• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • কোভিড অবসাদে ভুগছেন? মোক্ষম দাওয়াই 'বিয়ার যোগা'

কোভিড অবসাদে ভুগছেন? মোক্ষম দাওয়াই 'বিয়ার যোগা'

করোনা পরবর্তী সময় উদ্বেগ আর মানসিক অবসাদ কমানোর জন্য শরীরচর্চার পাশাপাশি খেতে হবে অল্প অল্প বিয়ার।

করোনা পরবর্তী সময় উদ্বেগ আর মানসিক অবসাদ কমানোর জন্য শরীরচর্চার পাশাপাশি খেতে হবে অল্প অল্প বিয়ার।

করোনা পরবর্তী সময় উদ্বেগ আর মানসিক অবসাদ কমানোর জন্য শরীরচর্চার পাশাপাশি খেতে হবে অল্প অল্প বিয়ার।

  • Share this:

    #কম্বোডিয়া: কোভিড নিয়ে আতঙ্ক কমলেও, মনে মনে সেই দুশ্চিন্তা করছেন এখনও? নিউ নর্ম্যালের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিয়ে উঠতে পারেননি হয়তো! ফলে কোভিড পরবর্তী সময়েও রাতের ঘুম উড়েছে আপনার! কিন্তু কম্বোডিয়ার একদল শরীরচর্চা বিশেষজ্ঞ জানাচ্ছেন 'বিয়ার যোগা' করলে নাকি মিলতে পারে সুফল, এমনটাই দাবি তাঁদের।

    সম্প্রতি রয়টার্স একটি ভিডিও শেয়ার করেছে, যেখানে দেখা যাচ্ছে কম্বোডিয়ার রাজধানী ফোনম পেহে, টুবার্ডস ক্রাফট বিয়ার ব্রোয়ারি নামক একটি সংস্থা তাঁদের গ্রাহকদের মদ্যপান এবং সেই সঙ্গে মানসিক চাপ কমানোর জন্য একটি অভিনব নিয়ম চালু করেছে, নাম 'বিয়ার যোগা', তবে এটি কোনও সাম্প্রতিক ঘটনা নয়। ২০১৩ সালে, এটি মার্কিনমুলুকে বার্নিং ম্যান উৎসবে প্রথম শুরু হয়েছিল। তখন থেকেই এর জনপ্রিয়তা আকাশ ছোঁয়া।

    করোনা পরবর্তী সময় উদ্বেগ আর মানসিক অবসাদ কমানোর জন্য শরীরচর্চার পাশাপাশি খেতে হবে অল্প অল্প বিয়ার। বিয়ার ভর্তি গ্লাস থাকবে হাতে আর নাহলে আপনার মুখের সামনে। যোগ-ব্যায়াম করতে করতে খেতে হবে বিয়ার। নতুন এই শরীরচর্চার নাম দেওয়া হয়ছে 'বিয়ার যোগা'।

    শুধু স্থানীয় মানুষ নয়, বিদেশিদেরও উপভোগ করতে দেখা যায় এই ভিডিওটিতে। প্রতিটি ধাপের পর তাঁরা একবার করে চুমুক দিচ্ছিলেন বিয়ার গ্লাসে। মৃত্যুর একটিও খবর না পাওয়ার পর ১জানুয়ারি থেকে কম্বোডিয়ায় তুলে নেওয়া হয়েছিল লকডাউন। আর তারপরেই এই নয়া যোগার ভিডিও ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। তবে বিয়ার যোগা করে কিন্তু বেশ মজা পাচ্ছে, মনের মধ্যে দারুণ শান্তি লাগছে বলে জানিয়েছেন ওই 'বিয়ার যোগা' ক্লাসের এক ২৫ বছরের যুবতী।

    উল্লেখ্য, গতবছর করোনার দরুণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন অনেকেই, কেউ আর্থিক দিক দিয়ে তো কেউ মানসিক দিক দিয়ে। প্রাক-কোভিড কালে একটি সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে মানুষের মানসিক অবসাদ, উদ্বেগ, আতঙ্ক সবই বেড়ে গিয়েছিল প্রায় তিনগুন। চাকরি হারান থেকে সাংসারিক খরচার দোটানার মধ্যে পড়তে হয়েছিল বেশিরভাগ মানুষকেই। করোনার আগে ব্রিটেন, অস্ট্রেলিয়া, বেলজিয়াম- এই তিনটি দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষজ্ঞ দল মানুষের সমীক্ষা চালিয়েছিল। শুধু সমাজের অর্থনৈতিক ভাবে স্বচ্ছ্বল শ্রেণীই নয়, আর্থসামাজিক ভাবে পিছিয়ে থাকা শ্রেণির চরম অবসাদও ধরা পড়েছে সমীক্ষায়।

    Published by:Somosree Das
    First published: