প্রয়োজন হতে পারে যে কোনও সময়ে, প্রাথমিক চিকিৎসার এই কৌশলগুলো জেনে রাখা ভাল

সবারই কিছু আপৎকালীন পরিষেবার কৌশল জেনে রাখা ভালো। যা যে কোনও সময়ে, যে কোনও জায়গায় কাজে লাগতে পারে

সবারই কিছু আপৎকালীন পরিষেবার কৌশল জেনে রাখা ভালো। যা যে কোনও সময়ে, যে কোনও জায়গায় কাজে লাগতে পারে

  • Share this:

স্কুল বা কলেজে ফার্স্ট এড বক্স তো রাখা থাকেই। ফার্স্ট এড বক্স থাকে অনেকের বাড়িতেও। যদিও অনেক ক্ষেত্রে সেই বক্স কী ভাবে ব্যবহার করতে হবে, সেটা জানা থাকে না। ফলে, কেউ যদি আচমকা অসুস্থ হয়ে পড়েন, তা হলে অনেকেই ঘাবড়ে যান। কিন্তু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার আগে প্রাথমিক চিকিৎসা দরকার। আর তার জন্য সবারই কিছু আপৎকালীন পরিষেবার কৌশল জেনে রাখা ভালো। যা যে কোনও সময়ে, যে কোনও জায়গায় কাজে লাগতে পারে।

১. যদি কেউ পড়ে গিয়ে আহত হন - এটা বয়স্ক আর শিশুদের ক্ষেত্রে বেশি হয়। যেখানে আঘাত লেগেছে, সেই জায়গা পরিষ্কার করে নিতে হবে। যদি রক্ত বেরোয়, জায়গাটা একটু চেপে রক্ত বা পুঁজ কিছু থাকলে বের করে দিতে হবে। যদি হাড় ভেঙে যায়, তখন সেই জায়গাটা একটা সাপোর্ট দিয়ে বেঁধে দিতে হবে। কার্ডবোর্ড, প্ল্যাঙ্ক ইত্যাদি ব্যবহার করা যেতে পারে।

২. যদি কেউ হঠাৎ অজ্ঞান হয়ে যান - খাওয়াদাওয়া বা ঘুম ঠিক মতো না হলে, মানসিক চাপ থাকলে বা রক্তচাপজনিত সমস্যা থাকলে অনেকেই অজ্ঞান হয়ে যেতে পারেন। কারও যদি পালস থাকে, কিন্তু অজ্ঞান হয়ে যান, তাঁকে বাঁ দিক করে কাত দিতে হবে। যাতে খাবার শ্বাসনালীতে ঢুকে না যায়। তবে ভুলেও অজ্ঞান ব্যক্তির মুখে কোনও খাবার বা জল দেওয়া উচিৎ নয়। যদি সেই ব্যক্তি ডায়াবেটিক হন, তা হলে তারঁ ব্লাড সুগার লেভেল আগেই দেখে নিতে হবে।

৩. বুকে ব্যথা হলে - এর জন্য প্রাথমিক সিপিআর স্কিল শিখে নিতে হবে। বুকে ব্যথা বা শ্বাসকষ্ট নিয়ে কেউ অজ্ঞান হলে প্রথমেই তাঁর দুই কাঁধে একটু চাপ দিয়ে সংজ্ঞা ফেরানোর চেষ্টা করতে হবে। যদি সেই ব্যক্তি কোনও সাড়া না দেন, তা হলে ঘাড়ের কাছটা ধরে থেকে তাঁর নাড়ি দেখতে হবে এবং অ্যাম্বুলেন্সে ফোন করতে হবে। যদি নিঃশ্বাস না পড়ে এবং নাড়িও না পাওয়া যায়, তা হলে হার্ট অ্যাটাকের একটা আশঙ্কা থাকতে পারে। দুই হাতের তালু দিয়ে সে ক্ষেত্রে বুকের মাঝখানে চাপ দিতে হবে। চাপ দেওয়ার সময় কনুই সোজা থাকবে।

৪. যদি কেউ বিদ্যুতের শক খান - প্রথমেই বিদ্যুৎ সরবরাহের মূল সুইচ অফ করে দিতে হবে। আহত ব্যক্তিকে বিদ্যুৎ অপরিবাহী কোনও বস্তু দিয়ে ধরে নিয়ে যেতে হবে অন্য জায়গায়। যদি ওই ব্যক্তি শ্বাস না নেন, নাড়ি না পাওয়া যায়, তাঁকে সিপিআর দিতে হবে। যেখানে শক লেগেছে সেই জায়গা পরিষ্কার গজের কাপড় বা কার্ডবোর্ড দিয়ে বেঁধে দিতে হবে। অবশ্যই ডাক্তারকে ফোন করতে হবে।

খেয়াল রাখতে হবে যে ফার্স্ট এইড বক্সে যেন সব রকমের উপাদান মজুত থাকে। প্রত্যেকটি জিনিস যেন স্টেরিলাইজ করা এবং পরিষ্কার থাকে।

Published by:Ananya Chakraborty
First published: