অতিরিক্ত সোডা বা নরম পানীয়ে কমতে পারে প্রজনন ক্ষমতা, জানাচ্ছে সমীক্ষা!

অতিরিক্ত সোডা বা নরম পানীয়ে কমতে পারে প্রজনন ক্ষমতা, জানাচ্ছে সমীক্ষা!

অতিরিক্ত সোডা বা নরম পানীয়ে কমতে পারে প্রজনন ক্ষমতা, জানাচ্ছে সমীক্ষা!

বিজ্ঞানীদের মতে অতিরিক্ত সোডা গ্রহণের ফলস্বরূপ প্রজনন ক্ষমতা হারিয়ে ফেলতে পারে পুরুষ ও মহিলা দু'জনেই।

  • Share this:

শরীরে অতিরিক্ত সোডা তৈরি করতে পারে জটিল শারীরিক সমস্যা। প্রভাব পড়তে পারে মানুষের প্রজনন ক্ষমতার উপরেও। সম্প্রতি বিজ্ঞানীদের একটি গবেষণা থেকে পাওয়া গিয়েছে এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য। শুধু সোডাই নয়, শারীরিক ক্ষতিসাধনের ক্ষমতা রয়েছে যে কোনও রকম কৃত্রিম শর্করাজাতীয় পদার্থের। যে কোনও রকম নরম পানীয় অথবা বহুল প্রচলিত সোডায় চিনির বিকল্প হিসাবে ব্যবহৃত হয় এই কৃত্রিম শর্করা। বিজ্ঞানীরা আরও জানিয়েছেন, এই সোডা বা নরম পানীয়ে থাকে বিষাক্ত রাসায়নিক। যে রাসায়নিক শরীরে প্রবেশ করলে, শরীরের একাধিক সমস্যাকে কয়েকগুণ পর্যন্ত বাড়িয়ে দিতে পারে।

কিন্তু কী ধরনের জটিল শারীরিক সমস্যার মুখোমুখি হতে পারে মানুষ? বিজ্ঞানীদের মতে অতিরিক্ত সোডা গ্রহণের ফলস্বরূপ প্রজনন ক্ষমতা হারিয়ে ফেলতে পারে পুরুষ ও মহিলা দু'জনেই। ফলত যে সমস্ত দম্পতি ভবিষ্যতে সন্তানের জন্য সুরক্ষিত ও নিরাপদ পরিকল্পনা নিতে চলেছেন, তাদের অবিলম্বে পানীয় হিসাবে যে কোনও রকম সোডা ও নরম পানীয় পরিত্যাগ করা উচিত বলেই মনে করছেন বিজ্ঞানীরা।

শর্করাজাতীয় এই সকল পানীয় বর্তমানে পুরুষ ও মহিলা উভয়ের মধ্যেই বেশ জনপ্রিয়। যে কোনও সময়ে এই ধরনের পানীয় গ্রহণ করতে পুরুষ ও মহিলা উভয়েই বেশ পছন্দ করে থাকেন। যাবতীয় সমস্যার উৎসমুখ হিসাবে সেই জায়গাটির প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন বিজ্ঞানীরা। তাঁদের মতে, এই পানীয়ের অত্যধিক জনপ্রিয়তা পুরুষ মহিলা নির্বিশেষে সকলকেই বাধ্য করে এই পানীয় গ্রহণে। দীর্ঘ দিন ধরে এই পানীয় গ্রহণের ফলে পুরুষের প্রজনন ক্ষমতায় প্রভাব পড়ে। তাদের শুক্রাণুর সংখ্যা কমে যায়। শুক্রাণু নষ্টের সম্ভাবনাও প্রবল। সোডা মানুষের শরীরে ক্ষারের সঙ্গে বিক্রিয়া করে। পুরুষের প্রজনন ক্ষমতায় এই ক্ষারের যে ভূমিকা থাকে, তা নষ্ট করে শরীরে অতিরিক্ত সোডার পরিমান। সোডার মধ্যে থাকা আ্যাসপার্টেম (Aspartame) পুরুষের শরীরে থাকা এনডোক্রিন ( Endocrine) গ্ল্যান্ডে প্রভাব ফেলে শরীরে হরমোনের ভারসাম্যে বিঘ্ন ঘটায়। মহিলাদের ক্ষেত্রেও এর অন্যথা হয় না৷ একটি গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে সকল মহিলাকে প্রজননের জন্য চিকিৎসা করাতে হয়েছে, তাদের অধিকাংশই দীর্ঘ দিন ধরে সোডা বা অন্য ধরনের নরম পানীয় গ্রহণ করতে অভ্যস্ত। প্রজনন সম্পর্কিত বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার ক্ষেত্রেও অসুবিধা করে থাকে শরীরে সোডার অত্যধিক পরিমাণ।

শুধুমাত্র প্রজনন ক্ষমতা কমিয়ে দেওয়াই নয়, শরীরে সোডার অত্যধিক প্রভাব স্থূলতাজনিত সমস্যা তৈরি করতে পারে। এছাড়া হৃদস্পন্দন জনিত সমস্যার ক্ষেত্রেও সোডা দায়ী বলে মনে করেছেন অনেক বিজ্ঞানী। মেটাবলিজমে অসুবিধা, ওজন বৃদ্ধি ও ইনসুলিন প্রতিরোধে হেরফের ঘটিয়ে থাকে শরীরে সোডার অতি-উপস্থিতি।

Published by:Simli Raha
First published: