হাই ব্লাড প্রেসারের পিছনে লুকিয়ে হাইপার টেনশন, মুক্তির উপায় জানুন

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Aug 27, 2019 07:52 PM IST
হাই ব্লাড প্রেসারের পিছনে লুকিয়ে হাইপার টেনশন, মুক্তির উপায় জানুন
Representational Image
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Aug 27, 2019 07:52 PM IST

#কলকাতা: উচ্চ রক্তচাপ বা হাই ব্লাড প্রেসার। চিকিৎসকরা বলছেন, উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা চলে খেয়াল খুশি মত। হাইব্লাড প্রেসারের সমস্যা থাকলেও তা নাও ধরা পড়তে পারে। এর পিছনে লুকিয়ে হাইপার টেনশন। ইন্ডিয়ান হার্ট স্টাডির সমীক্ষা বলছে, পশ্চিমবঙ্গেও এধরনের রোগী ৩৯.৮ শতাংশ। তাই খেয়ালখুশি মত চললেই কিন্তু মুশকিল।

বয়স যাই হোক, রক্তচাপের সমস্যা হতেই পারে। কিন্তু, যদি এমন হয়, আদতে কেউ বুঝতেই পারছেন না, তাঁর উচ্চরক্তচাপের সমস্যা আছে। কিন্তু পরীক্ষা করে দেখা গেল, রিপোর্ট অস্বাভাবিক। এমনকী, এও হতে পারে, বাড়িতে রক্তচাপ বেড়ে থাকলেও, চিকিৎসকের কাছে গেলে সব উধাও। আর উচ্চরক্তচাপের এই খেয়ালখুশি মত চলার পিছনে লুকিয়ে হাইপার টেনশন। তাই আপনাকে কিন্তু খেয়ালখুশি মত চললে হবে না। সম্প্রতি ইন্ডিয়ান হার্ট স্টাডি একটি সমীক্ষা করে।

- হাইপার টেনশনের কোনও ওষুধ খান না এরকম ১৮ হাজার ৯১৮ জনকে নিয়ে রক্তচাপ পরীক্ষা করেন গবেষকরা

- ৯ মাস ধরে ১৫ রাজ্যের ১২৩৩ জন চিকিৎসক এই সমীক্ষা করেন

- তাঁদের বাড়িতে টানা ৭দিন ও দিনে চারবার পরীক্ষা করা হয়

Loading...

রাজ্যের ক্ষেত্রে দেখা গিয়েছে,

- সমীক্ষা করা হয়েছিল পশ্চিমবঙ্গের ৮৬২ জনকে নিয়ে

- হাই ব্লাড প্রেসারে ভুগছেন কিন্তু তা ধরা পড়েনি, পশ্চিমবঙ্গে এরকম রোগী ৩৯.৮ শতাংশ

সমস্যা দু’ধরনের।

- মাস্কড হাইপারটেনশন অর্থাৎ ডাক্তারের কাছে রক্তচাপ স্বাভাবিক। কিন্তু বাড়িতে মাপলে রক্তচাপ বেশি ।

- অথবা হোয়াইট কোট হাইপারটেনশন অর্থাৎ ডাক্তারের কাছে রক্তচাপ অস্বাভাবিক। বাড়িতে মাপলে রক্তচাপ কম।

চিকি‍ৎসকরা বলছেন, তাই অনেকসময় সমস্যা চিহ্নিতই হয় না। রোগীরাও ভুল ওষুধ খান। ভুল ওষুধের ফলে

- হার্ট, কিডনি বা মস্তিষ্কের বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি থেকে যায়

- এমনকী মৃত্যুও হতে পারে

এই সমীক্ষায় আরও একটি বিষয় ধরা পড়েছে যে, সকালের থেকে বিকেলের দিকে ভারতীয়দের রক্তচাপ বেশি থাকে। এক্ষেত্রে কোন সময়ে কতটা ডোজের রক্তচাপ কমানোর ওষুধ খেতে হবে তাও চিকিৎসকদের ঠিক করতে হবে। রোগীদের বাড়িতেও নিয়মিত নজরদারি চালাতে হবে।

First published: 07:52:00 PM Aug 27, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर