লাইফস্টাইল

corona virus btn
corona virus btn
Loading

৪০০-রও বেশি মানুষ বাদুড়ের স্যুপ খুঁজেছেন Zomato-য়, ২০২০-তে সব চেয়ে বেশি অর্ডার হয়েছে বিরিয়ানি!

৪০০-রও বেশি মানুষ বাদুড়ের স্যুপ খুঁজেছেন Zomato-য়, ২০২০-তে সব চেয়ে বেশি অর্ডার হয়েছে বিরিয়ানি!

Zomato-তে এই বছর সব চেয়ে বেশি অর্ডার হয়েছে ১ লাখ ৯৯ হাজার ৯৫০ টাকার খাবার।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: লকডাউন, ওয়ার্ক ফ্রম হোমের জেরে ঘরবন্দী জীবনে মানুষের ঝোঁক বেড়েছে বিরিয়ানিতে। অন্যান্য খাবারের তুলনায় অনেকটাই বেশি অর্ডার হয়েছে বিরিয়ানি। এমনই বলছে অনলাইন ফুড ডেলিভারি অ্যাপ Zomato-র সমীক্ষা।

তাদের তথ্য অনুযায়ী, ২০২০-তে ৯ লক্ষ ৮৮ হাজার ৯৪ জন Zomato-র মাধ্যমে ভেজ বিরিয়ানি অর্ডার করেছেন। এ ক্ষেত্রে যদিও ভেজ বিরিয়ানিকে ছাপিয়ে গিয়েছে চিকেন বিরিয়ানি। প্রতি এক প্লেট ভেজ বিরিয়ানির তুলনায় ৬ প্লেট চিকেন বিরিয়ানি অর্ডার হয়েছে।

করোনা, প্যানডেমিক, লকডাউন, কোয়ারান্টাইনের বছর ২০২০। তাই এ সবের মাঝে বছরের বেশিরভাগ দিনই এক্কেবারে ঘরবন্দী থেকেছেন মানুষজন। একাধিক রিপোর্ট বলছে, যার ফলে Zomato, Swiggy-র মতো অনলাইন ফুড ডেলিভারি অ্যাপগুলির ব্যবহার অনেকটাই বেড়েছে। যাঁরা রান্না করতে জানেন না, সময় পাননি বা পছন্দ করেন না, তাঁদের কার্যত বাঁচিয়েছে এই অ্যাপগুলি।

https://www.instagram.com/zomatoin/?utm_source=ig_embed

এমনকি লকডাউন শুরু হওয়ার পর পরই যে হারে মানুষ এই অ্যাপগুলি ব্যবহার করা শুরু করেন, তারও একটা রিপোর্ট এখানে প্রকাশ করা হয়েছিল। দেখা গিয়েছিল, বেশিরভাগ মানুষই বাড়ি থেকে বাইরে বের হতে না পারায়, রেস্তোরাঁয় যেতে না পারায়, পছন্দের খাবার বাড়িতে আনিয়ে নিচ্ছেন।

তবে, অন্য অকটি সমীক্ষা বলছে, মার্চের ১৪ তারিখ থেকে এপ্রিলের ১৬ তারিখ Zomato, Swiggy দেশের সব চেয়ে জনপ্রিয় দুই ফুড ডেলিভারি অ্যাপেরই গ্রাহক কমেছে। Zomato-র ক্ষেত্রে ৪৬.০৩ শতাংশ গ্রাহক কমে দাঁড়িয়েছে ৪১.০৭ শতাংশে। আর Swiggy-র ক্ষেত্রেও ৪৮.০৮ থেকে ৪২.০৪-এ সংখ্যাটা নেমেছে।

হতে পারে, খাবারের মাধ্যমে ভাইরাস ছড়ানো বা ডেলিভারি পার্সনের দ্বারা সংক্রমণ হওয়ার আশঙ্কা থেকে গ্রাহক সংখ্যা কমেছে। কিন্তু লকডাউনের পর পরই নো কনট্যাক্ট ডেলিভারি-সহ একাধিক পদক্ষেপ করে এই দুই সংস্থা। ডেলিভারি পার্সনের শরীরে তাপমাত্রা, তাঁর সম্প্রতি করোনা হয়েছে কি না বা রেস্তোরাঁগুলিতে কী কী সুরক্ষাবিধি মেনে রান্না করা হচ্ছে, সব কিছুর আপডেট দিতে থাকে তারা। ফুড ডেলিভারির পাশাপাশি Swiggy-র তরফে আবার গ্রসারি সার্ভিসও চালু করা হয়। যাতে খাদ্যসামগ্রী সহজেই বাড়িতে ডেলিভারি নেওয়া গিয়েছে।

Zomato-র বার্ষিক সমীক্ষা বলছে, দিল্লি, বেঙ্গালুরু, পুণেতে এই বছর সব চেয়ে বেশি অর্ডার হয়েছে মোমো। প্রায় ২.৫ মিলিয়ন মানুষ মোমো অর্ডার করেছেন। যার মধ্যে দিল্লি সব চেয়ে এগিয়ে। বেঙ্গালুরুর একজন ব্যাক্তি মোট ১৩৮০টা অর্ডার দিয়েছেন। প্রতিদিন তিনি ৪ বার করে খাবার অর্ডার দিতেন।

Zomato-তে এই বছর সব চেয়ে বেশি অর্ডার হয়েছে ১ লাখ ৯৯ হাজার ৯৫০ টাকার খাবার। আর সব চেয়ে কম টাকার অর্ডার হয়েছে ১০ টাকা। শুনতে অবাক লাগলেও তথ্য বলছে, ৪১৪ জন ব্যাট স্যুপ অর্থাৎ বাদুড়ের স্যুপ সার্চ করেছেন।

তবে, সব চেয়ে বেশি অর্ডার হয়েছে বিরিয়ানি। প্রতি ২০ মিনিটে একটা করে বিরিয়ানি অর্ডার হয়েছেই!

Published by: Pooja Basu
First published: December 31, 2020, 12:06 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर