ওজন কমানো-ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ, এরোবিক এক্সারসাইজের জুড়ি নেই

ওজন কমানো-ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ, এরোবিক এক্সারসাইজের জুড়ি নেই

প্রতীকী ছবি

সম্প্রতি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা হু (WHO) একটি অত্যন্ত জরুরি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। সেই বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী সুস্থ ও নীরোগ জীবনের জন্য প্রত্যেকের উচিৎ সপ্তাহ পিছু অন্তত ১৫০ মিনিট হালকা বা ভারী কোনও শারীরিক কসরত করা জরুরি।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: সম্প্রতি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা হু (WHO) একটি অত্যন্ত জরুরি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। সেই বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী সুস্থ ও নীরোগ জীবনের জন্য প্রত্যেকের উচিৎ সপ্তাহ পিছু অন্তত ১৫০ মিনিট হালকা বা ভারী কোনও শারীরিক কসরত করা! সবার হয় তো হুয়ের এই কথা জানা নেই। তবে করোনার প্রভাব এড়াতে অনেকেই ফিটনেসের ওপর একটু বেশি জোর দিচ্ছেন। দেখা যাচ্ছে এক্সারসাইজ বেছে নেওয়ার ক্ষেত্রে অনেকেই এরোবিক এক্সারসাইজ বেছে নিচ্ছেন। এর নাম শুনেই বোঝা যাচ্ছে যে এই এক্সারসাইজ করতে গেলে অক্সিজেনের প্রয়োজন হয়। করার সময় অক্সিজেন গ্রহণের মাত্রাও বেশি থাকে বলে এটা কার্ডিও ভাস্কুলার ফিটনেস বা হার্টের অবস্থাও ভাল রাখে।

ফিটনেস বিশেষজ্ঞরা বলছেন শুধু কার্ডিও নয়, এরোবিক এক্সারসাইজের অনেক সুফল আছে। ওজন নিয়ন্ত্রণ থেকে শুরু করে ডায়াবেটিস (Diabetes) সামলে রাখা, অনেক ক্ষেত্রেই এরোবিক এক্সারসাইজ খুব কাজে আসে। যদিও এটা ভাবার প্রয়োজন নেই যে এরোবিক এক্সারসাইজ মানে প্রচুর লাফালাফি আর সাঙ্ঘাতিক কঠিন কোনও এক্সারসাইজ। বাগান করা, নাচ করা, জলের এরোবিক বা জোরে হাঁটা- এগুলো সবই মধ্যম মানের এরোবিক এক্সারসাইজ।

মধ্যম থেকে আরেকটু এগোলেই সামান্য জটিল এরোবিক এক্সারসাইজ হয়ে যায়। এতে ঘাম একটু বেশি ঝরে। এই জাতীয় এক্সারসাইজের মধ্যে আছে দৌড়নো, সাঁতার, টেনিস, সাইক্লিং, জাম্পিং রোপ, পাহাড় চড়া ইত্যাদি।

তবে যে কোনও ধরনের এরোবিক এক্সারসাইজই শরীর সুস্থ রাখার জন্য ভাল। যদিও মধ্যম মানের বা মডারেট এরোবিক এক্সারসাইজ সব দিক থেকে সবার জন্য ভাল। বিশেষ করে বয়স্ক মানুষ যাঁরা, তাঁরা এটা করতেই পারেন। হাই ইনটেনসিটি এক্সারসাইজের ক্ষেত্রে প্রশিক্ষণ ও কিছু ক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ লাগে। এরোবিক এক্সারসাইজে তার প্রয়োজন নেই। নিয়মিত অন্ততপক্ষে ৩০ মিনিট করলে অনেক সুফল পাওয়া যায়। যার মধ্যে সর্বপ্রথম হল ওজন কম করা। এতে ফ্যাট বার্ন হয়, পেশী সুগঠিত হয়।

তবে শুধু ওজন কম করাই এরোবিক এক্সারসাইজের কাজ নয়। হার্ট ও ফুসফুস ভাল রাখে এই এক্সারসাইজ। কারণ আগেই বলা হয়েছে যে এরোবিক এক্সারসাইজ কার্ডিও হিসেবে খুব ভালো। অক্সিজেনের মাত্রা শরীরে বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য এবং রক্তচাপ (Blood Pressure) নিয়ন্ত্রণে রাখে বলেই এটি হার্ট ও ফুসফুসকে সুরক্ষিত রাখে।

সম্প্রতি একটি গবেষণা বলছে যে নিয়মিত এরোবিক এক্সারসাইজ করলে শরীর থেকে DICER বলে একটি হরমোন নিঃসৃত হয়। এই হরমোন একটি অ্যান্টিএজিং উপাদান হিসেবে কাজ করে এবং ওজন বেড়ে যাওয়া নিয়ন্ত্রণ করে। এটি বিভিন্ন মেটাবলিজম সংক্রান্ত উপসর্গ যেমন ডায়বেটিস ও কোলেস্টেরল ইত্যাদিও নিয়ন্ত্রণে রাখে।

Published by:Shubhagata Dey
First published: