লাইফস্টাইল

corona virus btn
corona virus btn
Loading

পেটে জমছে বাড়তি মেদ? ঘরে তৈরি এই কয়েকটি পানীয়তেই মিলবে সুফল!

পেটে জমছে বাড়তি মেদ? ঘরে তৈরি এই কয়েকটি পানীয়তেই মিলবে সুফল!

এই কয়েকটি পানীয় আপনার নাছোড়বান্দা বেলি ফ্যাট বা পেটের চর্বি কমাতে এবং ওজন কম করতে সাহায্য করবে।

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা মহামারীর জেরে ২০২০ হয়ে উঠেছে গৃহবন্দি থাকার বছর। লকডাউন চলাকালীন বন্ধ ছিল জিম থেকে স্যুইমিং পুল, তাই বাড়তি ওজন কী ভাবে কম হবে, সেই নিয়ে সবার চিন্তার শেষ নেই।

তবে কী জানেন, ওজন কমানো এক জিনিস আর পেটের চর্বি কমানো আর এক! এ অতি কঠিন এক চ্যালেঞ্জ। কারণ পেটের চর্বি ঝরিয়ে ফেলার মতো মুশকিল আর কিছুই নয়। তাই অনেকেই যেমন ওয়েট লুজ চ্যালেঞ্জ নিয়েছেন, তেমনই এক্সারসাইজ করা ও সঠিক ডায়েট মেনে চলাও এই বছরের অন্যতম ট্রেন্ড হিসেবে দেখা গিয়েছে।

যদি আপনি শরীরের বিশেষ কোনও অংশের মেদ কম করতে চান, তাহলে সেই প্রক্রিয়া দ্রুত করার জন্য ডায়েটে স্বাস্থ্যকর খাবার ও পানীয় রাখতে হবে। এই কয়েকটি পানীয় আপনার নাছোড়বান্দা বেলি ফ্যাট বা পেটের চর্বি কমাতে এবং ওজন কম করতে সাহায্য করবে। এগুলো খুব সহজে তৈরি করা যাবে বাড়িতেই, খরচও আহামরি কিছু হবে না।

লেবু জল

পেটের চর্বি কম করতে সকাল বেলা এক গ্লাস লেবু জলের কোনও বিকল্প নেই। লেবুতে আছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ও পেকটিন ফাইবার যা পেটে জমে থাকা ফ্যাটকে গলিয়ে দেয়। এক গ্লাস হালকা গরম জলে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস ও এক চা চামচ মধু মিশিয়ে প্রতি দিন সকালে পান করুন।

গ্রিন টি

স্বাস্থ্য এবং পুষ্টি, এই দুটোই যদি আপনি চান, তা হলে জেনে রাখুন, সে ক্ষেত্রে বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় পানীয় হল গ্রিন টি। এই পানীয়তে আছে ক্যাটেচিন্স নামক অ্যান্টি অক্সিডেন্ট, যা ফ্যাট বার্ন করে এবং মেটাবলিজম বাড়ায়। এই চা চিনি দিয়ে বা চিনি ছাড়া- দু'ভাবেই পান করা যায়। মেদ কমাতে গেলে সারা দিনে অন্তত ৩-৫ কাপ গ্রিন টি পান করতে হবে।

জিরে ভেজানো জল

রান্নাঘরে যে জিরে আপনি রোজ ব্যবহার করেন, সেই জিরে বা কিউমিন যদি জলে ভিজিয়ে রাখা যায়, তা হলে সেটা হজমশক্তি ও মেটাবলিজম বাড়িয়ে দেয়। এই পানীয় আপনার খিদে নিয়ন্ত্রণ করে এবং অতিরিক্ত খাওয়া-দাওয়া আটকে দেয়। এক গ্লাস জলে এক চা চামচ জিরে সারা রাত ভিজিয়ে রাখুন। পরের দিন সেই জল ছেঁকে নিয়ে খালি পেটে পান করুন। তা হলেই হবে!

অ্যালোভেরা জুস

অ্যালোভেরা একটি চমৎকার জিনিস। এতে খনিজ আর অ্যান্টি অক্সিডেন্ট রয়েছে প্রচুর পরিমাণে। এটি আপনার হজম ক্ষমতা বাড়ায় ও ওজন কমাতে সাহায্য করে। পানীয়ের স্বাদ যদি আপনার ভালো না লাগে, তাই প্রয়োজন হলে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস ও মধু মিশিয়ে নিতে পারেন।

গ্রিন কফি

গ্রিন কফি কেন? এমনি কফি কী দোষ করল? তা হলে শুনে নিন- এতে আছে ক্লোরোজেনিক অ্যাসিড যা ওজন কমায় এবং জমে থাকা ফ্যাটকে এনার্জিতে রূপান্তরিত করে। এটিও একটি অ্যান্টি অক্সিডেন্ট যা স্যাশেতেও সহজলভ্য। আর যখন আপনাকে করে তুলছে নির্মেদ, সুন্দর- তখন আপনার ইনস্ট্যান্ট কফির চেয়ে ঢের গুণ ভাল নয় কি?

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: September 22, 2020, 5:34 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर