Lego Toys: রূপান্তরকামীদের মর্যাদায় রামধনু রঙের সুন্দর পুতুল, তাতেও কি না বিতর্ক!

সমকামী, রূপান্তরকামীদের মর্যাদায় প্রাইড মাসের প্রাক্কালে অভিনব পুতুল আনল Lego, বিশ্ব জুড়ে বিতর্ক বাড়ল বই কমল না!

সমকামী, উভকামী এবং রূপান্তরকামীদের সংগ্রামকে সমর্থন জানানোর জন্যই এই খেলনা।

  • Share this:
#ওয়াশিংটন: চলতি বছরের জুন থেকে শুরু হয়ে যাবে প্রাইড মাস। এই গোটা মাস বিশ্ব জুড়ে নানা স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা কাজ করে চলবে সমকামী, উভকামী এবং রূপান্তরকামীদের স্বীকৃতির স্বার্থে। সেই লক্ষ্যেই এবার এক অভিনব পদক্ষেপ করল বিশ্বের প্রথম সারির খেলনা প্রস্তুতকারী সংস্থা Lego। যে সংস্থার হাত ধরে ব্লক চিনেছে দুনিয়া, তারা এবার সেই আঙ্গিকেই নিয়ে এল LGBTQ Toy। এই খেলনার সেটে ৩৪৬টি ব্লক আছে। যা জুড়ে ১১টি রামধনু রঙের পুতুল তৈরি করা যাবে। LGBTQ পতাকার রামধনু রঙের আদলে এই ১১টি পুতুল গায়ের রঙ পেয়েছে, সেই সঙ্গে হেয়ার স্টাইলের দিক থেকেও তারা আলাদা একে অপরের থেকে। ১ জুন থেকে Lego.com এবং Lego অফলাইন স্টোরে ৩৪.৯৯ ইউরো বা ভারতীয় মুদ্রায় ৩ হাজার ১২৩ টাকায় পাওয়া যাবে এই সেট। https://twitter.com/LEGO_Group/status/1395303326879735811?s=20 এই প্রসঙ্গে সংস্থার ভাইস প্রেসিডেন্ট ম্যাথু অ্যাশটনের (Matthew Ashton) বক্তব্যে একটু চোখ রাখতেই হয়। তিনি জানিয়েছেন যে সারা বিশ্ব জুড়ে সমকামী, উভকামী এবং রূপান্তরকামীদের সংগ্রামকে সমর্থন জানানোর জন্যই এই খেলনা বের করল Lego। সংস্থা জানাতে চায় যে এই সংগ্রামে তারা LGBTQ সম্প্রদায়ের সঙ্গে আছে। https://twitter.com/crit_lore/status/1395318816222089219?s=20 https://twitter.com/harryjonesxx/status/1395331067381485568?s=20 কিন্তু অ্যাশটন যা-ই বলুন না কেন, বিতর্ক সহজে জুড়াতে চাইছে না। অনেকেই Lego-র এই LGBTQ Toy দেখে রীতিমতো বিরক্ত এবং ক্ষুব্ধ হয়েছেন, নানা যুক্তি শানিয়ে সমালোচনার মুখে দাঁড় করাচ্ছেন তাঁরা সংস্থার উদ্যোগকে। এই প্রসঙ্গে সবার আগে উঠে আসছে কারা এই খেলনা পাবেন, সেই প্রশ্নটি। কিছু সোশ্যাল মিডিয়া ইউজার প্রশ্ন তুলেছেন যে সমাজে সাম্যের বার্তা দেওয়াই যদি উদ্দেশ্য হয়, তাহলে Lego এই খেলনা ১৮ বছরের উর্ধ্বের নাগরিকদের জন্য সীমাবদ্ধ রেখেছে কেন? তেমনই আবার আরেক নেটাগরিক সাফ জানিয়েছেন যে আদতে প্রাইড মান্থ এবং LGBTQ সম্প্রদায়ের আবেগ ব্যবহার করে কর্পোরেট সংস্থাগুলো যেমন মুনাফা ঘরে তোলে, Lego-ও সেই লক্ষ্যেই এই খেলনা বের করল। এই প্রসঙ্গে আরেক সোশ্যাল মিডিয়া ইউজারের সাফ বক্তব্য- সংস্থা কি LGBTQ প্রতিষ্ঠানে এই খেলনা বিনামূল্যে বিতরণ করবে? https://twitter.com/JustCinders/status/1395314901745389570?s=20 অবশ্য, শুধুই একমুখী বিরোধ আর বিতর্ক নয়, Lego-র এই উদ্যোগকে সমর্থনও করেছেন অনেকে, জানিয়েছেন যে এই খেলনা কিনে নিজের পরিবারের শিশুর হাতে তুলে দেওয়ার জন্য তাঁদের আর তর সইছে না!
First published: