Home /News /life-style /
Hair Care Tips: চুলের যত্নে মধুর জুড়ি নেই, উপকার পেতে সপ্তাহে একবার এভাবে লাগাতেই হবে!

Hair Care Tips: চুলের যত্নে মধুর জুড়ি নেই, উপকার পেতে সপ্তাহে একবার এভাবে লাগাতেই হবে!

Hair Care Tips

Hair Care Tips

ঘরে তৈরি হেয়ার মাস্কে মধু যোগ করেই চুলের যত্নে ব্যবহার করা যায়। দেখে নেওয়া যাক সেগুলো। (Hair Care Tips)

  • Share this:

চুলে মধু! শুনেই চোখ কপালে উঠছে নিশ্চয়! অনেকে ভাবতে পারেন, মধুর মতো চটচটে উপাদান চুলে লাগালে তো চিত্তির। উঠবে কী করে! ব্যাপারটা এমন নয়। চুলের যত্নে মধুর একাধিক উপকারিতা রয়েছে। এটা ভিটামিন এবং খনিজে ভরপুর। এতে থাকা আয়রন, ক্যালসিয়াম, কপার, ফসফরাস, জিঙ্ক, ম্যাগনেসিয়াম, পটাসিয়াম এবং ক্যালসিয়াম চুলের জন্য দারুণ কার্যকরী।

মধু অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ। তাই মাথার ত্বকের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে সাহায্য করে। চুল ভাঙা রোধ করে। শুধু তাই নয়, চুলের ফলিকলগুলোকে শক্তি যোগানোর ফলে চুলের বৃদ্ধিতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেয়। ২০১৩ সালের একটি হেলথলাইন প্রতিবেদন অনুযায়ী, মধু ত্বকের (এপিথেলিয়াল) কোষের বৃদ্ধিকে উদ্দীপিত করে। মাথার ত্বক এই কোষে পূর্ণ। ঘরে তৈরি হেয়ার মাস্কে মধু যোগ করেই চুলের যত্নে ব্যবহার করা যায়। দেখে নেওয়া যাক সেগুলো।

আরও পড়ুন: বিঘার পর বিঘা জমি, তোলা হচ্ছে পাঁচিল, অর্পিতার নতুন সম্পত্তির কথা জানলে মাথা ঘুরবে!

মধু ও নারকেল তেল: মধু এবং নারকেল তেলের হেয়ার মাক্স চুল বাড়াতে দারুণ সাহায্য করে। শুধু তাই নয়, এটা মাথার ত্বকে পুষ্টি এবং প্রয়োজনীয় খনিজ উপাদান যোগায়। চুলের টেক্সচারও ভালো রাখে। এ জন্য আধ কাপ মধু এবং নারকেল তেল একসঙ্গে মিশিয়ে একটা ঘন পেস্ট তৈরি করে নিতে হবে। তারপর সেটা লাগাতে হবে মাথার ত্বকে। হালকা হাতে মাসাজ করতে হবে। ১৬ থেকে ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলতে হবে ঠান্ডা জলে। তবে চুলে যাতে মধু একটুও না লেগে থাকে সে জন্য একবার শ্যাম্পু করে নইলে সবচেয়ে ভালো। সপ্তাহে ২ বার এই হেয়ার মাস্ক লাগালে ভালো ফল পাওয়া যাবে।

আরও পড়ুন: তৈরি হচ্ছে লিস্ট, পার্থ ঘনিষ্ঠ জেলা নেতাদের ডাকবে ইডি! কাঁপন ধরছে তৃণমূলে

মধু ও অ্যাপেল সিডার ভিনিগার: ধুলো, ময়লা থেকে মাথার ত্বক পরিষ্কার করতে মধু ও অ্যাপেল সিডার ভিনিগারের মাস্ক একেবারে আদর্শ। এটা ব্যাকটেরিয়ার পাশাপাশি চুলে ছত্রাক সংক্রমণ রোধেও সাহায্য করবে। তাছাড়া চুল নরম এবং মসৃণ করতেও এটা দারুণ কার্যকর। এ জন্য ২:৫ অনুপাতে মধু এবং অ্যাপেল সিডার ভিনিগার মেশাতে হবে। পেস্ট তৈরি হয়ে গেলে সেটা লাগাতে হবে মাথার ত্বকে। শুকানোর জন্য আধঘণ্টা অপেক্ষা করতে হবে। তারপর ধুয়ে ফেলতে হবে ঠান্ডা জলে। শ্যাম্পুও করে নেওয়া যায়। সপ্তাহে একবার এই মাস্ক ব্যবহার করতে হবে।

মধু ও কলা: নিস্তেজ, ভঙ্গুর এবং কুঁচকে যাওয়া চুলের জন্য মধু ও কলার হেয়ার মাস্ক আদর্শ। এটা চুলে পুষ্টি যোগানোর পাশাপাশি মাথার ত্বককে হাইড্রেটেড রাখবে। এ জন্য একটা পাত্রে আধ কাপ মধু, দুটো পিষে নেওয়া কলা এবং এক কাপের চার ভাগের এক ভাগ অলিভ অয়েল দিয়ে একটা পেস্ট তৈরি করতে হবে। এবার সেটা চুলে লাগিয়ে শুকানোর জন্য অপেক্ষা করতে হবে ২০ মিনিট। তারপর চুল ধুয়ে শ্যাম্পু করে নিতে হবে। সপ্তাহে অন্তত একবার এই হেয়ার মাস্ক ব্যবহার করা উচিত।

Published by:Raima Chakraborty
First published:

Tags: Hair Care Tips, Lifestyle tips

পরবর্তী খবর