Home /News /life-style /
Watermelon for Diabetes Patients|| মন চাইলেও তরমুজে কামড় দিতে সংশয়? চিন্তা নেই, দেখে নিন কী করবেন...

Watermelon for Diabetes Patients|| মন চাইলেও তরমুজে কামড় দিতে সংশয়? চিন্তা নেই, দেখে নিন কী করবেন...

Watermelon for Diabetes Patients: রক্তে শর্করার মাত্রা বৃদ্ধি পেলে ডায়াবেটিকদের শারীরিক অবনতি হতে শুরু করে। তাই তো মিষ্টি জাতীয় খাবার খেতে মানা করা হয়।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: সবচেয়ে হাইড্রেটিং ফলগুলোর মধ্যে অন্যতম তরমুজ। এতে ৯২ শতাংশ জলীয় উপাদান রয়েছে। গরমের দুপুরে ঠান্ডা এবং রসালো তরমুজে কামড় দিলে শরীরে তাজা বাতাস ঢোকার অনুভূতি মেলে।

রক্তে শর্করার মাত্রা বৃদ্ধি পেলে ডায়াবেটিকদের শারীরিক অবনতি হতে শুরু করে। তাই তো মিষ্টি জাতীয় খাবার খেতে মানা করা হয়। এখন প্রশ্ন হল তরমুজও তো মিষ্টি। তাহলে কি গ্রীষ্মকালে তরমুজের রস আসবাদন করতে পারবেন না ডায়াবেটিক রোগীরা?

তরমুজ এবং ডায়াবেটিস: তরমুজ জল এবং ফাইবারে ভরপুর। কিন্তু এর গ্লাইসেমিক ইনডেক্স বা জিআই কিছুটা বেশি। একটি ১০০ গ্রাম তরমুজে জিআই ৭২। কিন্তু যেহেতু তরমুজের গ্লাইসেমিক লোড খুব কম - প্রতি ১০০ গ্রামে মাত্র ২, তাই ডায়াবেটিস রোগীরা কোনও চিন্তা ছাড়াই পরিমিত পরিমাণে তরমুজ খেতে পারেন।

আরও পড়ুন: রোজ মাইক্রোওয়েভে 'এই' খাবার গরম করেন? পরিবারের সর্বনাশ হচ্ছে, আজই বন্ধ করুন...

আর যাঁদের টাইপ ২ ডায়াবেটিস আছে তাঁরা অন্যান্য ফলের মতো জলখাবারের সঙ্গে বা অন্য কোনও খাবারের সঙ্গে খেতে পারেন তরমুজ। টাইপ ২ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ব্যক্তি যদি তরমুজ খান, তাহলে তাঁদের উচ্চ গ্লাইসেমিক ইনডেক্স যুক্ত খাবার এড়িয়ে চলা উচিত। বরং তাঁরা তরমুজের সঙ্গে বাদাম, স্বাস্থ্যকর চর্বিযুক্ত খাবার এবং প্রোটিন জাতীয় খাবার খেতে পারেন।

তরমুজ খাওয়ার সুফল: গ্রীষ্মকালে আমাদের শরীরের নিয়মিত হাইড্রেশনের প্রয়োজন। এর জন্য ঠাণ্ডা তরমুজ খাওয়ার চেয়ে ভাল আর কী হতে পারে? এটা ভিটামিন সি, এ, বি৬-এর মতো পুষ্টি এবং পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, আয়রন, ফসফরাস, ফোলেট এবং ক্যালসিয়ামের মতো খনিজ পদার্থে ভরপুর। তরমুজ অ্যান্টিঅক্সিডেন্টগুলির দুর্দান্ত উৎস যা চুলের গুণমান উন্নত করতে, ত্বক মসৃণ করতে এমনকী ক্লান্তি থেকে মুক্তি দেয়। আয়ুর্বেদ মতে, তরমুজ ওজন কমাতে, মূত্রনালীর সংক্রমণ(ইউটিআই) উপশমে এবং হজমে সাহায্য করে।

তরমুজ রেসিপি: তরমুজের মতো সুস্বাদু ফল নানা ভাবে খাওয়া যায়। পপসিকেলস থেকে তরমুজের রস, স্মুদি, এই গ্রীষ্মে সবকটাই মন প্রাণের আরাম দেবে। তরমুজ স্যালাড, তরমুজ ককটেল, তরমুজ সালসা, তরমুজ আইসক্রিম, তরমুমের আচার এবং গ্রিলড তরমুজও গ্রীষ্মের দুপুরে অনন্য স্বাদ এনে দেবে।

আর যে সব ফল খেতে পারেন ডায়াবেটিস রোগীরা: কিছু গ্লো গ্লাইসেমিক ইনডেক্স ফল যা ডায়াবেটিস রোগীরা নিরাপদে পরিমিত পরিমাণে খেতে পারেন, তা হল ব্লুবেরি, স্ট্রবেরি, চেরি, বরই, পিচ, আপেল, নাশপাতি, কিউই, জাম, কমলা, জাম্বুরা এবং পেঁপে। এই সমস্ত ফলের জিআই ৬০ বা তার কম এবং রক্তে উচ্চ শর্করার জন্য সম্পূর্ণ নিরাপদ।

Published by:Shubhagata Dey
First published:

Tags: Diabetes, Watermelon

পরবর্তী খবর