Viral video: নাচতে নাচতে স্টেজেই জমিয়ে ঘুম খুদের! আদুরে ভিডিও ভাইরাল

Viral video: নাচতে নাচতে স্টেজেই জমিয়ে ঘুম খুদের! আদুরে ভিডিও ভাইরাল

নাচতে নাচতে স্টেজেই জমিয়ে ঘুম খুদের! স্লিপিং বিউটি আখ্যা দিলেন নেটিজেনরা!

খুদের সারল্য দেখে নেটিজেনরা এতটাই আপ্লুত হয়েছেন যে রীতিমতো স্লিপিং বিউটি নামে ভূষিত করা হয়েছে এই মেয়েকে।

  • Share this:

#বেজিং: নেপোলিয়ন নাকি দিন-রাত এত যুদ্ধ করতেন যে তাঁর নাওয়া-খাওয়ার সময় থাকত না। তাই তিনি ঘোড়ার উপরে বসে বসেই খানিক ঘুমিয়ে নিতেন। কেউ কেউ বলেন যে ঘুমোতে ঘুমোতেই একটু-আধটু যুদ্ধও করে নিতেন! তা এসব হচ্ছে ইতিহাসের কথা। কিন্তু দিব্যি একখানা সুন্দর নাচের অনুষ্ঠান করতে করতে কেউ ঘুমিয়ে পড়েছে, একথা সচরাচর শোনাও যায় না আর দেখাও যায় না। তবে সম্প্রতি এমনটা ঘটেছে চিনে। আর সেই ঘটনার প্রমাণ হল একটি ভিডিও, যা ইতিমধ্যেই ভাইরাল হয়ে গিয়েছে।

পূর্ব ঝেজিয়াং প্রদেশের একটি অনুষ্ঠানে একটি বাচ্চা মেয়ে নাচতে নাচতেই ঘুমিয়ে পড়েছে। খুদের সারল্য দেখে নেটিজেনরা এতটাই আপ্লুত হয়েছেন যে রীতিমতো স্লিপিং বিউটি নামে ভূষিত করা হয়েছে এই মেয়েকে। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে যে হাঁটু গেড়ে বসে আছে দুই খুদে। একজন নাচছে আর একজনের চোখ বন্ধ। প্রথমে অবশ্য দেখে মনে হচ্ছিল যে এটা বোধ হয় নাচেরই একটি অংশ। পরে বোঝা যায় যে চোখ বন্ধ করে ঘুমিয়েই পড়েছে মেয়ে।

অবশ্য পাশের মেয়েটি এই ঘুমন্ত সুন্দরীকে অনেকবার ডাকার চেষ্টা করেছে। যদিও বান্ধবীর ডাকে এক চুলও না নড়ে দিব্যি ঘুমিয়ে গিয়েছে এই মেয়ে। সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট এই ভিডিও শেয়ার করেছে। চার লক্ষেরও বেশি মানুষ এই ভিডিও দেখেছেন এবং কমেন্ট পড়েছে ৫০০-রও বেশি। মিষ্টি গোলাপি রঙের জামা পরা এই মেয়েটি দুপুরের খাবার খেয়ে শোয়ার সময় পায়নি। সম্ভবত দুপুরের লাঞ্চ ব্রেকের পরেই তাকে সেজেগুজে মঞ্চে নামতে হয়েছে। ফলে নাচতে নাচতেই ঘুমে জড়িয়ে এসেছে তাঁর চোখ।

মেয়ের মা জানালেন আরও চমকপ্রদ তথ্য। খুদের অভ্যেস আছে দুপুরে খেয়ে দেয়ে একটু গড়িয়ে নেওয়ার। আর সেটা হয়নি বলেই ক্লান্ত হয়ে গিয়েছে সে। আর অনুষ্ঠান শেষ হয়ে যাওয়ার পরেও অনেক ঠেলাঠেলি করেও তাকে ঘুম থেকে তোলা যায়নি। ভিডিও দেখে মজার মন্তব্যে ভরিয়ে দিয়েছেন নেটিজেনরা। কাজের সময়ে আমারও এই অবস্থা হয়, বলেছেন একজন। কেউ বলেছেন এ হচ্ছে সত্যিকারের স্লিপিং বিউটি। ঘুমিয়ে পড়া খুদের নাচের সঙ্গী মেয়েটির দুর্দশা ভেবেও মন্তব্য করেছেন অনেকে।

Published by:Piya Banerjee
First published: