• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • করোনাকালে বাসে ট্র্যাভেল করার পরিকল্পনা? মাথায় রাখতেই হবে এই নিয়মগুলো!

করোনাকালে বাসে ট্র্যাভেল করার পরিকল্পনা? মাথায় রাখতেই হবে এই নিয়মগুলো!

Photo- File

Photo- File

করোনা তো এখনও যায়নি। করোনার ভ্যাকসিনও কবে পাওয়া যাবে সে নিয়ে তেমন কোনও নিশ্চয়তা পাওয়া যায়নি। তাই এই সময় বাসে ওঠার জন্য এই নিয়মগুলি মেনে চলা জরুরি। সে যেমন দূরপাল্লার ভ্রমণের ক্ষেত্রে, তেমনই শহরের মধ্যেও।

  • Share this:

মার্চের মাঝামাঝি থেকে এ দেশে করোনার প্রভাব বাড়তে থাকে। যার জেরে মার্চের শেষের দিক থেকে গোটা দেশে শুরু হয় লকডাউন। বন্ধ হয়ে যায় দোকানপাট। বন্ধ হয়ে যায় যানবাহন চলাচল। স্তব্ধ হয়ে যায় সব কিছু। অত্যাবশ্যকীয় পণ্য ছাড়া কিছুই সে ভাবে মেলেনি সে সময়ে। শহরের এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্তে যেতেও বিশেষ অনুমতির প্রয়োজন পড়েছে।

ব্যবসায় ক্ষতি, চাকরি চলে যাওয়া, পরিযায়ী শ্রমিকদের ঘরে ফিরতে সমস্যা-সহ একাধিক কারণে জুন মাসের শুরু থেকে আনলক শুরু হয়। শুরু হয় যানবাহন চলাচল। শুরু হয় পাবলিক ট্রান্সপোর্ট। আর তার পরেই কার্যত হাঁফ ছেড়ে বাঁচেন সকলে। বর্তমানে প্রায় সমস্ত সেক্টরেরই অফিস খোলা। মোটের উপরে স্বাভাবিক পরিস্থিতি। কিন্তু করোনা তো এখনও যায়নি। করোনার ভ্যাকসিনও কবে পাওয়া যাবে সে নিয়ে তেমন কোনও নিশ্চয়তা পাওয়া যায়নি। তাই এই সময় বাসে ওঠার জন্য এই নিয়মগুলি মেনে চলা জরুরি। সে যেমন দূরপাল্লার ভ্রমণের ক্ষেত্রে, তেমনই শহরের মধ্যেও।

১. অনেক বাস সার্ভিসই বর্তমানে অনলাইন টিকিট কাটার সুবিধে দিচ্ছে। যদি এমন সুবিধে থাকে, তা হলে অবশ্যই বেরোনোর পরিকল্পনা করে আগে থেকে টিকিট কেটে নিলে ভালো। তা হলে কারও সোজাসুজি কনট্যাক্টে আসার সম্ভাবনা থাকবে না।

২. ব্যাগে অবশ্যই ব্যক্তিগত হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখলে ভালো। রাখা উচিৎ অতিরিক্ত মাস্কও। এতে মাস্ক রাস্তায় ছিঁড়ে গেলে বিপদে পড়ার আশঙ্কা থাকবে না।

৩. পারলে বাসে ওঠার আগে নিজের তাপমাত্রা মেপে নিলে ভালো। এতে নিজের কাছে নিশ্চিত থাকা যায়।

৪. অনেকেই মাস্ক পরেন, কিন্তু নাকের উপরের অংশ খোলা থাকে বা নাক থেকে নেমে যায় মাস্ক। এতে কাজের কাজ কিছু হয় না। তাই ঠিক ভাবে মাস্ক পরা খুব জরুরি। পাশাপাশি অনেক সময়ে বাসে ভিড় হলে মনে হয় নিশ্বাস নিতে অসুবিধা হচ্ছে, মাস্ক খুলে ফেললে ভালো। কিন্তু সে সময়ে অবশ্যই সাময়িক ভাবে মাস্ক না খোলাই উচিৎ হবে। অন্যথায় বিপদ হতে পারে।

৫. বাসে ওঠার আগে এবং বাস থেকে নামার আগে অবশ্যই হাতে স্যানিটাইজার লাগিয়ে নিলে ভালো।

৬. ব্যাগে মাস্ক ও স্যানিটাইজারের সঙ্গে টিস্যু পেপার রাখলেও ভালো। যদি হাঁচি, কাশি হয় তা হলে অবশ্যই টিস্যু পেপার ব্যবহার করা উচিৎ।

৭. যদি দূরে কোথাও যাওয়ার থাকে, তা হলে নিজস্ব চাদর, জলের বোতল সঙ্গে নিয়ে নেওয়া উচিৎ। কারণ বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই বর্তমানে কোনও বাস কর্তৃপক্ষের তরফে চাদর দেওয়া হচ্ছে না। যদিও দেওয়া হয়, তা কতটা স্যানিটাইজ করা জানা যাবে না। তাই নিজের জিনিস নিয়ে যাওয়া ভালো।

৮. সব কিছুর পাশাপাশি রাজ্যের তরফে দেওয়া করোনা-নির্দেশিকা ও বাস কর্তৃপক্ষের দেওয়া নির্দেশিকা জেনে তার পর ট্র্যাভেল করা ভালো।

এগুলো তো গেল বাসে করে ট্র্যাভেল করতে গেলে কী করা উচিৎ! এ বার জেনে নেওয়া যাক কী কী করা উচিৎ নয়!

১. শরীর খারাপ লাগলে ট্রাভেল করা উচিৎ নয়। বিশেষ করে যদি জ্বর, সর্দি বা কাশির মতো কোনও উপসর্গ থাকে।

২. অনেকেরই অভ্যাস থাকে মাঝেমাঝেই মুখ, নাক বা চোখে হাত দেওয়া। সেগুলি থেকে বিরত থাকা উচিত। কারণ কোথায় কখন হাত দেওয়া হচ্ছে, স্যানিটাইজ করা হচ্ছে কি না তা না দেখে মুখে, নাকে বা চোখে হাত না দেওয়াই উচিৎ।

৩. বাসের ভিতরে থাকলে অনেকেই মাস্ক খুলে রাখেন। সেটা করা উচিৎ নয়। দূরে কোথাও গেলে মনে হতেই পারে এতক্ষণ মাস্ক পরে থাকা সম্ভব হচ্ছে না। কিন্তু তবুও মাস্ক না খোলাই উচিৎ।

৪. বাসে থাকা বিভিন্ন জিনিসে হাত না দেওয়া ভালো।

৫. বাসের ভিতরে ব্যবহার করা টিস্যু, মাস্ক বা গ্লাভস ফেলে না রাখলেই ভালো, কারণ সেগুলি থেকে ভাইরাস ছড়াতে পারে।

Published by:Elina Datta
First published: