প্রাক্তনের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক ডেকে আনতে পারে সর্বনাশ; কেন জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞ

প্রাক্তনের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক ডেকে আনতে পারে সর্বনাশ; কেন জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞ
এখনও প্রাক্তনের প্রতি শারীরিক এবং মানসিক টান রয়ে গিয়েছে। কেন এমন হয়, তা মনস্তত্ত্বের সূত্র ধরে ব্যাখ্য়া করেছেন পল্লবী

এখনও প্রাক্তনের প্রতি শারীরিক এবং মানসিক টান রয়ে গিয়েছে। কেন এমন হয়, তা মনস্তত্ত্বের সূত্র ধরে ব্যাখ্য়া করেছেন পল্লবী

  • Share this:

#কলকাতা: ইজাজত (Ijaazat), প্রাক্তন (Praktan), ইট'স কমপ্লিকেটেড (It's Complicated)। তালিকা বাড়বে বই কমবে না। কিন্তু প্রাথমিক ভাবে হিন্দি, বাংলা আর ইংরেজি এই তিন ছবি বেছে নেওয়ার কারণ একটাই- এই সবকটার সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে প্রাক্তনকে নিয়ে সমস্যা। আর আমরা দেখেছি যে সুধা, সুদীপা, জেন সবাই একটাই সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছে- সব ভুলে এগিয়ে যাওয়াই ভালো!

কেন প্রাক্তনের সঙ্গে জড়িয়ে থাকা যায় না, বিশেষ করে শুধু শারীরিক সম্পর্ক রাখার আরওই প্রশ্ন ওঠে না, সেই কথাটা এই পর্বে বিশ্লেষণ করেছেন বিশেষজ্ঞা পল্লবী বার্নওয়াল। এক পাঠিকা তাঁকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছেন যে প্রাক্তন প্রেমিকের প্রতি শারীরিক আকর্ষণ তাঁর একটুও কমেনি, বরং দিন দিন তা যেন তীব্র হয়ে উঠছে। কেন এরকম হচ্ছে, সেটা জানতে চেয়েছেন তিনি! পাঠিকা এটাও জানাতে দ্বিধা বোধ করেননি যে এই পুরুষটি তাঁকে প্রত্যাখ্যান করেছে সম্পর্কের মাঝপথে! এমন হলে তো তার প্রতি বিতৃষ্ণা আসার কথা! কিন্তু সেটা না হয়ে বদলে কেন যৌন সংসর্গের তৃষ্ণা বাড়ছে?

সবার প্রথমে পল্লবী পাঠিকাটির এই অকপট স্বীকারোক্তির প্রশংসা করেছেন। কেন না, অনেকেই প্রাক্তনের প্রতি নিজের টানের কথাটা খোলাখুলি স্বীকার করেন না। কিন্তু সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার জন্য সবার প্রথমে নিজের কাছে সত্যিটা প্রতিষ্ঠিত করতে হয়। আর তার সঙ্গেই উঠে আসে এই তথ্য যে এখনও প্রাক্তনের প্রতি শারীরিক এবং মানসিক টান রয়ে গিয়েছে। কেন এমন হয়, তা মনস্তত্ত্বের সূত্র ধরে ব্যাখ্য়া করেছেন পল্লবী। বলছেন এটি তিনটি কারণে হতে পারে-


১. কেউ যখন আমাদের প্রত্যাখ্যান করে, তখন অনেক সময়ে আমাদের তাকে সুপিরিয়র বলে মনে হয়। এই ইনফিরিয়রিটি কমপ্লেক্স থেকেই ওই ব্যক্তির প্রতি একটা তীব্র মানসিক এবং শারীরিক টান তৈরি হয়, যা আদপেই অস্বাভাবিক কিছু নয়।

২. একজন সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে গেলেও অন্যজন পারেননি, তাই এখনও টান রয়ে গিয়েছে।

৩. আমাদের যৌন আবেগকে নিয়ন্ত্রণ করে মন। প্রাক্তনের সঙ্গে যে মানসিক বোঝাপড়া এক সময়ে ছিল, যে ঘনিষ্ঠতা ছিল, সেটাই যৌন সম্পর্ককে উপভোগ্য করে তুলত। এই দিক থেকে দেখলে প্রাক্তনের প্রতি শারীরিক টান আসলে ওই আগের মানসিক সুখের মুহূর্তে ফিরতে চাওয়া!

কিন্তু পরিস্থিতি যত কষ্টদায়ক-ই হোক না কেন, প্রাক্তনের কাছে ফিরে যাওয়া কাম্য নয়, বলছেন পল্লবী। কেন, তাও বিশ্লেষণ করতে ভোলেননি তিনি ধরে ধরে-

১. যে ব্যক্তি একবার প্রত্যাখ্যান করেছেন, তিনি ভবিষ্যতে আবার করবেন! তিনি কখনই অপর পক্ষকে ভালোবাসেননি, কেবল সুখের মুহূর্তে গা ভাসিয়েছেন। তাই যে সম্পর্কের নিয়তি ভেঙে যাওয়া, সেটায় থাকা মানে নিজেকে আরও বেশি কষ্ট দেওয়া!

২. যে কারণে সম্পর্ক ভেঙেছিল, তা কখনই মেটে না! স্রেফ তাকে আমরা ঢাকাচাপা দিয়ে রাখি! ফলে, যে কোনও মুহূর্তে তা মাথাচাড়া দিয়ে ফের সম্পর্কের ভাঙনের কারণ হতে পারে। বার বার এমন হলে তার প্রভাব পড়বে মানসিক স্বাস্থ্যে, জীবন হয়ে উঠবে বিষময়।

৩. কোনও মানুষেরই যেচে অবহেলা ডেকে আনা ঠিক নয়। কেন না, তা আমাদের আত্মমর্যাদা নষ্ট করে দেয়, কোনও কোনও ক্ষেত্রে মাথা তুলে নিজের মুখোমুখি দাঁড়ানোর সাহসও পাওয়া যায় না। যা অবসাদ ডেকে নিয়ে এসে পারিবারিক এবং কর্মক্ষেত্রে তুমুল সঙ্কটের পরিস্থিতি তৈরি করতে পারে।

তাই পল্লবীর পরামর্শ- এক্ষেত্রে বন্ধুদের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়ানোটা ঠিক হবে, তাঁদের সাহচর্যে ধীরে ধীরে ভাঙনের কষ্ট সয়ে আসবে। মানসিক যন্ত্রণা তীব্র হলে মনোবিদের দ্বারস্থ হতে হবে। কিন্তু কখনই প্রাক্তনকে ডেকে এনে নিজের ভবিষ্যতের দিনগুলোকে সর্বনাশের দিকে ঠেলে দেওয়া ঠিক হবে না!

Pallavi Barnwal
Published by:Ananya Chakraborty
First published:

লেটেস্ট খবর