এবার WhatsApp-এ McDonald's!

এবার WhatsApp-এ McDonald's!

এ বার ভারতে WhatsApp নির্ভর অর্ডারিং সিস্টেম নিয়ে এল জনপ্রিয় ফাস্ট-ফুড সংস্থা McDonald's।

এ বার ভারতে WhatsApp নির্ভর অর্ডারিং সিস্টেম নিয়ে এল জনপ্রিয় ফাস্ট-ফুড সংস্থা McDonald's।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: এ বার ভারতে WhatsApp নির্ভর অর্ডারিং সিস্টেম নিয়ে এল জনপ্রিয় ফাস্ট-ফুড সংস্থা McDonald's। এর জেরে WhatsApp-এর মাধ্যমেই খুব সহজে খাবারের অর্ডার করতে পারবেন দেশের গ্রাহকরা। বর্তমানে দিল্লির গ্রাহকদের জন্য উপলব্ধ রয়েছে এই পরিষেবা। সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, শীঘ্রই দেশের অন্যান্য শহরের গ্রাহকরাও এই সুবিধা পাবেন। এ বার বিশদে জেনে নেওয়া যাক এই হোয়াটস অ্যাপ নির্ভর অর্ডারিং সিস্টেম সম্পর্কে।

এ ক্ষেত্রে প্রথমে McDonald's-এর WhatsApp নম্বর অর্থাৎ ৯৯৫৩৯১৬৬৬৬ নম্বরে Hi লিখে পাঠাতে হবে গ্রাহকদের। এর পর প্রত্যুত্তরে একটি লিঙ্ক আসবে। এই লিঙ্কে ক্লিক করলেই গ্রাহকদের ফোন ব্রাউজারে একটি নতুন ট্যাব খুলে যাবে। এখানে সমস্ত মেনু ও তার মূল্যের বিস্তারিত তালিকা দেওয়া থাকবে। এ বার আইটেমগুলি অ্যাড টু কার্ট করতে হবে। অ্যাড টু কার্ট হয়ে গেলে গ্রাহকদের তাঁদের ঠিকানা ও যোগাযোগের জন্য ফোন নম্বর-সহ যাবতীয় তথ্য দিতে হবে। এ বার অর্ডার কনফার্ম হওয়ার পালা। একবার অর্ডার কনফার্ম হয়ে গেলে গ্রাহকদের WhatsApp নম্বরে পৌঁছে যাবে খাবার অর্ডারের বিল। এই বিষয়ে ফাস্ট-ফুড জায়ান্ট McDonald's-এর বক্তব্য, করোনা (Covid 19) পরিস্থিতিতে সামাজিক দূরত্বের বিষয়টি সম্পূর্ণ ভাবে সুনিশ্চিত করতেই এই WhatsApp নির্ভর ফুড অর্ডার ফিচার আনা হয়েছে। এতে কিছুটা হলেও সুবিধা পাবেন গ্রাহকরা। এর পাশাপাশি আউটলেটগুলিতে একটি ডিজিটাল মেনু ফিচার নিয়ে আসছে সংস্থা। এ ক্ষেত্রে ফোনের ক্যামেরার মাধ্যমে QR কোড স্ক্যান করে সম্পূর্ণ মেনু দেখা যাবে। সংস্থার আশা, এতে বারবার মেনু কার্ড ছোঁওয়া বা এই জাতীয় একাধিক সমস্যার সমাধান হতে পারে। সামগ্রিক ভাবে কিছুটা হলেও সংক্রমণের আশঙ্কাও কমতে পারে। করোনা পরিস্থিতিতে খানিকটা বাধ্য হয়েই গ্রাহক পরিষেবার ক্ষেত্রে পরিবর্তন আনতে হচ্ছে ব্যবসাগুলিকে। এক দিকে সংক্রমণের ভয় আর অন্য দিকে প্রাথমিক স্বাস্থ্যবিধির লম্বা নিয়ম, ভিড়ের ভয়, সামাজিক দূরত্বের বিধি-নিষেধ। একের পর এক প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হতে হয়েছে প্রতিটি ব্যবসায়িক ক্ষেত্রকে। এর জেরে প্রায় সবাই তাদের ডিজিটাল মাধ্যমগুলিকে আরও মজবুত করার চেষ্টা করছে। বছরের শুরুতেই জনপ্রিয় ফুড ডেলিভারি সংস্থা Zomato ও Swiggy-ও তাদের পরিষেবায় নানা নতুন ফিচার যুক্ত করেছে। ডেলিভারির ক্ষেত্রে প্রতিটি বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য দেওয়ার চেষ্টা করেছে এই সংস্থাগুলি। তা সে ডেলিভারি একজিকিউটিভের শরীরের তাপমাত্রা হোক বা রেস্তোরাঁর পরিস্থিতি- এগুলির মাধ্যমে গ্রাহকদের মনোবল আরও বাড়িয়ে তোলার চেষ্টা করা হয়েছে। যাতে তাঁরা অর্ডার করতে গিয়ে কোনও রকম দ্বিধায় না পড়েন, সেই বিষয়টি সুনিশ্চিত করার চেষ্টা করা হয়েছে। একইসঙ্গে ডিজিটাল পেমেন্ট মেথডগুলিকে আরও মজবুত করা হয়েছে। যাতে ডেলিভারি একজিকিউটিভ ও গ্রাহকের মধ্যে শারীরিক দূরত্বের বিষয়টি আরও বেশি করে সুনিশ্চিত করা যায়। উল্লেখ্য, এই একই লক্ষ্যেই এগিয়ে চলেছে McDonald। ফুড ডেলিভারি প্ল্যাটফর্মগুলির মধ্য দিয়ে ও নানা নতুন ফিচার লঞ্চের মাধ্যমে একই বার্তা পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করছে এই সংস্থা।
Published by:Akash Misra
First published: