স্ত্রী ছাড়াও অন্য নারীর থেকে সন্তান রয়েছে? কী করণীয়, জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞ

স্ত্রী ছাড়াও অন্য নারীর থেকে সন্তান রয়েছে? কী করণীয়, জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞ
কিন্তু সমস্যা হল এই যে এই সব ক্ষেত্রে অনেক সময়েই সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা তাঁদের বিয়ে ভাঙার ব্যাপারে স্বচ্ছন্দবোধ করেন না

কিন্তু সমস্যা হল এই যে এই সব ক্ষেত্রে অনেক সময়েই সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা তাঁদের বিয়ে ভাঙার ব্যাপারে স্বচ্ছন্দবোধ করেন না

  • Share this:

#কলকাতা: সামাজিক দিক থেকে বলা হয় জারজ। জার অর্থাৎ বিবাহ-বহির্ভূত শারীরিক সম্পর্ক রয়েছে এমন কেউ। সেই জারের সন্তান-ই হল জারজ। আইনত দেখলে অবৈধ সন্তান!

কথাগুলো নিঃসন্দেহেই নির্মম। কিন্তু পৃথিবীর বাস্তবতা কিছু কিছু ক্ষেত্রে লেখার হরফের চেয়েও নির্মম। এই ধরনের সম্পর্ক থেকে জন্ম নেওয়া অনেক শিশুই পারিবারিক স্নেহ থেকে বঞ্চিত হয়। কিন্তু যে পাঠক বিশেষজ্ঞা পল্লবী বার্নওয়ালকে চিঠি দিয়েছেন, তিনি কিন্তু তাঁর অবৈধ সন্তানের দায়িত্ব নিতে চাইছেন!

তার মানে এই নয় যে জটিলতা কমে গেল! উল্টে বাড়ল বই কমল না! কেন না, এই ভদ্রলোক বিবাহিত, তাঁর স্ত্রীর থেকেও সন্তান রয়েছে। অন্য দিকে, অপর যে মহিলার গর্ভে তাঁর সন্তান জন্মেছে, তিনিও বিবাহিতা। এমন ক্ষেত্রে কী করা যায়?


সবার শুরুতে পল্লবী একটা ব্যাপার স্পষ্ট করে নিতে চেয়েছেন। সাফ জানিয়েছেন যে দুই নৌকোয় পা দিয়ে চলা যায় না। তাই যদি এই রকম কোনও সম্পর্ক থাকে আর সেই সম্পর্ক থেকে জন্ম নেওয়া সন্তানকে স্বীকৃতি দিতে ইচ্ছা হয়, একটাই পথ খোলা রয়েছে সামনে- ঘটনাটা নিয়ে সোজাসুজি কথা বলতে হবে স্ত্রীর সঙ্গে!

কিন্তু সমস্যা হল এই যে এই সব ক্ষেত্রে অনেক সময়েই সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা তাঁদের বিয়ে ভাঙার ব্যাপারে স্বচ্ছন্দবোধ করেন না। যেমন এই ভদ্রলোকও জানিয়েছেন যে তিনি চান না তাঁর বা ওই মহিলার বিয়ে ভেঙে যাক!

অথচ ব্যাপারটা জানাজানি হলে হয় সঙ্গী/সঙ্গিনী ছেড়ে যাবেন, নয় তো অপর পক্ষের সঙ্গে সম্পর্ক রাখতে দেবেন না। কাজেই সত্যি বলতে কী, আইনত এবং সামাজিক দিক থেকে এক্ষেত্রে কিছুই করার নেই! যদি ইচ্ছা হয়, নিজের সঙ্গী/সঙ্গিনীকে সব খুলে বলা যেতে পারে। না হলে চুপ থাকাই ভালো, যেরকম চলছে সব কিছু, তেমনই চলতে দেওয়া হোক!

আর যদি দ্বিতীয় পক্ষ এবং অবৈধ সন্তানের প্রতিই টান বেশি হয়? সেক্ষেত্রে নিজের সঙ্গী/সঙ্গিনীর সঙ্গে একটা স্পষ্ট বোঝাপড়ায় আসতে হবে। তাঁদের জানাতে হবে যে অবৈধ সন্তানটির দায়িত্ব পালনে ঠিক কী কী পদক্ষেপ করা হচ্ছে!

Pallavi Barnwal

Published by:Ananya Chakraborty
First published: