লাইফস্টাইল

corona virus btn
corona virus btn
Loading

হৃদপিণ্ডে বসানো হবে রবারের ডিভাইজ, মাপা যাবে হৃদস্পন্দনের হার, যুগান্তকারী আবিষ্কার বিজ্ঞানীদের!

হৃদপিণ্ডে বসানো হবে রবারের ডিভাইজ, মাপা যাবে হৃদস্পন্দনের হার, যুগান্তকারী আবিষ্কার বিজ্ঞানীদের!
Representational Image

পুরোপুরি রাবারি ইলেকট্রনিক্সের তৈরি এই ডিভাইজ এ বার সরাসরি বসানো যাবে হৃদপিণ্ডে।

  • Share this:

#হিউস্টন: স্মার্টওয়াচ, পেসমেকারের প্রযুক্তিকে ছাপিয়ে এক নতুন ডিভাইজ তৈরি করলেন হিউস্টন বিশ্ববিদ্যালয়ের মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়াররা। পুরোপুরি রাবারি ইলেকট্রনিক্সের তৈরি এই ডিভাইজ এ বার সরাসরি বসানো যাবে হৃদপিণ্ডে। যা পরিমাপ করতে পারবে হৃদপিণ্ডের ইলেকট্রোফিজিওলজিক্যাল অ্যাক্টিভিটি, তাপমাত্রা, হৃদস্পন্দন ও অন্যান্য বিষয়গুলি।

পেসমেকার বা অন্যান্য কার্ডিয়াক ডিভাইজগুলির কিছু সীমাবদ্ধতা রয়েছে। এগুলি সাধারণত দৃঢ় বা অনমনীয় উপাদান দিয়ে তৈরি হয়, তাই হৃদপিণ্ডে বসাতে গিয়ে নানা সমস্যা দেখা দেয়। এ ছাড়া এতে যে প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়, তা একসঙ্গে খুব একটা বেশি তথ্য সংগ্রহ করতে পারে না। কিন্তু বায়োইলেকট্রনিক্স সম্পন্ন এই নতুন ডিভাইজ পুরোপুরি রবারের ইলেকট্রনিক উপাদান দিয়ে তৈরি করা হয়েছে। এতে এই ডিভাইজ হৃদপিণ্ডের কলা-কোষের সঙ্গে নিজেকে মানিয়ে নিতে পারবে। এবং তাপমাত্রা, হৃদস্পন্দন-সহ হৃদপিণ্ডের একাধিক গতিবিধি, রক্ত চলাচল সব কিছুর উপর নজর রাখতে পারবে।

এ বিষয়ে হিউস্টন বিশ্ববিদ্যালয়ের মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের অধ্যাপক শুনজিয়াং ইউ জানিয়েছেন, অনেকের হার্ট অ্যাটাক-সহ নানা হৃদরোগের প্রবণতা রয়েছে। এ ক্ষেত্রে এই ধরনের রোগীরা অনেক সময়ই এই বিষয়গুলি নজর-আন্দাজ করে দেন। অনেকে বুকে ব্যথা-সহ অল্পবিস্তর উপসর্গ এড়িয়ে যান। কিন্তু দ্রুত এই রোগের চিহ্নিতকরণ প্রয়োজন। নতুন এই ডিভাইজ খুব সহজেই এই ধরনের নানা রোগ নির্ণয় করতে পারে। বলে দিতে পারে হৃদপিণ্ডের গতিবিধি। কারণ ডিভাইজটি একই সময়ে হৃদপিণ্ডের একাধিক জায়গা থেকে বহু তথ্য জোগাড় করতে পারে। যে কোনও চিকিৎসা ও রোগ ডায়াগনসিসের ক্ষেত্রে হৃদপিণ্ডের ডাটা ট্র্যাক করতে পারে। তাই রোগীর পাশাপাশি চিকিৎসকদেরও বিশেষ সুবিধা হবে।

হিউস্টন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক দল জানাচ্ছে, এই ডিভাইজ তৈরির সময় বিস্তর পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়েছে। অনেক ক্ষেত্রেই কৃত্রিম ডিভাইজগুলি হৃদপিণ্ডের পেশি, কোষ বা কলাকে ক্ষতি করে দিতে পারে। তাই কার্ডিয়াক টিস্যুর খুঁটিনাটি পরীক্ষা করে এই ডিভাইজের উপাদানগুলিকে ডিজাইন করা হয়েছে। যাতে হৃদপিণ্ডে বসানোর পর আরও কোনও রকম সমস্যা না হয়। তাঁদের আশা, আগামী দিনে হৃদরোগের চিকিৎসাকে এক অন্য মাত্রা দান করবে এই ডিভাইজ।

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: November 5, 2020, 7:20 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर