লাইফস্টাইল

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

কোভিড স্বাস্থ্যবিধি মানছেন, করোনা নিয়ে বেশি চিন্তাও করছেন মহিলারা! জানাচ্ছে সমীক্ষা

কোভিড স্বাস্থ্যবিধি মানছেন, করোনা নিয়ে বেশি চিন্তাও করছেন মহিলারা! জানাচ্ছে সমীক্ষা

কর্মক্ষেত্র তো বটেই, অনেক সময়ে পুরুষরাও মহিলাদের চিন্তা-ভাবনাকে গুরুত্ব দেন না। কিন্তু এ ক্ষেত্রে এই ভুল করলে চলবে না।

  • Share this:

t#কলকাতা: বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের রিপোর্ট বলছে যে করোনা নিয়ে মহিলারা একটু বেশিই চিন্তিত হয়ে পড়েছেন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ডার্টমাউথ কলেজ, এ প্রসঙ্গে সাফ বলছে যে বিষয়টি উদ্বেগের। তাই একে যথেষ্ট গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে গবেষণার সময়ে। কলেজের দাবি, কর্মক্ষেত্র তো বটেই, অনেক সময়ে পুরুষরাও মহিলাদের চিন্তা-ভাবনাকে গুরুত্ব দেন না। কিন্তু এ ক্ষেত্রে এই ভুল করলে চলবে না।

কেন না, ফ্রান্স ও ইংলন্ডে এই সার্ভের পর দেখা গিয়েছে যে ৬৪% মহিলা করোনার বিস্তার ও সংক্রমণ নিয়ে চিন্তায় আছেন। আবার কানাডার ৪৯% মহিলাও একই রকম উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

খবর মোতাবেকে, অগস্টের মাঝামাঝি পলিটিক্স অ্যান্ড জেন্ডার জার্নালে একটি সার্ভে রিপোর্ট প্রকাশিত হয়। যার সূত্র ধরে বলা যায় যে আমেরিকার ৩৭% পুরুষ নির্দ্বিধায় জানান তাঁরা এই নতুন নর্ম্যাল পরিস্থিতি মেনে নিয়েছেন এবং তাঁরা এর মধ্যেই কাজে ফিরতে প্রস্তুত। অথচ ২৪% মহিলা এখনও এই নিয়ে নানা দ্বিধায় ভুগছেন বলে এই রিপোর্টের সার্ভে দাবি করেছে।

যদিও কোভিড নিয়ে নানা গবেষণা বলছে যে আদতে মহিলাদের তেমন চিন্তার কারণ না কি নেই! দেখা গিয়েছে কোভিড ১৯ সংক্রমণ পুরুষদের জন্য যতটা মারাত্মক রূপ ধারণ করতে পারে, মেয়েদের ক্ষেত্রে ঠিক ততটাও নয়। সার্ভে যদিও বলছে যে অতিমারী নিয়ে মহিলাদের উদ্বেগকে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে না। তার কারণ কর্মক্ষেত্রে উচ্চপদে আসীন মহিলার সংখ্যা কম। কিন্তু যে সব স্বাস্থ্যকর্মীরা নিজেদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এই অতিমারীর সঙ্গে লড়ছেন এবং মানুষের সেবা করছেন তাঁদের মধ্যে ৮০%ই মহিলা।

কর্মক্ষেত্রের বিষয়টি এ ক্ষেত্রে কেন বার বার ঘুরে-ফিরে আসছে, সেটা বুঝিয়ে বলা দরকার। গবেষকরা বলছেন হেলথকেয়ার এবং চিকিৎসাসংক্রান্ত অন্যান্য উচ্চপদে মাত্র ৩% মহিলা কাজ করেন। কর্মক্ষেত্রে তাঁদের গুরুত্ব কম থাকার জন্য এই অতিমারী নিয়ে ভাবার সুযোগ এবং সেই নিয়ে দুশ্চিন্তা করার সময় তাঁরা একটু বেশিই পাচ্ছেন। প্রতি দিনের জীবনে এবং কাজের দুনিয়াতেও তাই এই অতিমারী মহিলাদের জীবনে গভীর প্রভাব ফেলছে।

পাশাপাশি, ফ্রান্সের অডিও ভিজ্যুয়াল মিডিয়া নিয়ন্ত্রক লক্ষ্য করে দেখেছে যে জুন মাসে বিভিন্ন টিভি অনুষ্ঠানে মাত্র ৪১% মহিলাদের কথা বলার জন্য ডাকা হয়েছে। যাঁদের মধ্যে মাত্র ২১% স্বাস্থ্যকর্মী এবং বাকিরা সবাই মা, গৃহবধূ ইত্যাদি। তাই ডেবোরা জর্ডন ব্রুক্স, যিনি এই গবেষণার একজন সহ-লেখক, তিনি বলেছেন যে, ছেলেরা কোভিড-সুরক্ষা বজায় রাখা নিয়েও খুব একটা আগ্রহী নয়, তুলনায় মেয়েরা অনেক বেশি এই ব্যাপারে তৎপর। এর থেকেই স্পষ্ট যে মেয়েরা এই জীবাণু সংক্রমণ নিয়ে অনেক বেশি ভাবনা চিন্তা করছেন।

Published by: Simli Raha
First published: October 12, 2020, 12:59 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर