অতিমারীর জেরে বরবাদ হয়েছে ঘুম? হোটেল দিচ্ছে আরামে ঘুমানোর সুবর্ণ সুযোগ!

অতিমারীর জেরে বরবাদ হয়েছে ঘুম? হোটেল দিচ্ছে আরামে ঘুমানোর সুবর্ণ সুযোগ!

এক্ষেত্রে হোটেল বিশেষ কিছু প্যাকেজ দিচ্ছে যা আপনার এতদিনের জমে থাকা মানসিক চাপ ও অবসাদ কমিয়ে দেবে।

  • Share this:

#বেঙ্গালুরু: করোনাভাইরাস দীর্ঘ দিন ধরে আমাদের শরীর ও মনের উপরে গভীর প্রভাব ফেলেছে। বিশেষ করে যাঁরা বাড়ি থেকে কাজ করছেন তাঁদের পক্ষে এটা ধীরে ধীরে অবসাদ ডেকে আনছে। নিজে করোনায় আক্রান্ত হলে বা আশেপাশের কেউ আক্রান্ত হলে একটা বাড়তি চাপ এমনিতেই তৈরি হয়। তার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে চাকরি চলে যাওয়া, মাইনে অর্ধেক হয়ে যাওয়া এবং গৃহবন্দী থাকা ইত্যাদি। সেই সব কথা মাথায় রেখে কিছু হোটেল দিচ্ছে এক সুবর্ণ সুযোগ। দ্রুত জনপ্রিয় হয়ে ওঠা এই নতুন ধারার নাম হল স্লিপকেশন। অর্থাৎ ভ্যাকেশন এবং স্লিপ এই দুই শব্দ যোগ করেই এই নতুন শব্দ জন্মেছে। বেড়াতে গিয়ে বা কাজের সূত্রে হোটেলে থাকতে হয়। এ ক্ষেত্রে হোটেল বিশেষ কিছু প্যাকেজ দিচ্ছে যা আপনার এতদিনের জমে থাকা মানসিক চাপ ও অবসাদ কমিয়ে দেবে।

বেঙ্গালুরুর ইন্সটিটিউট অফ আইটিসি লাইফ সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি সেন্টার এবং একটি বিলাসবহুল হোটেল গোষ্ঠী জানিয়েছে যে এই ধরনের স্লিপ প্যাকেজ এই রকম অস্থির পরিস্থিতিতে জীবনযাপনের মান উন্নত করতে এবং কাজ ও জীবনের মধ্যে সামঞ্জস্য আনতে সাহায্য করবে। তাছাড়া এই প্যাকেজ ঘুমের প্যাটার্ন আবার সমে ফেরাতেও সাহায্য করবে বলে দাবি করা হয়েছে।

অতিমারীর জেরে বিভিন্ন পর্যটন কেন্দ্র অনেক দিন ধরে বন্ধ ছিল। এখন অল্পস্বল্প খুললেও হোটেল নির্বাচনের ক্ষেত্রে পর্যটকরা অনেক অনেক সজাগ হয়ে গিয়েছেন। যে হেতু করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আবার আছড়ে পড়েছে, তাই ভাল হোটেল বেছে নিয়ে সেখানে স্টেকেশন অর্থাৎ হাত পা ছড়িয়ে আরাম করাতেই বেশি স্বচ্ছন্দ বোধ করছেন অনেকেই। বিভিন্ন পেশার সঙ্গে যুক্ত বহু মানুষ স্লিপকেশনের এই আইডিয়াকে স্বাগত জানিয়েছেন। তাঁদের মনে হচ্ছে এর মধ্যে দিয়ে গেলে তাঁদের উৎপাদনশীলতা আরও বাড়বে এবং জীবনের ছন্দও ফিরে আসবে।

যে বিলাসবহুল হোটেলগুলি স্লিপ রিট্রিটের অফার দিচ্ছে তারা সঙ্গে রাখছেন বিশেষ মেনুও। যে সব খাবার খেলে সহজে ঘুম আসে, সেই সব খাবার রাখা হচ্ছে মেনুতে।

ভারত-সহ অন্যান্য দেশে ক্রমশ জনপ্রিয় হচ্ছে এই স্লিপ রিট্রিট। ওয়েলনেস রিসর্টগুলোতেও এই জাতীয় অফার দেওয়া হচ্ছে এখন।

Published by:Simli Raha
First published: