লাইফস্টাইল

corona virus btn
corona virus btn
Loading

কৃত্রিম আলোয় গুলিয়ে যাচ্ছে দিন-রাতের তফাত, প্রজননে বাধা পাচ্ছে উপকূলীয় প্রবাল!

কৃত্রিম আলোয় গুলিয়ে যাচ্ছে দিন-রাতের তফাত, প্রজননে বাধা পাচ্ছে উপকূলীয় প্রবাল!
Representative Image. (AFP)

কারেন্ট বায়োলজি নামক পত্রিকায় প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্রে দেখানো হয়েছে যে কী ভাবে উপকূলীয় অঞ্চলে প্রবালের প্রজনন ক্ষমতা হারিয়ে যাচ্ছে কৃত্রিম আলোর জন্য বা বলা ভালো আলোকদূষণের জন্য!

  • Share this:

#কলকাতা: গত কয়েক সপ্তাহ ধরে বিভিন্ন সংবাদপত্র ও সোশ্যাল মিডিয়ায় সব চেয়ে বেশি যে বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে সেটি হল বায়ুদূষণ। এত আলোচনার একটিই মাত্র কারণ, তা হল আর কিছু দিনের মধ্যেই শুরু হয়ে যাবে দিওয়ালি বা দীপাবলী। বাজি থেকে বাতাসে ঠিক কতটা দূষন বাড়তে পারে, সেই নিয়ে অনেকেই চিন্তায় আছেন। যদিও এটা শুনলে আপনি অবাক হবেন দূষণ শুধু বাজির ধোঁয়া থেকে হয় না, হয় কৃত্রিম আলো থেকেও।

কারেন্ট বায়োলজি নামক পত্রিকায় প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্রে দেখানো হয়েছে যে কী ভাবে উপকূলীয় অঞ্চলে প্রবালের প্রজনন ক্ষমতা হারিয়ে যাচ্ছে কৃত্রিম আলোর জন্য বা বলা ভালো আলোকদূষণের জন্য! প্রবাল ছাড়া অন্যান্য সামুদ্রিক উদ্ভিদও এই আলোকদূষণের জন্য ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। গবেষণা বলছে যে আলোর ক্ষেত্রে প্রবাল অত্যন্ত স্পর্শকাতর। তাদের জীবনচক্র এবং অন্যান্য জৈবিক ক্রিয়া নির্ভর করে সূর্যের ও চাঁদের আলোর উপরেই। সমুদ্র-উপকূল অঞ্চল ও তার আশপাশে যে সব স্ট্রিট ল্যাম্প আছে, বিলবোর্ড এবং আকাশচুম্বী বাড়ি আছে, সেই সমস্ত জায়গা থেকে আলো এসে সমুদ্রে পড়ছে। এই আলো বিকেল পাঁচটা বা ছ'টা থেকে জ্বলতে শুরু করে। তখন স্বাভাবিক আলো থাকলেও এগুলো জ্বেলে দেওয়া হয়। আর এতে প্রবাল গোষ্ঠীর যে নিজস্ব বায়োক্লক আছে সেটা বিঘ্নিত হয়।

গবেষণায় দেখা গিয়েছে, কৃত্রিম আলোর জন্য সব চেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ক্যারিবিয়ান সমুদ্র, প্রশান্ত মহাসাগর ও ভারত মহাসাগর। এই মহাসমুদ্রগুলো ছাড়াও অন্যান্য জায়গায় যেখানে প্রবালপ্রাচীর আছে, সেখানে তারা ভুল সময়ে ডিম পাড়ছে। পরিণামে প্রবালের স্বাভাবিক প্রজননক্রিয়ার যে চক্র, সেটি বিঘ্নিত হচ্ছে।

সম্প্রতি উপকূলীয় অঞ্চলে মানুষের বসতিও অনেক বেড়ে গিয়েছে। তাই আলোর প্রয়োজনও বৃদ্ধি পেয়েছে। তাই যে সব সামুদ্রিক উপকূল এলাকা জনবসতির কাছে, সেখানকার প্রবালপ্রাচীর অনেক বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর কারণ হল, এলইডি থেকে যে নীল আলো বিচ্ছুরণ হয়, তা সমুদ্রের অনেক গভীর তলদেশ পর্যন্ত যেতে পারে। গবেষকরা তাই দাবি করছেন যে সারা বিশ্বে প্রবালপ্রাচীর বাঁচিয়ে রাখার জন্য প্রশাসনকে আরও অনেক বেশি তৎপর হতে হবে এবং যথাসম্ভব কৃত্রিম আলোর ব্যবহার কমাতে হবে!

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: November 9, 2020, 11:52 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर