সঙ্গমের চোটে ভাঙল বউয়ের শরীর! সেক্স ডল স্ত্রীকে ডিভোর্স দিচ্ছেন বডিবিল্ডার!

সঙ্গমের চোটে ভাঙল বউয়ের শরীর! সেক্স ডল স্ত্রীকে ডিভোর্স দিচ্ছেন বডিবিল্ডার!

ভেঙে যাচ্ছে, দিতে পারছে না যৌন আনন্দ; সেক্স ডল স্ত্রীকে ডিভোর্স দিচ্ছেন বডিবিল্ডার!

য়ুরির ভারি শরীরের চাপ এবং উদ্দাম যৌনতা মার্গোর কোমল শরীর সহ্য করতে পারেনি; পুতুলটা ভেঙে গিয়েছিল!

  • Share this:

#কাজাকিস্তান: সময়টা ২০২০ সালের নভেম্বর মাস। করোনাবিধির মাঝে তা বলে কিন্তু বিয়ের আনন্দ উদযাপনে কোনও রকম খামতি রাখেননি কাজাকিস্তানের সেলিব্রিটি বডিবিল্ডার য়ুরি তোলোচকো (Yuri Tolochko)। ছোট করে হলেও ধুমধাম হয়েছিল ভালোই, বিয়ের ভোজ খেয়ে খুশি হয়েছিলেন আমন্ত্রিতরাও। আর সেই সঙ্গে সারা দুনিয়ায় রটে গিয়েছিল খবর- সেক্স ডল মার্গোকে (Margo) বিয়ে করেছেন য়ুরি!

য়ুরি নিজের সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেল থেকে জানিয়েছিলেন যে বিয়ের পর প্রথম কয়েক মাস সব কিছু ঠিক ছিল। তার পরেই দেখা দেয় বিপত্তি! য়ুরির ভারি শরীরের চাপ এবং উদ্দাম যৌনতা মার্গোর কোমল শরীর সহ্য করতে পারেনি; পুতুলটা ভেঙে গিয়েছিল! তাই যৌনতৃপ্তির অন্য মাধ্যম খুঁজছিলেন য়ুরি! চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে এই মর্মে তিনি নিজের Instagram হ্যান্ডেলে যে ভিডিও পোস্ট করেছিলেন, তা এক বড়সড় ধাক্কা দিয়েছিল সবাইকে। কেন না, সেই ভিডিওয় য়ুরিকে এক ছাল ছাড়ানো মৃত মুরগির শরীরে যৌনসুখ খুঁজতে দেখা গিয়েছিল!

সম্প্রতি য়ুরি জানিয়েছেন যে তিনি আপাতত মুরগি নিয়েই সন্তুষ্ট থাকবেন! তবে জ্যান্ত বা মৃত মুরগি নিয়ে নয়! তাঁর চাই এক মানুষের মতো প্রমাণ আয়তনের চিকেন টয়। য়ুরির জবানবন্দি বলছে যে তেমন মনের মতো চিকেন টয় তিনি পেয়েও গিয়েছেন। এর নাভিদেশটি বেশ গভীর, তা যোনিদেশের কাজ করবে। পাশাপাশি, এই চিকেন টয়ের আছে পুরুষাঙ্গও। এই দুইয়ের সমন্বয় য়ুরিকে রীতিমতো উত্তেজিত করে তুলেছে। ফলে এখন তিনি মার্গোকে ডিভোর্স দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

তবে এই সিদ্ধান্তে আসতে তাঁর সময় লেগেছে বইকি! কেন না, একটা সময়ে মার্গোকে তিনি বেশ ভালোবাসতেন! কিন্তু এই বিয়ের মূল কারণ যা ছিল, সেই উদ্দেশ্য আপাতত চরিতার্থ হচ্ছে না। তাই অনেক ভেবে-চিন্তে য়ুরি তাঁর সেক্স ডলদের নিয়ে একটা হারেম খোলার কথা ভেবেছেন। জানিয়েছেন যে খুব তাড়াতাড়ি এই ডিভোর্সের বিষয়ে বিয়েতে উপস্থিত সবার সঙ্গে কথাও বলবেন তিনি।

মোদ্দা কথা, য়ুরি আপাতত নিজেকে শান্ত রাখতে চাইছেন অটোনোমাস সেন্সরি মেরিডিয়ান রেসপন্সের (Autonomous Sensory Meridian Response) মাধ্যমে। কোনও কিছুর স্পর্শে যখন আমাদের মাথা থেকে শরীরের সর্বত্র ধীরে ধীরে সুখের আমেজ ছড়িয়ে পড়ে, তাকেই বলা হয় ASMR বা অটোনোমাস সেন্সরি মেরিডিয়ান রেসপন্স। কিন্তু এক্ষেত্রে আসল মুরগি ব্যবহার করে তিনি তেমন সুখ পাননি। কাঁচা চামড়া অস্বস্তির কারণ হয়ে উঠলে নানা লোশন মাখিয়ে তা মোলায়েম করে নিতে হচ্ছিল। আর সেই জায়গা থেকেই তিনি চিকেন টয়ের ব্যাপারে বেশি উৎসাহী। কেন না, তাতে স্পর্শসুখ যেমন বেশি, তেমনই পশুর মৃতদেহ ব্যবহারের বিতর্কও এড়ানো যায়।

Published by:Piya Banerjee
First published:

লেটেস্ট খবর