্তু এখন মাঝে মাঝেই কোনও কারণ ছাড়াই সঙ্গিনী ওই যুবকটিকে শারীরিক সম্পর্কের দিক থেকে প্রত্যাখ্যান করছেন। যুবকটির সঙ্গে তাঁর কেবল যাবতীয় রকম মানসিক অন্তরঙ্গতাতেই (Intimacy) আপাতত আগ্রহ। তাই যোগাযোগ সামান্য হলেও রয়েছে, বন্ধুত্বও আছে আলবাত, শুধু সম্পর্কে যৌনতা নেই! যুবকটির দাবি- ঘটনাটা তাঁর খারাপ লাগছে!

এই জায়গায় এসে পল্লবী সবার প্রথমে স্পষ্ট করে দিয়েছেন যে ওই যুবকের খারাপ লাগাটা খুবই স্বাভাবিক! সেটা নিয়ে উপহাসের কোনও কারণ নেই। কেন না, সম্পর্কে শরীর এবং মন দুই গুরুত্বপূর্ণ। আর এই মনের জায়গা থেকেই পল্লবী তুলে ধরেছেন তাঁর পরামর্শ।

বিশেষজ্ঞার বক্তব্য- হয় তো কোনও কারণে সঙ্গিনী অস্বস্তি বোধ করছেন, কিন্তু সেটা মুখ ফুটে বলে উঠতে পারছেন না। তাই তাঁর সঙ্গে স্পষ্ট ভাবে কথা বলা খুবই জরুরি! আসলে আমাদের সমাজে মেয়েদের সবার আগে যে কোনও কারণে কোণঠাসা করা হয়, তাই শারীরিক সম্পর্ক (Sexual Relationship) নিয়ে তাঁদের মধ্যে দ্বিধা কাজ করে অনেক রকম ভাবে। পারস্পরিক স্পষ্ট আলোচনার মাধ্যমে সেই সমস্যা মিটিয়ে নেওয়া যায়! হতে পারে, তাঁর কিছু শর্ত আছে! এ ক্ষেত্রে সেগুলোকে প্রাধান্য দিয়েই সম্পর্ক বজায় রাখতে হবে!

তবে শেষ পর্যন্ত যদি সঙ্গিনী প্রত্যাখ্যানের সিদ্ধান্তে অটল থাকেন, তা হলে তাকে গুরুত্ব দিয়ে অন্য সম্পর্কে এগিয়ে যাওয়াই ঠিক হবে- যদি যৌনতাই (Sexual Desire) একমাত্র চাহিদা হয়!

Pallavi Barnwal

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: