• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • PARTNER IS ATTACHED TO ANY OTHER RELATION THESE MARKS OF BEHAVIOUR ARE VITAL ARC

Relationship: সঙ্গী কি অন্য সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছেন? বুঝবেন আচরণের এই লক্ষণগুলি থেকে

স্টেডি রিলেশনে থাকার পরও কেউ আরও একটি অতি গভীর বা ইমোশনাল সম্পর্কে জড়িয়ে পড়তেই পারেন

ইমোশনাল সম্পর্ক (Emotional Relationship) যখন-তখন তৈরি হতে পারে। তার জন্য কোনও বাঁধাধরা সময়ের প্রয়োজন পড়ে না। একটা স্টেডি রিলেশনে থাকার পরও কেউ আরও একটি অতি গভীর বা ইমোশনাল সম্পর্কে জড়িয়ে পড়তেই পারেন।

  • Share this:

ইমোশনাল সম্পর্ক (Emotional Relationship) যখন-তখন তৈরি হতে পারে। তার জন্য কোনও বাঁধাধরা সময়ের প্রয়োজন পড়ে না। একটা স্টেডি রিলেশনে থাকার পরও কেউ আরও একটি অতি গভীর বা ইমোশনাল সম্পর্কে জড়িয়ে পড়তেই পারেন। তবে তার কিছু লক্ষণ রয়েছে যেগুলি থেকে বোঝা সম্ভব পার্টনার অন্য কারও কথা ভাবছেন কি না সর্বক্ষণ। সেই রকম কিছু তথ্য তুলে ধরা হল!

লক্ষণ অনেক আছে, তবে একটি লক্ষণ এমন আছে যেটা খুব সহজেই ধরা যায়। যেমন দু’জনের চলতে থাকা সম্পর্কের মধ্যে যদি একজনকে সব ক্ষেত্রে অন্যজনের মনোযোগ নিজের দিকে টানবার জন্য কসরত করতে হয়, তা হলে বুঝে নিতে হবে একটা কিছু গণ্ডগোল হয় তো ঘটছে! হতে পারে সঙ্গী বাইরে কারও সঙ্গে ইমোশনাল সম্পর্কে জড়িয়েছেন। ফলে এদিকের কথা বিশেষ ভাবছেন না।

যে কোনও সম্পর্কে প্রতিটি কথা একে অপরকে খুলে বলা একটি স্বাস্থ্যকর সম্পর্কের মূল চাবিকাঠি। কিন্তু যদি এমনটা না হয় তাহলে বুঝে নিতে হবে কোথাও একটা ভুল হচ্ছে। সম্পর্কের বিশ্বাসযোগ্যতা আড়াল হচ্ছে।

এর আগে হয়তো এমনটা হত না! যেমন রোমান্টিক কথাবার্তা বা ফ্লার্টিং যা হাজার দুঃখ ভুলিয়ে দিতে পারত, হঠাৎ করে দেখা গেল সেই সব বন্ধ হয়ে গিয়েছে। সঙ্গী একটু খিটখিটে হয়ে গিয়েছেন। কোনও কথার জবাব তৎক্ষণাৎ না দিয়ে অন্যমনস্ক থাকছেন। তবে অনেক সময়ে এমন কারণ অন্য কিছুর জন্যও হতে পারে। এমন মুহূর্তে জোর না করাই ভাল, তাঁকে সময় দেওয়া বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

অনেক ক্ষেত্রেই দেখা গিয়েছে মানুষ নিজের প্রথম ভালবাসাকে ভুলতে পারে না। নতুন সম্পর্কে থেকেও মাঝে মাঝে সেই পুরনো দিনগুলিকে স্মৃতির কোণ থেকে খুঁজে বার করে। এমনটা হতেই পারে পাঁচ বছর পর আবার প্রাক্তনের সঙ্গে দেখা। আর তখনই সেই আগের ইমোশনাল সম্পর্কের শিকড়ে নতুন করে জল পড়ে, যা কি না নতুন করে সম্পর্কে শাখাপ্রশাখা বিস্তার করতে সাহায্য করে। যদি কথোপকথনের মাধ্যমে জানা যায় সঙ্গী বহু দিন পর প্রাক্তনকে দেখেছেন, তাহলে ওই দিকের পাল্লা ভারী হতেই পারে।

ভালবাসার সম্পর্ক চলাকালীন এমন পরিস্থিতি আসতেই পারে। তা বলে সেই সময় ঝামেলায় না জড়িয়ে সঙ্গীকে বোঝানো যেতে পারে। পিছনের দিকে না গিয়ে, সামনে এগিয়ে সুবিধা-অসুবিধা জিজ্ঞেস করা যেতে পারে। কিছু বিশেষ মুহূর্ত মনে করিয়ে দেওয়া যেতে পারে। অন্য কোথাও ইমোশনাল সম্পর্ক তৈরি হয়েছে বলে সেখানে অটুট ভালবাসা রয়েছে এমনটা না-ও হতে পারে। শেষে বলতেই হয়-অসুবিধা থাকবে কিন্তু সেগুলিকে গুছিয়ে নেওয়ার শক্তিও রাখতে হবে।

Published by:Arpita Roy Chowdhury
First published: