লাইফস্টাইল

corona virus btn
corona virus btn
Loading

সহকর্মীদের প্রতি রয়েছে তুমুল যৌন আকর্ষণ? ব্যাপারটা আদৌ স্বাভাবিক কি না, বলছেন বিশেষজ্ঞ

সহকর্মীদের প্রতি রয়েছে তুমুল যৌন আকর্ষণ? ব্যাপারটা আদৌ স্বাভাবিক কি না, বলছেন বিশেষজ্ঞ

একজন ব্যক্তির কার প্রতি যৌন আকর্ষণ থাকবে আর কার প্রতি থাকবে না, তা নির্দিষ্ট করে বলা যায় না

  • Share this:

#কলকাতা: একজন ব্যক্তির কার প্রতি যৌন আকর্ষণ থাকবে আর কার প্রতি থাকবে না, তা নির্দিষ্ট করে বলা যায় না! কোনও সামাজিক নিয়মই তা বেঁধে দিতে পারে না!

কিন্তু এই পর্বে বিশেষজ্ঞা পল্লবী বার্নওয়াল যে বিষয়টি নিয়ে কথা বলছেন, তা একটু হলেও সংবেদনশীল! এ প্রসঙ্গে তিনি নাম উল্লেখ না করে তুলে ধরেছেন জনৈক ব্যক্তির কথা। সেই ব্যক্তি চিঠি মারফত তাঁর এক যৌন ফ্যান্টাসির কথা জানিয়েছেন পল্লবীকে। লিখেছেন যে তিনি বিবাহিত এবং তাঁর যৌনজীবন ঠিকঠাক ভাবেই পরিপূর্ণ- স্ত্রীর সঙ্গে যৌনতা নিয়ে তাঁর কোনও রকমের সমস্যা বা অভিযোগ নেই।

কিন্তু এই ব্যক্তি একটি বিষয়ে স্বস্তিবোধ করতে পারছেন না! তিনি লিখেছেন যে সহকর্মিণীদের প্রতি তাঁর একটা তুমুল যৌন আকর্ষণ রয়েছে। প্রায় রোজই তিনি তাঁদের কথা ভেবে হস্তমৈথুন করে থাকেন। সহকর্মিণীদের সঙ্গে নানা মুদ্রায় যৌনক্রীড়া করছেন- এই ভাবনা তাঁকে আনন্দ দেয় এবং আত্মরতিতে বাধ্য করে তোলে! তাঁর প্রশ্ন- এই ব্যাপারটা কি স্বাভাবিক? তিনি কোনও অন্যায় করছেন না তো?

সবার প্রথমে এ বিষয়ে পল্লবী একটা ব্যাপার সুনিশ্চিত করে দিয়েছেন। একজন মানুষ কখনই সারা জীবন নির্দিষ্ট একজন যৌনসঙ্গী নিয়ে পরিতৃপ্ত থাকতে পারে না। এক সময়ে সম্পর্কটা হয়ে যায় অভ্যাসের মতো, তখন আর তাতে আগের মতো উত্তেজনার বিদ্যুৎ খেলে যায় না! অতএব কেউ যদি তাঁর সহকর্মী বা সহকর্মিণীর প্রতি যৌন আকর্ষণ বোধ করেই থাকেন, সেটা অন্যায়ও নয়, অনৈতিকও নয়!

এ ছাড়া আরও একটা ব্যাপার আছে! যে ভাবে সহকর্মিণীদের যৌনক্ষেত্রে কল্পনা করছেন ওই ব্যক্তি, যে সব আসনে তিনি তৃপ্ত করতে চাইছেন নিজেকে, তা তাঁর যৌনতার বিশেষ ধরনকেই তুলে ধরে। সে ক্ষেত্রে এই ঘটনার মধ্যে নিন্দনীয় কিছু নেই।

তার পরেও কেবল একটি দিক থেকে সচেতন থাকার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞা। যদি এই কামনা দিনের পর দিন বেড়ে যেতে থাকে এবং নিজেকে সংযত করার কোনও উপায়ই খুঁজে পাওয়া না যায়, একমাত্র তখনই সমস্যা দেখা দিতে পারে। যতক্ষণ পর্যন্ত কেউ নিজেকে সংযত রাখতে পারছেন, নিজের উদ্দীপিত কামনার অভিঘাতে অন্য পক্ষের জন্য অবাঞ্ছিত পরিবেশের সৃষ্টি করছেন না, ততক্ষণ পর্যন্ত দুশ্চিন্তার কারণ নেই। তবে সংযমের বাঁধ ভেঙে গেলে পল্লবী মনোবিদের দ্বারস্থ হওয়ার উপদেশ দিচ্ছেন!

তার আগে পর্যন্ত উদ্দাম কল্পনা এবং হস্তমৈথুনের মাধ্যমে নিজেকে আনন্দ দেওয়া যুক্তিযুক্ত বলেই ব্যাখ্যা তাঁর!

Pallavi Barnwal
Published by: Ananya Chakraborty
First published: January 5, 2021, 4:04 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर