Home /News /life-style /
Covid 19: বুস্টার ডোজ নিয়ে বড় তথ্য! করোনার বাড়বাড়ন্তের মধ্য়ে বিস্তারিত জানাচ্ছে পরিসংখ্যান

Covid 19: বুস্টার ডোজ নিয়ে বড় তথ্য! করোনার বাড়বাড়ন্তের মধ্য়ে বিস্তারিত জানাচ্ছে পরিসংখ্যান

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

Covid 19: যে ভাবে একের পর এক করোনার ভ্যারিয়েন্ট আসছে সেই পরিপ্রেক্ষিতে শহুরে ভারতীয়রা কোভিড-১৯ বুস্টার ডোজ নিতে চান কি না সেবিষয়ে ইউগভ (YouGov's)-এর সাম্প্রতিক সমীক্ষা উঠে এসেছে।

  • Share this:

কোভিড-১৯-এর আসল ভ্যাকসিন কার্যক্ষমতা হারাতে শুরু করলে বুস্টার ডোজ নেওয়ার পরামর্শ করা হয়। বুস্টার আমাদের করোনভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। যাকে ভারতে প্রতিরোধমূলক ডোজ বলা হয় এবং এটি করোনার দ্বিতীয় ডোজের নয় মাস পরে দেওয়া যায়। তবে বুস্টার শট কিন্তু নতুন নয় এবং এটি যে শুধু কোভিড-১৯ সংক্রমণেই দেওয়া হয় এমনটা নয়। শিশু এবং প্রাপ্তবয়স্কদের অন্যান্য বিভিন্ন ভ্যাকসিনের জন্য বুস্টার শট দেওয়া হয়।

শহুরে ভারতীয়রা কীভাবে প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছেন

যে ভাবে একের পর এক করোনার ভ্যারিয়েন্ট আসছে সেই পরিপ্রেক্ষিতে শহুরে ভারতীয়রা কোভিড-১৯ বুস্টার ডোজ নিতে চান কি না সেবিষয়ে ইউগভ (YouGov's)-এর সাম্প্রতিক সমীক্ষা উঠে এসেছে। সংশ্লিষ্ট সমীক্ষায় ভারতে ১০১৩ জন শহরবাসীর মধ্যে অনলাইনে তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছিল। যেখানে দেখা গিয়েছে, যাঁরা ভ্যাকসিনের দুটি ডোজ নিয়েছিলেন তাঁদের মধ্যে ৭৪% মানুষ বিনা দ্বিধায় বুস্টার ডোজ নিতে ইচ্ছুক। আবার প্রতি পাঁচজনের মধ্যে একজন অর্থাৎ ১৮% মানুষ এই শট নিতে অনিচ্ছুক যেখানে এদের মধ্যে দশজনের মধ্যে একজন তাঁদের সিদ্ধান্তের ব্যাপারে অনিশ্চিত। সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে যে টায়ার ১ শহরের তুলনায় টায়ার ২ এবং ২ শহরে টিকা নিয়ে বেশি দ্বিধা রয়েছে।

প্রথম দুটি ডোজে আত্মবিশ্বাস

বেশিরভাগ মানুষ অর্থাৎ প্রায় ৬৪% আত্মবিশ্বাসী যে ভ্যাকসিনের প্রথম দুটি ডোজই যথেষ্ট। তাই তাঁরা প্রতিরোধমূলক ডোজ নিতে চান না। যদিও ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা সময়ের সঙ্গে চলে যেতে পারে। এপ্রসঙ্গে ফাইজারের সিইও বলেছেন, কোম্পানির ভ্যাকসিনের দুটি ডোজ কোভিডের ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের সংক্রমণের বিরুদ্ধে সুরক্ষা দিতে নাও পারে। তবে রোগের ভয়াবহতা কমিয়ে রোগীর হাসপাতালে ভর্তি হওয়া আটকাতে পারে।

আরও পড়ুন: এবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় বিক্ষোভকারীদের দখলে! রাজাপক্ষের পদত্যাগের দিকে তাকিয়ে শ্রীলঙ্কা

স্বল্পকালীন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় ভয়

সমীক্ষায় পাঁচজনের মধ্যে একজন বুস্টার ডোজের স্বল্পকালীন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় ভয় পান। ফ্লু শটের মতো কিছু অস্থায়ী লক্ষণ যেমন দু-এক দিনের জন্য হাত ফুলে যাওয়া, জ্বর, গা হাত পায়ে ব্যথা, মাথা ব্যথা এবং ক্লান্তিভাব থাকে। যদিও এই ধরনের উপসর্গ খুবই সাধারণ কিন্তু তার মানে এই নয় যে তাঁরা অসুস্থ। বরং, বুস্টার ডোজে যে তাঁদের ইমিউন সিস্টেম সাড়া দিচ্ছে এবং কোভিড-১৯-এর বিরুদ্ধে সুরক্ষা তৈরি করছে এটি তারই ইঙ্গিত দেয়।

দীর্ঘকালীন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

সমীক্ষাটিতে ১৭% মানুষ ভ্যাকসিনের দীর্ঘকালীন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নিয়ে চিন্তিত। যার মধ্যে রয়েছে থ্রম্বোসিস এবং থ্রম্বোসাইটোপেনিয়া সিন্ড্রোম যেখানে শরীরে রক্ত জমাট বাঁধার পাশাপাশি প্লেটলেট সংখ্যাও কমে যেতে পারে। অনেক সময়ে আবার পেরিফেরাল স্নায়ুতন্ত্র আক্রমণের মুখে পড়ে এবং মায়োকার্ডাইটিস নামে হৃৎপিণ্ডের প্রদাহও হতে পারে।

আরও পড়ুন: পদ্মা সেতু দেখতে এসে মারাত্মক দুর্ঘটনা! ঘটে গেল রক্তারক্তি কাণ্ড, শোরগোল চারিদিকে

বুস্টারের কার্যকারিতা নিয়ে সন্দেহ

ভারতের শহরের কিছু মানুষ বুস্টার ডোজের কার্যকারিতা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেন। যদিও, বিশেষজ্ঞদের মতে, কোভিড-১৯ বুস্টার ডোজ ভাইরাসের এক্স ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে লড়াই করতে বেশ কার্যকরী।

কী করা উচিত

১৩ শতাংশ মানুষ ঘুরতে যাওয়া সহ বিভিন্ন কারণের বাধ্যবাধকতায় প্রথম ডোজ নিয়েছিলেন। কিন্তু এখন বুস্টার ডোজ নিতে চাইছেন না। কিন্তু বাকি ৭৬% মানুষ চান যে সরকার বুস্টার ডোজ বাধ্যতামূলক করুক। যদিও এঁদের মধ্যে বেশিরভাগ মানুষই কোনও দ্বিধা ছাড়া বুস্টার ডোজ নেবেন বলে জানিয়েছেন। সুরক্ষিত থাকতে আমাদেরও কি তা-ই করা উচিত নয়?

Published by:Uddalak B
First published:

Tags: Covid ১৯

পরবর্তী খবর